kalerkantho

বুধবার । ১৫ আশ্বিন ১৪২৭ । ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০। ১২ সফর ১৪৪২

মার্কিন মন্ত্রীর তাইওয়ান সফর

আগুন নিয়ে খেললে পুড়তে হবে যুক্তরাষ্ট্রকে : চীন

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৩ আগস্ট, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



আগুন নিয়ে খেললে পুড়তে হবে যুক্তরাষ্ট্রকে : চীন

যুক্তরাষ্ট্রের স্বাস্থ্যমন্ত্রীর তাইওয়ান সফর, সেখানকার গণতন্ত্রপন্থী সাবেক প্রেসিডেন্টের সমাধি পরিদর্শন, তাইওয়ানের প্রতি মার্কিন সমর্থন অব্যাহত রাখার অঙ্গীকার—এসব মোটেই ভালোভাবে নেয়নি চীন। তাইওয়ানকে সব সময় নিজেদের ভূখণ্ড দাবি করা চীন সরকার হুঁশিয়ারি দিয়েছে, আগুন নিয়ে খেললে যুক্তরাষ্ট্রকে পুড়তে হবে।

মার্কিন সরকারের সর্বোচ্চ পর্যায়ের কোনো প্রতিনিধির তাইওয়ান সফরের ঘটনা গত কয়েক দশকের মধ্যে এটিই প্রথম। যুক্তরাষ্ট্রের স্বাস্থ্যমন্ত্রী অ্যালেক্স এজার তিন দিনের সফরে তাইওয়ান যান। সফরকালে তিনি করোনাভাইরাস মহামারি নিয়ন্ত্রণে চীনের ভূমিকার সমালোচনা করেন। এ ছাড়া সফরের শেষ দিন গতকাল বুধবার তাইওয়ানে এক মাস্কের কারখানা পরিদর্শন শেষে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘বন্ধু ও অংশীদার হিসেবে তাইওয়ানের প্রতি আমাদের সমর্থন অব্যাহত থাকবে।’ বিশেষ করে তাইওয়ানের নিরাপত্তা, অর্থনীতি ও স্বাস্থ্য খাতে যুক্তরাষ্ট্রের সহায়তার কথা বলেন এজার।

সফরের শেষ দিন মার্কিন স্বাস্থ্যমন্ত্রী তাইওয়ানের সাবেক প্রেসিডেন্ট লি তেং হুইয়ের সমাধি পরিদর্শন করেন। ৯৭ বছর বয়সী লি গত মাসে মারা গেছেন। গণতন্ত্রের পথে তাইওয়ানের উত্তরণে লির ভূমিকার প্রশংসা করে এজার বলেন, ‘প্রেসিডেন্ট লির রেখে যাওয়া গণতান্ত্রিক ধারাবাহিকতা যুক্তরাষ্ট্র-তাইওয়ান সম্পর্কে চিরদিন ভূমিকা রাখবে।’

তাইওয়ানে স্বৈরশাসনের অবসান ঘটিয়ে গণতান্ত্রিক ধারা চালু করার জন্য লি খোদ তাইওয়ানে এবং পশ্চিমাদের কাছ থেকে ‘মি. ডেমোক্রেসি’ খেতাব পেয়েছেন। তবে চীনের জন্য তিনি বরাবরই চক্ষুশূল। তাঁর মৃত্যুর পর চীনের রাষ্ট্রায়ত্ত সংবাদমাধ্যমগুলোয় তাঁকে ‘তাইওয়ানের বিচ্ছিন্নতাবাদের গডফাদার’ আখ্যা দিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়।

লির উদ্দেশে মার্কিন মন্ত্রীর প্রশংসাসূচক মন্তব্য, এমনকি পুরো তাইওয়ান সফরটাই নেতিবাচকভাবে নিয়েছে চীন, এমনকি তা বাতিল করার দাবিও জানিয়েছিল। নিয়মিত প্রেস ব্রিফিংয়ে অংশ নিয়ে গতকাল চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ঝাও লিজিয়ান দেশের অবস্থান তুলে ধরে স্পষ্ট বলে দেন, কোনো অজুহাতেই যুক্তরাষ্ট্র-তাইওয়ান দাপ্তরিক লেনদেন সমর্থন করে না চীন। তিনি আরো বলেন, ‘চীনের নিবিড় স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিষয়গুলো নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের কেউ কেউ যেন কোনোভাবেই বিভ্রান্তিকে প্রশ্রয় না দেয়। আগুন নিয়ে খেললে তারা পুড়ে যাবে।’

তাইওয়ানের উদ্দেশে হুঁশিয়ারি দিয়ে চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ঝাও বলেন, ‘তাইওয়ানের কর্তৃপক্ষকে আমি স্মরণ করিয়ে দিতে চাই, তারা যেন অন্যদের আজ্ঞাবহ না হয়, বিদেশিদের সমর্থনের ওপর নির্ভরশীল না হয় এবং স্বাধীনতার পথে অগ্রসর না হয়; তাহলে কিন্তু ফেরার পথ থাকবে না।’ ১৯৪৯ সাল থেকে তাইওয়ানে স্বায়ত্তশাসন চলছে। শাসকদের রদবদল ঘটলেও এ ভূখণ্ড কখনো স্বাধীনতা ঘোষণার পথে হাঁটেনি। আর চীনও সেটা চায় না। সূত্র : এএফপি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা