kalerkantho

মঙ্গলবার । ৭ আশ্বিন ১৪২৭ । ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০। ৪ সফর ১৪৪২

যুক্তরাষ্ট্রে দুই সপ্তাহে লাখ শিশু আক্রান্ত

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১১ আগস্ট, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



যুক্তরাষ্ট্রে দুই সপ্তাহে লাখ শিশু আক্রান্ত

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে জুলাইয়ের শেষ দুই সপ্তাহে ৯৭ হাজারের বেশি শিশু নভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। আমেরিকান একাডেমি অব পেডিয়াট্রিকস ও চিলড্রেনস হসপিটাল অ্যাসোসিয়েশন প্রকাশিত এক গবেষণা প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে এসেছে। এতে দেখা গেছে, এই সময়ে যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন অঙ্গরাজ্য ও শহরে শিশুদের করোনায় আক্রান্তের হার ৪০ শতাংশ বেড়েছে।

শিশুদের ওপর করোনাভাইরাসের প্রভাব জানতে এবং এই মুহূর্তে তাদের স্কুলে ফেরানো ঠিক হবে কি না তা নিয়ে অনেক দিন ধরে গবেষণা চালিয়ে আসছেন স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা। এরই মধ্যে মার্কিন মুলুকে বেশ কিছু স্কুল তাদের কার্যক্রম শুরু করেছে। কিছু স্কুল পুনরায় শুরু করার প্রস্তুতি নিচ্ছে। এর মধ্যে জর্জিয়া অঙ্গরাজ্যের একটি স্কুল খোলার পরপরই ৯ জনের শরীরে করোনা ধরা পড়েছে। আক্রান্তদের মধ্যে ছয়জন শিক্ষার্থী এবং বাকি তিনজন শিক্ষালয়টির কর্মী।

চীনের উহান থেকে বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার শুরুর দিকে স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা সতর্ক করে বলেছিলেন, এই মারণ ভাইরাস শিশু ও বয়স্কদের জন্য সবচেয়ে বিপজ্জনক। যদিও সেই সতর্কবার্তায় কর্ণপাত করেননি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তিনিসহ অনেক মার্কিন নেতাই বলেছেন, এই ভাইরাস শিশুদের জন্য বড় ধরনের ঝুঁকি তৈরি করে না। তবে নতুন গবেষণা বলছে, প্রাপ্তবয়স্কদের মতোই কিছু শিশু ভাইরাস ছড়াতে ভূমিকা রাখে। গত মে মাস থেকে এখন পর্যন্ত অন্তত ৮৬ শিশুর মৃত্যু হয়েছে। মিসৌরি, ওকলাহোমা, আলাস্কা, নেভাডা, ইডাহো ও মনটানায় গত জুলাইয়ের শেষ দুই সপ্তাহে বিপুলসংখ্যক শিশুর শরীরে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। মারণ ভাইরাসের প্রকোপ শুরু হওয়ার পর যুক্তরাষ্ট্রে এখন পর্যন্ত মোট তিন লাখ ৩৮ হাজার ৯৮২ জন শিশু আক্রান্ত হয়েছে।

বৈশ্বিক পরিসংখ্যানভিত্তিক ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্য অনুযায়ী, যুক্তরাষ্ট্রে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৫২ লাখ ছাড়িয়েছে। এর মধ্যে মারা গেছে প্রায় এক লাখ ৬৬ হাজার রোগী। আর সেরে উঠেছে প্রায় ২৭ লাখ।

এদিকে গতকাল পর্যন্ত বৈশ্বিক মোট আক্রান্তের সংখ্যা দুই কোটি দুই লাখ ছাড়িয়েছে। এর মধ্যে সুস্থ হয়েছে এক কোটি ৩০ লাখেরও বেশি মানুষ। প্রাণহানির সংখ্যা সাত লাখ ৩৭ হাজার ছাড়িয়েছে। বর্তমানে প্রায় ৬৫ হাজার রোগীর অবস্থা সংকটাপন্ন। সূত্র : দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমস।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা