kalerkantho

বুধবার । ১৫ আশ্বিন ১৪২৭ । ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০। ১২ সফর ১৪৪২

বেঙ্গালুরুতে ধর্ম নিয়ে কটূক্তি

পুলিশের গুলিতে তিন বিক্ষোভকারী নিহত

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৩ আগস্ট, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ইসলাম ধর্মকে কটূক্তি করে ফেসবুকে দেওয়া এক পোস্ট নিয়ে ভারতের বেঙ্গালুরুতে সৃষ্ট সহিংসতায় তিনজন নিহত হয়েছে। বিক্ষোভের সময় পুলিশের গুলিতে মৃত্যু হয় তাদের। এদিকে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সেখানকার দুটি জেলায় কারফিউ জারি করেছে স্থানীয় প্রশাসন।

সহিংসতার ঘটনাটি ঘটে গত মঙ্গলবার রাতে, বেঙ্গালুরুর কাবাল বিরাসানদ্রা এলাকায়। ওই এলাকার নবীন নামের এক ব্যক্তি ইসলামের মহানবীকে কটূক্তি করে ফেসবুকে একটি মন্তব্য করেন। তিনি কর্ণাটক বিধানসভার সদস্য আকন্দ শ্রীনিবাস মূর্তির আত্মীয় হন।

স্থানীয় ও আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, ফেসবুকে ওই পোস্ট দেওয়ার পর বিক্ষুব্ধ লোকজন আকন্দ শ্রীনিবাসের বাড়ির সামনে জড়ো হয়ে বিক্ষোভ শুরু করে। তারা কয়েকটি গাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেয়। এরপর পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে বিক্ষোভকারীদের কাঁদানে গ্যাস ছোড়ে। এ সময় বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ বেধে যায়। একপর্যায়ে পুলিশ গুলি চালালে তিন বিক্ষোভকারী নিহত হয়। গ্রেপ্তার করা হয় শতাধিক বিক্ষোভকারীকে। অভিযুক্ত নবীনকেও পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। এ ছাড়া ফেসবুক থেকে ওই পোস্ট মুছে ফেলা হয়েছে।

পুলিশ এক টুইট বার্তায় জানায়, পুলিশ প্রথমে বিক্ষোভকারীদের লাঠিপেটা করে। এরপর কাঁদানে গ্যাস ছোড়ে। তার পরও পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে না এলে পুলিশ গুলি চালায়। তবে পরিস্থিতি বর্তমানে নিয়ন্ত্রণে রয়েছে বলে পুলিশের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে।

বেঙ্গালুরুর কমিশনার কামাল পান্ত দাবি করেন, সহিংসতায় জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তাসহ পুলিশের অন্তত ৬০ সদস্য আহত হয়েছেন।

এদিকে এই ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করে একটি ভিডিও বার্তা দিয়েছেন শ্রীনিবাস মূর্তি। সেখানে তিনি বলেছেন, ‘আমি আমার মুসলিম ভাইদের অনুরোধ করব, যে ব্যক্তি আইন লঙ্ঘন করে মহানবীকে নিয়ে কটূক্তি করেছে, তাকে নিয়ে আপনারা সহিংসতায় লিপ্ত হবেন না। যা-ই ঘটুক, আমাদের ভ্রাতৃত্ব অটুট থাকবে। আর অভিযুক্ত ব্যক্তি যে-ই হোক না কেন, তাকে শাস্তি পেতেই হবে।’ সূত্র : বিবিসি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা