kalerkantho

শনিবার । ২৭ আষাঢ় ১৪২৭। ১১ জুলাই ২০২০। ১৯ জিলকদ ১৪৪১

টুইটারের সঙ্গে বাদানুবাদ

সামাজিক মাধ্যম নিয়ন্ত্রণের আদেশে সই করছেন ট্রাম্প

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৯ মে, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম টুইটারের সঙ্গে বিবাদের জের ধরে গত বুধবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম বন্ধ করার হুমকি দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। গতকাল বৃহস্পতিবার এসংক্রান্ত একটি নির্বাহী আদেশে স্বাক্ষর করার কথা তাঁর। হোয়াইট হাউসের বরাত দিয়ে বিবিসি এ তথ্য জানিয়েছে।

গত মঙ্গলবার কোনো ধরনের প্রমাণ যুক্ত করা ছাড়াই ডাকযোগে ভোট পদ্ধতির সমালোচনা করে একটি টুইট করেন ট্রাম্প। এর পরই ওই পোস্টের সঙ্গে তথ্যের সত্যতা যাচাইয়ের লেবেল জুড়ে দেয় টুইটার। পোস্টটির সত্যতা যাচাই করে নেওয়ার জন্য সবাইকে সতর্ক করে দিয়ে ট্রাম্পের পোস্টটিকে ‘অপ্রমাণিত’ দাবি করা আরেকটি পেজের লিংকও জুড়ে দেওয়া হয়। তাতেই টুইটারের ওপর ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। টুইটারের বিরুদ্ধে বাক্স্বাধীনতা হরণের অভিযোগ তোলেন তিনি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমটিকে ইঙ্গিত করে আরেকটি টুইটে তিনি বলেন, ‘তারা এখন পুরোপুরি উন্মাদ হয়ে গেছে। আমার সঙ্গে যুক্ত থাকুন!’ পরে বুধবার এর জের ধরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম বন্ধ করে দেওয়ার হুমকি দেন ট্রাম্প।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, নির্বাহী আদেশে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম সংক্রান্ত কী নির্দেশনা থাকছে, সে সম্পর্কে হোয়াইট হাউস কোনো তথ্য দেয়নি। এ ছাড়া কংগ্রেসে আইন পাস করা ছাড়া ট্রাম্প এসংক্রান্ত কী পদক্ষেপ নিতে পারেন, তাও স্পষ্ট নয়।

কয়েক বছর ধরেই টুইটারের বিরুদ্ধে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের বিতর্কিত টুইট পোস্ট করা নিয়ে সমালোচনা উঠেছে। এসব টুইটে ট্রাম্প তাঁর রাজনৈতিক প্রতিদ্বন্দ্বীদের বিরুদ্ধে ব্যক্তিগত আক্রমণ করেছেন এবং ষড়যন্ত্র তত্ত্ব বলে অনেক কিছু উড়িয়ে দিয়েছেন। করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যে এ মাসে টুইটার বিভ্রান্তিমূলক তথ্য বিষয়ে তাদের নতুন নীতিমালা চালু করেছে।

টুইটারে ট্রাম্পের অনুসারীর সংখ্যা আট কোটির বেশি। তবে সম্প্রতি ট্রাম্প তাঁর রাজনৈতিক সহযোগী লোরি ক্লাউসুটিসের মৃত্যু নিয়ে একটি ষড়যন্ত্র তত্ত্ব দিয়ে টুইট করেছিলেন যেখানে তাঁর মৃত্যুর জন্য একজন সুপরিচিত সমালোচককে তিনি দায়ী করেছেন, সেই পোস্টটি নিয়ে টুইটার কোনো সতর্কবার্তা দেয়নি। সূত্র : বিবিসি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা