kalerkantho

বুধবার । ১৫ আশ্বিন ১৪২৭ । ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০। ১২ সফর ১৪৪২

ফ্লোরিডায় প্রচার শুরু করতে বিলম্ব

‘ভুগতে হবে বাইডেনকে’

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



‘ভুগতে হবে বাইডেনকে’

নির্বাচনী নাটকীয়তার জন্য ফ্লোরিডার বিশেষ সুনাম রয়েছে। এই রাজ্য কখন কোন দলের দিকে ঝুঁকবে তা আগে থেকে বলা কঠিন। এ কারণে বরাবরই এই রাজ্যের পরিচয় ‘ঝুলন্ত’। সংখ্যার বিচারে এই রাজ্যের অর্ধেক ভোটার ডেমোক্র্যাট আর অর্ধেক রিপাবলিকান। জাতিগত দিক থেকে বৈচিত্র্যময় ফ্লোরিডায় ভোটের ফলাফল নির্ধারিত হয় অল্প কিছু ভোটারের সিদ্ধান্তের ওপর ভিত্তি করে। এবার এই গ্রুপগুলোর মধ্যে অন্তত তিনটি বিশেষ মনোযোগ পাচ্ছে—কিউবান-আমেরিকান,  জ্যেষ্ঠ নাগরিক ও কোনো এক সময় অপরাধের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন এমন নাগরিক। এই তিন গোষ্ঠীর সমর্থনের ওপরই এবার নির্ভর করবে হোয়াইট হাউসে কে যাবেন।

ফ্লোরিডার সবচেয়ে বড় শহর মায়ামি। সম্প্রতি এই শহরের স্প্যানিশভাষীরা টিভিতে অথবা ডেস্কটপে ডেমোক্র্যাট প্রার্থী জো বাইডেনের প্রচুর বিজ্ঞাপন দেখছেন। হিসপানিক ভোটারদের বড়শিতে গাঁথার উদ্দেশ্য থেকেই বিজ্ঞাপনগুলো প্রচার করা হচ্ছে। তবে ডেমোক্রেটিক পার্টির বিশ্লেষকরা মনে করেন, বাইডেন এই চেষ্টাটি শুরু করলেন সময় পার করে। এই চেষ্টায়ও ঘাটতি আছে বলে মনে করেন তাঁরা। মায়ামির জরিপকারী প্রতিষ্ঠানের প্রধান ও ডেমোক্রেটিক পার্টির কৌশল বিশ্লেষক ফার্নান্দো ফার্নান্দ বলেন, ‘এই কাজটি ডেমোক্রেটিক পার্টির কয়েক মাস নয়, কয়েক বছর আগে শুরু করা উচিত ছিল। অথচ তারা শুরু করল মাত্র কয়েক দিন সময় হাতে রেখে।’

বেন্ডিক্সান অ্যান্ড অ্যামান্ডি জরিপকারী প্রতিষ্ঠান পরিচালিত এক সমীক্ষায় দেখা যায়, রিপাবলিকান প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প কিউবার যুক্তরাষ্ট্রে পালিয়ে আসা নাগরিকদের মধ্যে জোর প্রচার চালাচ্ছেন। মায়ামির মোট জনসংখ্যার এক-তৃতীয়াংশ এই কিউবান-আমেরিকানরা। চলতি মাসে প্রকাশিত এই সমীক্ষায় দেখা যায়, ৬৮ শতাংশ কিউবান-আমেরিকান এবারের নির্বাচনে ডোনাল্ড ট্রাম্পকে ভোট দেবে। বাইডেনকে দেবে ৩০ শতাংশ। ২০১২ সালে প্রায় অর্ধেক কিউবান-আমেরিকান বারাক ওবামাকে ভোট দেয়। গতবার হিলারি ক্লিনটনকে ভোট দিয়েছিল ৪১ শতাংশ।

তবে এই জরিপ বাইডেনকে শুধু হতাশই করেনি, আশার আলোও দেখিয়েছে। এতে দেখা যায়, বাইডেন কিউবান-আমেরিকানদের ভোট কম পেলেও মায়ামিতে তাঁর প্রতি সমর্থনই বেশি। ৫৫ শতাংশ মায়ামিবাসী তাঁকে ভোট দেবে আর ট্রাম্পকে দেবে ৩৮ শতাংশ। বাইডেনের অবশ্য মায়ামিতে কোনোক্রমে জিতলেই চলবে না; তাঁর বড় জয় প্রয়োজন। এখানে যদি বাইডেন বড় জয় না পান তাহলে গ্রামীণ এলাকাগুলোতে ট্রাম্পের সঙ্গে এঁটে উঠতে পারবেন না। যুক্তরাষ্ট্রের বেশির ভাগ গ্রামীণ এলাকায়ই ট্রাম্প তুলনামূলকভাবে জনপ্রিয়।

এ অঞ্চলে বেশ অনেক দিন ধরেই ট্রাম্প সময় দিচ্ছেন। এর মধ্যে দফায় দফায় তিনি কিউবান-আমেরিকান নেতাদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন। সূত্র : বিবিসি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা