kalerkantho

মঙ্গলবার । ৭ আশ্বিন ১৪২৭ । ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০। ৪ সফর ১৪৪২

অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট থেকে আগেও ঘটেছে বহু বিস্ফোরণ

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৬ আগস্ট, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট নামের এক রাসায়নিক যৌগ থেকেই বৈরুতের বিস্ফোরণ ঘটেছে বলে মনে করছে লেবানন কর্তৃপক্ষ। এখন পর্যন্ত বিস্ফোরণের সূত্রপাতের ব্যাপারে নিশ্চিত তথ্য না পাওয়া গেলেও এ রাসায়নিকটি যে অতিমাত্রার বিস্ফোরক এবং শক্তিশালী বিস্ফোরণ ঘটাতে সক্ষম, তা আগেও অনেকবার দেখেছে বিশ্ব।

অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট মূলত কৃষিকাজের সার ও নির্মাণশিল্পে ব্যবহৃত হলেও বোমা তৈরির কাজেও ব্যবহৃত হয় এটি। আগুনের সংস্পর্শে গেলে এই রাসায়নিক ভয়াবহ বিস্ফোরণ ঘটাতে পারে। গত কয়েক দশকে এটি অনেক শিল্প দুর্ঘটনার জন্ম দিয়েছে। এর মধ্যে ২০১৩ সালে যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসে একটি সার কারখানায় অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট থেকে বিস্ফোরণের ১৫ জন প্রাণ হারায়। ২০০১ সালে ফ্রান্সের তৌলৌসে আরেকটি কেমিক্যাল প্লান্টে রাসায়নিকটি থেকে সৃষ্ট বিস্ফোরণে ৩১ জন নিহত হয়। এটি যদিও একটি দুর্ঘটনা ছিল। অনেক সময় ইচ্ছাকৃতভাবেও বিস্ফোরণের কাজে অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট ব্যবহার করা হয়। ১৯৯৫ সালে যুক্তরাষ্ট্রের ওকলাহোমা শহরে হামলার কাজে ব্যবহৃত বোমা তৈরিতে দুই টন অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট ব্যবহৃত হয়েছিল। ওই বোমা বিস্ফোরণে ১৬৮ জন নিহত হয়।

লেবাননে বস্ফািরণের পর দেশটির প্রধানমন্ত্রী হাসান দিয়াব জানিয়েছেন, বৈরুত বন্দরে কয়েক বছর ধরে দুই হাজার ৭৫০ টন অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট মজুদ করা ছিল। সেখান থেকেই ওই দুর্ঘটনা ঘটে। কিন্তু বিশেষজ্ঞরা বলছেন, উচ্চ তাপ না দেওয়া হলে সাধারণভাবে মজুদ করা অ্যামোনিয়াম নাইট্রেটে বিস্ফোরণ করা কঠিন। এএফপিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ইউনিভার্সিটি অব রোড আইল্যান্ডের রসায়নের অধ্যাপক জিমি অক্সলি বলেন, ‘ভিডিওটির দিকে (বৈরুত বিস্ফোরণের) লক্ষ করলে দেখবেন এখানে কালো ধোঁয়া রয়েছে, লাল ধোঁয়া রয়েছে—যা একটি অসম্পূর্ণ প্রতিক্রিয়া। আমার ধারণা, ছোট একটি বিস্ফোরণ থেকে অ্যামোনিয়াম নাইট্রেটের এই প্রতিক্রিয়া তৈরি হয়েছিল। তবে ওই ছোট বিস্ফোরণটি দুর্ঘটনা, নাকি উদ্দেশ্যপ্রণোদিত, তা আমি এখনো জানি না।’

তিনি আরো জানান, নিজে খুব বেশি দাহ্য না হলেও অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট কোনো বস্ফািরণকে আরো শক্তিশালী করে তোলে এবং অন্যান্য বস্তুকে আরো সহজে ও প্রবল আকারে বিস্ফোরিত হতে সাহায্য করে। তাই এটি যেখানে মজুদ করা হয়, সেখানে সর্বোচ্চ সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নেওয়া হয়। আগুনের কোনো উৎস বা জ্বালানি থেকে একে নিরাপদ রাখা হয়। সূত্র : এএফপি, আলজাজিরা।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা