kalerkantho

রবিবার । ১৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ৩১  মে ২০২০। ৭ শাওয়াল ১৪৪১

‘চীনঘেঁষা’ বলে অভিযোগ

ডাব্লিউএইচওকে অর্থ সাহায্য বন্ধের হুঁশিয়ারি ট্রাম্পের

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৯ এপ্রিল, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



করোনাভাইরাসের সংক্রমণ নিয়ে তাঁদের সতর্ক করেনি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডাব্লিউএইচও)। শুধু তাই নয়, এ নিয়ে ভুল বার্তাও দেওয়া হয়েছে তাঁদের। মঙ্গলবার ডাব্লিউএইচওর বিরুদ্ধে এমনই অভিযোগ তুলেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

এরই মধ্যে করোনাভাইরাসের হানায় যুক্তরাষ্ট্রে মৃত্যু হয়েছে ১২ হাজারেরও বেশি মানুষের। আক্রান্ত হয়েছে চার লাখের ওপর। ট্রাম্পের অভিযোগ, ডাব্লিউএইচও যদি তাঁদের সঠিক বার্তা দিত, তাহলে এত লোকের মৃত্যু হতো না দেশে। কিন্তু তারা সেটা করেনি। তাঁর আরো অভিযোগ, সারা বিশ্বের স্বাস্থ্যসংক্রান্ত বিষয় যাদের দেখার কথা, সেটা না করে চীনের হয়ে কাজ করেছে ডাব্লিউএইচও; যার জেরে সারা বিশ্বে মহামারির আকার নিয়েছে করোনা।

ডাব্লিউএইচওর বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিয়ে ট্রাম্প হুঁশিয়ারি দিয়েছেন, যে অর্থ যুক্তরাষ্ট্র সংস্থাটিকে দেয়, সেই টাকা বন্ধ করে দেওয়া হবে। তিনি বলেন, ‘ডাব্লিউএইচওকে টাকা দেওয়া বন্ধ করব। তারা যে কাজটা করেছে সেটা অত্যন্ত ভুল।’ মঙ্গলবার হোয়াইট হাউসে সাংবাদিকদের ব্রিফিংয়ে এমনটাই বলেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

যুক্তরাষ্ট্র থেকে বিপুল পরিমাণ অর্থ পায় ডাব্লিউএইচও। এ প্রসঙ্গে ট্রাম্প বলেন, ‘ডাব্লিউএইচওকে প্রচুর অর্থ সাহায্য করে আমেরিকা। কিন্তু দেশে যখন ভ্রমণসংক্রান্ত নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিলাম করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে, তারা আমার সমালোচনা করেছিল। আমার এই কাজকে সমর্থন করেনি।’ তাঁর আরো মন্তব্য, ‘অনেক ভুল বার্তা দিয়েছে ডাব্লিউএইচও। অনেক আগে থেকে তারা সব কিছু জানত, কিন্তু সেটা জানায়নি।’ চীনের হয়েই কাজ করেছে ডাব্লিউএইচও—এমন অভিযোগও তুলেছেন ট্রাম্প।

ট্রাম্পের এ অভিযোগ নিয়ে ডাব্লিউএইচওর কোনো মন্তব্য পাওয়া না গেলেও জাতিসংঘের মুখপাত্র স্টিফেন ডুজারিক যুক্তরাষ্ট্রের সমালোচনা উড়িয়ে দিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেসের পক্ষ থেকে বলছি, এটা সুস্পষ্ট যে কভিড-১৯ মোকাবেলায় ড. তেদ্রোস আধানম ঘেব্রিয়েসুসের নেতৃত্বে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা অসাধারণ কাজ করছে। তারা বিভিন্ন দেশে লাখ লাখ সরঞ্জাম সরবরাহ করছে, দেশগুলোকে প্রশিক্ষণ দিচ্ছে, নির্দেশনা দিচ্ছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা আন্তর্জাতিক স্বাস্থ্যব্যবস্থার শক্তি দেখাচ্ছে।’ ডেমোক্রেটিক রিপাবলিক অব কঙ্গোতে এবোলার মতো সংক্রামক ও প্রাণঘাতী রোগ মোকাবেলায় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার কর্মীরা সামনের কাতারে থেকে ‘চমৎকার কাজ করেছেন’ বলেও মন্তব্য করেন জাতিসংঘের এই মুখপাত্র।

এদিকে ট্রাম্পের সঙ্গে গলা মিলিয়ে ডাব্লিউএইচওর বিরুদ্ধে তোপ দেগেছেন মার্কিন সিনেটর তথা সিনেটের ফরেইন রিলেশন কমিটির চেয়ারম্যান জিম রিস্কও। তিনি বলেছেন, ‘করোনাভাইরাস নিয়ে সঠিক সময়ে সঠিক পদক্ষেপ নিতে ব্যর্থ হয়েছে ডাব্লিউএইচও। এর ফলে শুধু আমেরিকার ক্ষতি হয়নি, সারা বিশ্বকে এর ফল ভুগতে হচ্ছে।’ ডাব্লিউএইচওর ডিরেক্টর জেনারেলের বিরুদ্ধে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ তুলেছেন জিম। করোনাভাইরাস নিয়ে রাজনীতি করা হচ্ছে বলেও মত জিমের। এ ব্যাপারে ডাব্লিউএইচওর বিরুদ্ধে নিরপেক্ষ তদন্তের দাবি তুলেছেন তিনি।

আর ট্রাম্পঘনিষ্ঠ সংসদ সদস্য লিন্ডসে গ্রাহাম বলেছেন, সিনেটের পরবর্তী বরাদ্দ বিলে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার জন্য কিছুই রাখা হবে না। ফক্স নিউজকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে রিপাবলিকান এ সিনেটর বলেন, ‘আমি বরাদ্দবিষয়ক সাবকমিটির দায়িত্বে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার এখন যে নেতৃত্ব আছে তাতে প্রতিষ্ঠানটির জন্য অর্থ বরাদ্দে আমি সমর্থন দেব না। তারা প্রবঞ্চক, তারা শ্লথ এবং তারা চীনের হয়ে দালালি করছে।’ সূত্র : রয়টার্স।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা