kalerkantho

শুক্রবার । ১৪ কার্তিক ১৪২৭। ৩০ অক্টোবর ২০২০। ১২ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

আম্ফানে বিধ্বস্ত এলাকা পরিদর্শনে মোদি

পশ্চিমবঙ্গের জন্য হাজার কোটি রুপির সাহায্য

পশ্চিমবঙ্গে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৮০

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৩ মে, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পশ্চিমবঙ্গের জন্য হাজার কোটি রুপির সাহায্য

পশ্চিমবঙ্গে ঘূর্ণিঝড় আম্ফানে বিধ্বস্ত এলাকা গতকাল শুক্রবার পরিদর্শন করেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। অতি প্রবল ঘূর্ণিঝড়ের তাণ্ডবে পশ্চিমবঙ্গের যে ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে, তা মোকাবেলার জন্য রাজ্যকে এক হাজার কোটি রুপি দেওয়ার কথাও ঘোষণা করেন তিনি। বিধ্বস্ত এলাকা পরিদর্শন এবং বসিরহাটে প্রশাসনিক বৈঠকে বসে ক্ষয়ক্ষতি মূল্যায়নের পরই এ ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী। তবে কেন্দ্র কী প্যাকেজ দিতে চলেছে, তা এখনো স্পষ্ট নয় বলে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন।

গতকাল সকাল পৌনে ১১টা নাগাদ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বিমান কলকাতা বিমানবন্দরে নামে। তাঁকে স্বাগত জানানোর জন্য উপস্থিত ছিলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড় এবং মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কলকাতা বিমানবন্দর থেকে হেলিকপ্টারে প্রধানমন্ত্রী রওনা দেন আম্ফানবিধ্বস্ত এলাকা পরিদর্শনের জন্য। দক্ষিণ চব্বিশ পরগনার, গোসাবা, কুলতলি, ডায়মন্ড হারবারসহ বিভিন্ন এলাকা এবং উত্তর চব্বিশ পরগনার রাজারহাট, মিনাখাঁ, হিঙ্গলগঞ্জ, সন্দেশখালী, হাসনাবাদ, বসিরহাট আকাশপথে ঘুরে দেখেন তিনি।

পরিদর্শন শেষে বসিরহাটে নামে প্রধানমন্ত্রীর হেলিকপ্টার। রাজ্যপাল ও মুখ্যমন্ত্রীও সঙ্গে ছিলেন। বসিরহাট কলেজে প্রশাসনিক বৈঠকে বসে জেলা প্রশাসনের কর্তাদের কাছ থেকে ক্ষয়ক্ষতির বিশদ হিসাব নেন মোদি। পরে তিনি জানান, ত্রাণ ও পুনর্গঠনের জন্য পশ্চিমবঙ্গকে এক হাজার কোটি টাকার প্যাকেজ দেওয়া হবে। আম্ফানে যাদের মৃত্যু হয়েছে তাদের পরিবারকে দুই লাখ টাকা এবং আহতদের ৫০ হাজার টাকা করে দেওয়া হবে বলেও তিনি ঘোষণা করেন এদিন। বসিরহাটে বৈঠক সারার পর প্রধানমন্ত্রী মোদি হেলিকপ্টারে ফেরেন কলকাতা বিমানবন্দরে। সেখান থেকে রওনা হয়ে যান ভুবনেশ্বর, ওড়িশার পরিস্থিতি পরিদর্শনের জন্য। সূত্র : আনন্দবাজার।

মন্তব্য