kalerkantho

রবিবার । ২৮ আষাঢ় ১৪২৭। ১২ জুলাই ২০২০। ২০ জিলকদ ১৪৪১

বৈশ্বিক উৎপাদনে ৮.৫ ট্রিলিয়ন ডলার ক্ষতির আশঙ্কা

পরিস্থিতি মোকাবেলায় গুতেরেসের ঐক্যের আহ্বান

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৩০ মে, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বৈশ্বিক উৎপাদনে ৮.৫ ট্রিলিয়ন ডলার ক্ষতির আশঙ্কা

বৈশ্বিক মহামারির কারণে অকল্পনীয় অর্থনৈতিক বিপর্যয়ের ব্যাপারে সতর্কবার্তা দিয়ে জাতিসংঘ মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস বলেছেন, এ বিপর্যয় ঠেকাতে এখনই বিশ্বব্যাপী প্রয়োজন ঐক্য আর সংহতি।

বিশ্বের ৫০টির বেশি দেশ ও আন্তর্জাতিক সংস্থার শীর্ষ নেতাদের বৈঠকে গত বৃহস্পতিবার মহামারিজনিত বিপর্যয় নিয়ে কথা বলেন জাতিসংঘপ্রধান। ‘উন্নয়নের জন্য অর্থায়ন’ শীর্ষক ওই বৈঠকে গুতেরেস বলেন, ‘আমরা যদি এখনই ব্যবস্থা না নিই, তাহলে কভিড-১৯ মহামারি বিশ্বব্যাপী অকল্পনীয় বিপর্যয় আর দুর্ভোগ বয়ে আনবে।’ তাঁর ভাষ্য, ক্ষুধা ও দুর্ভিক্ষ আগের সব ইতিহাসকে ছাপিয়ে যাবে। চরম দারিদ্র্যের কবলে পড়বে আরো ছয় কোটি মানুষ। বিশ্বের মোট কর্মী বাহিনীর অর্ধেক তথা ১৬০ কোটি মানুষ জীবিকা হারাবে। সর্বোপরি বৈশ্বিক উৎপাদনে ক্ষতি হবে সাড়ে আট ট্রিলিয়ন ডলার। ১৯৩০ দশকের মহামন্দার পর এত বড় ক্ষতির মুখে আর কখনো পড়েনি বিশ্ব, এমন মন্তব্য করেন গুতেরেস।

এ বিপর্যয় আমাদের এড়াতেই হবে, এমন মন্তব্য করে গুতেরেস বলেন, ‘মহামারি আমাদের দুর্বলতা উন্মোচন করে দিয়েছে। সাম্প্রতিক দশকগুলোয় সব রকম প্রযুক্তিগত ও বৈজ্ঞানিক অগ্রগতি সত্ত্বেও ক্ষুদ্রাতিক্ষুদ্র এক ভাইরাসের কারণে আমরা নজিরবিহীন মানবিক সংকটের মধ্যে পড়ে গেছি।’ এ সংকট থেকে উত্তরণের জন্য বিশ্বের সবার ঐক্য ও সংহতির ওপর জোর দেন জাতিসংঘের এ শীর্ষ নেতা।

‘উন্নয়নের জন্য অর্থায়ন’ শীর্ষক ওই বৈঠকের পর এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে অংশ নেন গুতেরেস। এতে তাঁর সঙ্গে যোগ দেন জামাইকার প্রধানমন্ত্রী অ্যান্ড্রু হলনেস ও কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। ‘উন্নয়নের জন্য অর্থায়ন’ শীর্ষক বৈঠকে কেন চীন ও যুক্তরাষ্ট্র কথা বলেনি, সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে গুতেরেস জানান, ঐক্যবদ্ধ কর্মযজ্ঞে চীন-যুক্তরাষ্ট্র শামিল হবে এবং তাদের অংশগ্রহণকে স্বাগত জানানো হবে।

বলা দরকার, করোনাভাইরাস মহামারি নিয়ন্ত্রণ ও বাণিজ্য ইস্যুতে চীন ও যুক্তরাষ্ট্রের সম্পর্ক নাজুক অবস্থায় রয়েছে। এর সঙ্গে নতুন করে যোগ হয়েছে হংকংয়ে বিতর্কিত জাতীয় নিরাপত্তা আইন জারিসংক্রান্ত ইস্যু। বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে তিক্ততার মধ্যে আপাতত কোনো রকম বোঝাপড়ায় যোগ দিচ্ছে না বিশ্বের অন্যতম শক্তিধর অর্থনীতির ওই দুই দেশ।   সূত্র : টাইমস অব ইন্ডিয়া।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা