kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৩ কার্তিক ১৪২৭। ২৯ অক্টোবর ২০২০। ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

কৃষি আইন নিয়ে আরো বিড়ম্বনায় নরেন্দ্র মোদি

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কৃষি আইন নিয়ে আরো বিড়ম্বনায় নরেন্দ্র মোদি

ভারতে কৃষি আইনের বিরুদ্ধে গতকাল দিল্লিতে বিক্ষোভে নামে কংগ্রেস দল। এ সময় বেশ কয়েকজন কর্মীকে আটক করে পুলিশ। ছবি : এএফপি

কৃষি আইনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ছে ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে। গতকাল সোমবার সকালে দিল্লির ইন্ডিয়া গেটের কাছে একটি পুরনো ট্রাক্টরে আগুন ধরিয়ে দেয় জনা বিশেক বিক্ষোভকারী। পুলিশ জানিয়েছে, পাঞ্জাবের যুব কংগ্রেসের কর্মীরাই এই কাজ করেছেন। কারা ট্রাক্টরে আগুন ধরিয়েছেন তা খুঁজে দেখছে পুলিশ। পাঁচজনকে আটক করা হয়েছে। তবে ঘটনা হলো, পাঞ্জাব, হরিয়ানা, উত্তর প্রদেশ, মধ্য প্রদেশ ও কর্ণাটকের পর কৃষকদের ক্ষোভ দিল্লিতেও আছড়ে পড়ল।

পাঞ্জাবে কৃষকরা বিক্ষোভ থামাবেন না বলে জানিয়ে দিয়েছেন। তাঁরা বিভিন্ন রাস্তা বন্ধ করে রেখেছেন। এই অবস্থায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সরকারের বিরুদ্ধে চাপ আরো বাড়াতে পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী অমরিন্দর সিং বিক্ষোভ জানাতে পথে নামছেন। তিনি এর জন্য বেছে নিয়েছেন শহিদ ভগত সিংয়ের গ্রাম খটকর কলাকে। সেখানে তিনি ভগত সিংয়ের জয়ন্তীতে তাঁকে শ্রদ্ধার্ঘ্য জানাবেন। এরপর সেখান থেকেই শুরু করবেন বিক্ষোভ আন্দোলন। পাশাপাশি তিনি রাজ্যে আইন বদল করে কৃষকদের স্বার্থ বজায় রাখা হবে বলে জানিয়েছেন। আইন বদলের জন্য আইনজ্ঞদের সঙ্গে আলোচনাও শুরু হয়ে গেছে।

বিতর্কিত তিন কৃষি বিলে রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ রবিবারই সই করেছেন। ফলে বিজ্ঞপ্তি জারির পর তা এখন আইনে পরিণত হয়েছে। এর পরই এই আইনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ আরো তীব্র হয়েছে। পাঞ্জাবে অমরিন্দর সিংয়ের বিক্ষোভে না নেমে উপায়ও ছিল না। কারণ রাজ্যজুড়ে কৃষকরা রাস্তায়। কংগ্রেস তাঁদের সমর্থন করছে। অন্যদিকে আকালি দল এনডিএ থেকে বেরিয়ে এসে রাজ্যে আন্দোলনে নেমে পড়েছে। কৃষকদের স্বার্থ রক্ষার পাশাপাশি তারা আক্রমণ করছে অমরিন্দর সিংকে। এই অবস্থায় অমরিন্দরও রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করলেন।

এক সপ্তাহ আগে দুটি কৃষি বিল ঘিরে কার্যত রণক্ষেত্রের চেহারা নিয়েছিল রাজ্যসভা। ডেপুটি চেয়ারম্যানের টেবিলের সামনে গিয়ে তিনটি মাইক্রোফোন ভেঙে দেওয়া এবং রুল বুক ছেঁড়ার অভিযোগ উঠেছিল বিরোধী সাংসদদের বিরুদ্ধে। জেরে আট সাংসদ সাসপেন্ড হয়ে ধরনায় বসেছিলেন। প্রতিবাদে রাজ্যসভা বয়কট করেন বিরোধী সাংসদরা। বিরোধীশূন্য রাজ্যসভায়ই পাস হয়ে যায় তৃতীয় কৃষি বিলটিও। সূত্র : দ্য হিন্দু।

মন্তব্য