kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৪ চৈত্র ১৪২৬। ৭ এপ্রিল ২০২০। ১২ শাবান ১৪৪১

বিশ্বের প্রতি এখনই পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান ইমরানের

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন (সিএএ) নিয়ে ভারতের দিল্লিতে পাঁচ দিন ধরে চলা সহিংসতায় হতাহতের যে ঘটনা ঘটছে, তা ঠেকাতে অবিলম্বে পদক্ষেপ গ্রহণে আন্তর্জাতিক অঙ্গনের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।

গতকাল বুধবার এক টুইটার বার্তায় ইমরান লেখেন, ‘আজ আমরা ভারতে দেখতে পাচ্ছি, ১০০ কোটির বেশি জনঅধ্যুষিত পরমাণু শক্তিধর দেশটিকে করায়ত্ত করে ফেলেছে নািস-অনুপ্রাণিত আরএসএস (রাষ্ট্রীয় সেবক সংঘ) মতাদর্শ। ঘৃণার ভিত্তিতে প্রতিষ্ঠিত বর্ণবাদী মতাদর্শ যখন সব কিছু করায়ত্ত করে ফেলে, তখন তা রক্তপাতে গড়ায়।’

ভারতশাসিত জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা কেড়ে নিয়ে সেখানে কেন্দ্রের শাসন জারির প্রসঙ্গ টেনে পাকিস্তানের সরকারপ্রধান টুইটারে আরো লেখেন, ‘ভারত অধিকৃত কাশ্মীরের ঘটনার পরই আমি গত বছর জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে বলেছিলাম, বোতল থেকে দৈত্যটা বেরিয়ে পড়ল। এবার রক্তপাত আরো বাড়বে বলে পূর্বাভাস দিয়েছিলাম, যার সূত্রপাত হয়েছিল কাশ্মীরে। ভারতে থাকা ২০ কোটি মুসলিম এখন লক্ষ্যস্তুতে পরিণত হয়েছে। গোটা বিশ্বকে এখনই এগিয়ে আসতে হবে।’

দিল্লির সহিংসতা যেন পাকিস্তানে প্রভাব না ফেলে, এ ব্যাপারে হুঁশিয়ারি দিয়ে সাবেক ক্রিকেটার ইমরান আরেক টুইটে লেখেন, ‘আমি সবাইকে সতর্ক করে দিতে চাই, পাকিস্তানে যারা অমুসলিমদের ওপর অথবা তাদের উপাসনালয়ের ওপর হামলা করতে উদ্যত হবে, তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। মনে রাখতে হবে, আমাদের সংখ্যালঘুরা দেশের অন্য নাগরিকদের সমান।’

দিল্লিতে চলমান সহিংসতার ব্যাপারে মৌনতা ভেঙে গতকাল ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি টুইট করার কিছুক্ষণের মধ্যে টুইটে এসব কথা বলেন ইমরান। 

দিল্লি পরিস্থিতি নিয়ে আরো বক্তব্য দিয়েছেন পাকিস্তানের পার্লামেন্টের বিরোধীদলীয় নেতা শাহবাজ শরিফ। বিবৃতিতে তিনি বলেছেন, ‘মোদি দিল্লিতে গুজরাটের পুনরাবৃত্তি ঘটাচ্ছেন। মুসলিমদের বিরুদ্ধে সহিংসতা এবং তাঁদের উপাসনালয়ে হামলার বিষয়ে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের নজর দেওয়া উচিত।’

সহিংসতার অবসান ঘটাতে ভারত সরকারের পদক্ষেপ গ্রহণের আহ্বান জানিয়ে তিনি আরো বলেন, সহিংসতায় উসকানিদাতা ও জড়িত সবাইকে যেন গ্রেপ্তার করা হয় এবং ক্ষতিগ্রস্তদের যেন ক্ষতিপূরণ দেওয়া হয়।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের উদ্দেশে শাহবাজ বলেন, ভারত সফরকালে দিল্লির সহিসংতার নিন্দা জানানো উচিত ছিল ট্রাম্পের। সিএএ নিয়ে গত শনিবার রাত থেকে অস্থির দিল্লি। এর মধ্যেই গত সোমবার ও মঙ্গলবার ভারত সফর করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। এ সময় দিল্লির সহিংসতা নিয়ে তিনি কোনো মন্তব্য করেননি। ওই সহিংসতায় পুলিশ ও গোয়েন্দা কর্মকর্তাসহ এরই মধ্যে ২৪ জন নিহত হয়েছে। সূত্র : ডন, এনডিটিভি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা