kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৬ কার্তিক ১৪২৭। ২২ অক্টোবর ২০২০। ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

ইরানের ওপর নিষেধাজ্ঞা পুনর্বহাল

যুক্তরাষ্ট্রের আচরণ ‘বেপরোয়া’

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২১ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



যুক্তরাষ্ট্রের আচরণ ‘বেপরোয়া’

যে চুক্তি থেকে দুই বছর আগেই বেরিয়ে গেছে যুক্তরাষ্ট্র, সেই চুক্তির বলে ইরানের ওপর নিষেধাজ্ঞা পুনর্বহাল করেছে পশ্চিমা দেশটি। যুক্তরাষ্ট্রের এমন আচরণকে বেপরোয়া অ্যাখ্যা দিয়েছে ইরান। এ ছাড়া যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা পুনর্বহালের সিদ্ধান্তকে বেআইনি অ্যাখ্যা দিয়েছে রাশিয়া। ওই সিদ্ধান্তের কোনো আইনি প্রভাব পড়বে না বলে মনে করে ফ্রান্স ও জার্মানি।

ইরানের পরমাণু কার্যক্রম নিয়ন্ত্রণে দেশটির সঙ্গে ২০১৫ সালে জয়েন্ট কম্প্রিহেনসিভ প্ল্যান অব অ্যাকশন (জেসিপিওএ) শীর্ষক চুক্তি করে যুক্তরাষ্ট্র, ব্রিটেন, ফ্রান্স, চীন, রাশিয়া ও জার্মানি। যুক্তরাষ্ট্র ২০১৮ সালে ওই চুক্তি থেকে সরে আসে। অথচ ওই চুক্তির বলে এখন নিষেধাজ্ঞা পুনর্বহালের ঘোষণা দিয়েছে মার্কিন প্রশাসন। গত আগস্টে এসংক্রান্ত হুঁশিয়ারি দিয়েছিল তারা। গতকাল রবিবার থেকে তা কার্যকর করা হয়।

যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও গত শনিবার এক বিবৃতিতে বলেন, ‘ইসলামিক রিপাবলিক অব ইরানের ওপর থেকে আগে প্রত্যাহার করা জাতিসংঘের সব নিষেধাজ্ঞা আজ ফিরিয়ে আনাকে আমরা স্বাগত জানাচ্ছি।’ ওয়াশিংটনের স্থানীয় সময় গতকাল রাত ৮টা থেকে ওই সব নিষেধাজ্ঞা পুনর্বহাল করার কথা জানান তিনি।

মার্কিন প্রশাসন হুঁশিয়ারি দিয়েছে, জাতিসংঘের কোনো সদস্য রাষ্ট্র মার্কিন সিদ্ধান্ত কার্যকরে অসহযোগিতা করলে তার বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

যুক্তরাষ্ট্রের এই পদক্ষেপকে বেপরোয়া অ্যাখ্যা দিয়ে ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র সাইদ খতিবজাদেহ গতকাল এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ‘হোয়াইট হাউস প্রশাসনের এই বেপরোয়া কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় ও বিশ্বের সব দেশ রুখে দাঁড়াবে এবং ঐক্যের সুরে কথা বলবে—এমনটাই আমাদের প্রত্যাশা।’ মার্কিন প্রশাসনের উদ্দেশে কটাক্ষের সুরে তিনি আরো বলেন, পুনর্বহাল করা নিষেধাজ্ঞা কেবল শীর্ষ মার্কিন কূটনীতিক পম্পেওর ‘কল্পলোকে’ থেকে যাবে, বাকি বিশ্বে এর কোনো প্রভাব পড়বে না।

এ ছাড়া জেসিপিওএভুক্ত দেশ রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় মার্কিন পদক্ষেপকে বেআইনি অ্যাখ্যা দিয়ে এর নিন্দা জানিয়েছে। গতকাল এক বিবৃতিতে রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলে, ‘যুক্তরাষ্ট্রের বেআইনি পদক্ষেপ ও কার্যক্রম কার্যত অন্যান্য দেশের ওপর কোনো আন্তর্জাতিক আইনি প্রভাব ফেলবে না।’ বাস্তবতার সঙ্গে মার্কিন সিদ্ধান্তের কোনো সংগতি নেই—এমন মন্তব্যও করা হয় ওই বিবৃতিতে।

এদিকে জেসিপিওএভুক্ত অন্য দুই দেশ ফ্রান্স ও জার্মানি গতকাল এক যৌথ বিবৃতিতে বলেছে, পম্পেওর ‘উদ্দেশ্যমূলক ঘোষণা কোনো আইনি প্রভাব ফেলতে সক্ষম নয়’।

জেসিপিওএ স্বাক্ষর ও বাস্তবায়নের নেতৃত্বে ছিলেন সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। ইরানের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের বিনিময়ে দেশটির পরমাণু কার্যক্রমে লাগাম টানাই ছিল চুক্তির উদ্দেশ্য। চুক্তি স্বাক্ষরের সময় তিনি স্ন্যাপব্যাক শীর্ষক এক বিধান রেখেছিলেন। সে অনুসারে ইরান চুক্তি মানতে ব্যর্থ হলে জেসিপিওএভুক্ত অন্য দেশগুলোর অনুমতি ছাড়াই নিষেধাজ্ঞা পুনর্বহাল করতে পারবে যুক্তরাষ্ট্র। জেসিপিওএ থেকে বেরিয়ে গিয়ে যুক্তরাষ্ট্র সেই স্ন্যাপব্যাক কার্যকর করতে পারে কি না তা নিয়ে বিতর্ক শুরু হয়েছে গত আগস্ট থেকে, যখন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প স্ন্যাপব্যাক কার্যকরের প্রসঙ্গ তোলেন। বিতর্ক উপেক্ষা করে স্ন্যাপব্যাক কার্যকর করেছে যুক্তরাষ্ট্র, আর জেসিপিওএভুক্ত দেশগুলো সেটাকে বেআইনি মনে করছে। সূত্র : এএফপি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা