kalerkantho

বুধবার । ৫ কার্তিক ১৪২৭। ২১ অক্টোবর ২০২০। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

সুস্থতায় রেকর্ড ভারতের

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২০ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সুস্থতায় রেকর্ড ভারতের

ভারতে দৈনিক সংক্রমণের সংখ্যা ৯০ হাজারের নিচে নামছেই না। অবশ্য ২৪ ঘণ্টায় সেখানে সর্বোচ্চসংখ্যক মানুষ সুস্থ হয়ে উঠেছে। এদিকে শুক্রবার এক দিনে বিশ্বজুড়ে রেকর্ড প্রায় তিন লাখ রোগী সেরে উঠেছে। অন্যদিকে করোনায় এক সপ্তাহে ৫০ হাজারের বেশি প্রাণহানিকে অগ্রহণযোগ্য বেশি বলে মন্তব্য করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডাব্লিউএইচও)।

ভারতের কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের তথ্যানুসারে, গত ২৪ ঘণ্টায় সেখানে ৯৩ হাজার ৩৩৭ জন নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। এতে মোট সংক্রমিতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫৩ লাখ আট হাজার ১৪ জন। অবশ্য সুস্থ হওয়ার পরিসংখ্যান ভারতে বরাবরই আশাব্যঞ্জক। এখন পর্যন্ত প্রতিবেশী দেশটিতে মোট ৪২ লাখ আট হাজার ৪৩১ জন করোনার কবল থেকে মুক্ত হয়েছে। অর্থাৎ মোট আক্রান্তের সাড়ে ৭৯ শতাংশই সুস্থ হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে সর্বাধিক ৯৫ হাজার ৮৮০ জন সুস্থ হয়েছে। ফলে দেশটিতে বর্তমানে চিকিৎসাধীন রোগীর সংখ্যা ১০ লাখ ১৩ হাজার ৯৬৪ জন।

তবে যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপের দেশগুলোর তুলনায় মৃত্যুর হার কম হলেও ভারতে মৃতের সংখ্যা নেহাত কম নয়। চলতি মাসের শুরু থেকেই তা ধারাবাহিকভাবে হাজারের ওপরে অবস্থান করছে। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনার জেরে মৃত্যু হয়েছে এক হাজার ২৪৭ জনের। এ নিয়ে সেখানে মোট ৮৫ হাজার ৬১৯ জনের প্রাণ কাড়ল করোনাভাইরাস।

এদিকে ডাব্লিউএইচও বলছে, মৃত্যু ও সংক্রমণে বৈশ্বিক বেগ কিছুটা ধীর হলেও কিছু কিছু অঞ্চল ও স্থানীয় পর্যায়ে তা যথেষ্ট বাড়ছে।

ডাব্লিউএইচওর জরুরি বিভাগের প্রধান মাইকেল রায়ান গত শুক্রবার ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ‘বিশ্বব্যাপী প্রতি সপ্তাহে ১৮ থেকে ২০ লাখ সংক্রমণ এবং ৪০ থেকে ৫০ হাজার মৃত্যুর সংখ্যা যোগ হচ্ছে। আশার কথা, এটি তীব্র বেগে বাড়ছে না। তবে এখনো যে পরিমাণে বাড়ছে তাও অনেক। আমরা এই সংখ্যাও দেখতে চাচ্ছি না।’

রায়ান বলেন, ‘এই মহামারি শেষ হওয়ার পথ এখনো অনেক বাকি। চিকিৎসা কৌশলের উন্নতি হওয়ায় অনেক জীবন বেঁচে যাচ্ছে। কিন্তু সপ্তাহে ৫০ হাজার মৃত্যুর সংখ্যাকে আমরা গ্রহণযোগ্য বলতে পারি না।’

বৈশ্বিক পরিসংখ্যানভিত্তিক ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারের হিসাবে, গতকাল পর্যন্ত বিশ্বজুড়ে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে প্রায় তিন কোটি ১০ লাখে। এর মধ্যে সেরে উঠেছে দুই কোটি ২৬ লাখেরও বেশি রোগী। সূত্র : এএফপি, আনন্দবাজার।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা