kalerkantho

রবিবার । ২৮ আষাঢ় ১৪২৭। ১২ জুলাই ২০২০। ২০ জিলকদ ১৪৪১

পুলিশ হেফাজতে কৃষ্ণাঙ্গের মৃত্যু

জ্বলছে যুক্তরাষ্ট্র, বাড়ছে সহিংসতা

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২ জুন, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



জ্বলছে যুক্তরাষ্ট্র, বাড়ছে সহিংসতা

যুক্তরাষ্ট্রে পুলিশ হেফাজতে কৃষ্ণাঙ্গ মৃত্যুর ঘটনায় বিক্ষোভের পরিসর বেড়েই চলেছে, তা ছড়িয়ে পড়েছে দেশের বাইরেও। দেশটিতে বাড়ছে গ্রেপ্তারের সংখ্যা। সেই সঙ্গে বাড়ছে কারফিউ জারি হওয়া শহরের সংখ্যা। চলমান বিক্ষোভের ছয় দিনের মাথায় কমপক্ষে তিনজনের মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে।

ঘটনার প্রথম দিকে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিতর্কিত মন্তব্য করে পরিস্থিতি উসকে দিলেও এখন তিনি কথাবার্তায় লাগাম টেনেছেন। এর মধ্যে অল্প সময়ের জন্য সুরক্ষিত বাংকারে প্রেসিডেন্টের আশ্রয় নেওয়ার ঘটনা ঘটেছে বলে চাউর হয়েছে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে।

যুক্তরাষ্ট্রের মিনেসোটা অঙ্গরাজ্যের মিনিয়াপলিস শহরে সিগারেট কিনে দোকানিকে জাল নোট দেওয়ার অভিযোগে পুলিশের হেফাজতে থাকা অবস্থায় মারা যান কৃষ্ণাঙ্গ জর্জ ফ্লয়েড। গত ২৫ মের ওই ঘটনায় বরখাস্ত পুলিশ কর্মকর্তা ডেরেক শভিনকে গতকাল সোমবার আদালতে হাজির করার কথা ছিল। তবে ওই শুনানির তারিখ পিছিয়ে দিয়ে ৮ মে করা হয়েছে। তাঁর বিরুদ্ধে এর আগেও ১৮টি অভিযোগ জমা পড়েছে বলে গতকাল নিশ্চিত করে মিনিয়াপলিস পুলিশ ডিপার্টমেন্ট। তবে ওই সব অভিযোগ বিস্তারিত জানায়নি পুলিশ।

এর মধ্যে বেড়ে চলেছে বিক্ষোভ ও লুটপাটের ঘটনা। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে কমপক্ষে ৪০টি শহরে কারফিউ জারি করা হয়েছে। এ ছাড়া যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল গার্ড গত রবিবার জানিয়েছে, রাজধানী ওয়াশিংটন ডিসিতে এবং ১৫টি অঙ্গরাজ্যে তাদের পাঁচ হাজার সদস্যকে সক্রিয় করা হয়েছে।

বিক্ষুব্ধরা কারফিউ উপেক্ষা করেই রাস্তায় নামছে এবং উত্তেজনা বাড়ছে। স্থানীয় সময় গত রবিবার দিবাগত রাতে নিউ ইয়র্ক, শিকাগো, ফিলাডেলফিয়া ও লস অ্যাঞ্জেলেসে বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে দাঙ্গা পুলিশের সংঘর্ষ হয়েছে। বেশ কয়েক জায়গায় পুলিশের গাড়ি ভাঙচুর ও আগুন ধরিয়ে দেওয়ার ঘটনা ঘটেছে। জ্বালাওপোড়াও হয়েছে রাজধানীতে, এমনকি হোয়াইট হাউসের কাছেও। অনেক শহরে দোকান লুটপাট করা হয়েছে। বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশ কাঁদানে গ্যাস ও পিপার বুলেট ছোড়ে। এর মধ্যে আইওয়া অঙ্গরাজ্যের ডেভেনপোর্ট শহরে গোলাগুলিতে দুজন বেসামরিক নাগরিক নিহত ও এক পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। এ ছাড়া কেন্টাকির লুইসভিলে পুলিশ বিক্ষোভকারীদের লক্ষ্য করে গুলি ছুড়লে একজন নিহত হয়।

আন্তর্জাতিক অঙ্গনের প্রতিক্রিয়া : যুক্তরাষ্ট্রে বিদ্যমান বর্ণবাদ ‘সমাজের অসুস্থতা’, এমন মন্তব্য করে বর্ণবাদ প্রতিহত করার আহ্বান জানিয়েছে চীন। গতকাল সংবাদ সম্মেলনে এ মন্তব্য করেন চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ঝাও লিজিয়ান।

যুক্তরাষ্ট্রে চলমান সহিংসতার ব্যাপারে ‘গভীর দুঃখ’ প্রকাশ করে তা বন্ধের আহ্বান জানিয়েছে ইরান। গতকাল এক সংবাদ সম্মেলনে ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ‘মার্কিন জনগণের বিরুদ্ধে সহিংসতা’ বন্ধে পুলিশের প্রতি আহ্বান জানান। 

এদিকে গত রবিবার যুক্তরাষ্ট্রে জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা রবার্ট ও’ব্রায়েন এবিসি নিউজকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে অভিযোগ করেন, চলমান সহিংসতা উসকে দিচ্ছে জিম্বাবুয়ে ও চীন। এর প্রতিবাদে গতকাল জিম্বাবুয়ে সরকার তাদের দেশে কর্মরত মার্কিন রাষ্ট্রদূতকে তলব করে এবং ও’ব্রায়েনের বক্তব্যের ব্যাখ্যা চায়।

কৃষ্ণাঙ্গ নেতাদের সঙ্গে হোয়াইট হাউসের যোগাযোগ : দেশজুড়ে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি হওয়ায় দ্রুত সমাধানে পৌঁছতে কৃষ্ণাঙ্গ নেতাদের সঙ্গে যোগাযোগ করছে হোয়াইট হাউস। সূত্র : সিএনএন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা