kalerkantho

বৃহস্পতিবার  । ২৬ চৈত্র ১৪২৬। ৯ এপ্রিল ২০২০। ১৪ শাবান ১৪৪১

মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচন

প্রথম বিতর্কে দাঁড়াতেই পারলেন না ব্লুমবার্গ

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



প্রথম বিতর্কে দাঁড়াতেই পারলেন না ব্লুমবার্গ

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডেমোক্র্যাট শিবির থেকে মনোনয়নপ্রত্যাশী মিডিয়া মুঘল মাইকেল ব্লুমবার্গ গত বুধবার তাঁর প্রথম প্রেসিডেনসিয়াল বিতর্কে অংশ নেন। কিন্তু বাকি বিতার্কিদের বিপরীতে যেন সোজা হয়ে দাঁড়াতেই পারলেন না তিনি। তাঁদের একের পর এক ধারালো যুক্তি আর বাক্যবর্ষণে পর্যুদস্তু ব্লুমবার্গ নিজের ন্যূনতম যোগ্যতা তুলে ধরতেই হিমশিম খেয়েছেন।

গত বুধবার লাস ভেগাসে ডেমোক্র্যাট মনোনয়নপ্রত্যাশীদের বিতর্কে নতুন মুখ ছিলেন ব্লুমবার্গ। তাঁকে আক্রমণ করার বিষয়বস্তুর যেন অভাব ছিল না প্রতিপক্ষের হাতে। অনুষ্ঠানে আসতে তাঁর খানিকটা দেরি হওয়া থেকে শুরু করে নির্বাচনী প্রচারে বিরাট অঙ্কের অর্থ ব্যয়, তাঁর বিপুল সম্পদ—হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহারের জন্য কোনো কিছুই বাদ দেয়নি প্রতিপক্ষ।

সিনেটর এলিজাবেথ ওয়ারেন আক্রমণটা করেছেন এভাবে, ‘বুঝে দেখুন, আমরা যদি এক অহংকারী শত কোটিপতির বিকল্প হিসেবে আরেকজনকেই বেছে নিই, তাহলে সেটা ডেমোক্র্যাটদের জন্য চরম ঝুঁকিপূর্ণ হবে।’ তিনি আরো বলেন, ‘যে লোকের আয়কর গোপন করার ইতিহাস আছে, নারীদের হয়রানি করার ইতিহাস আছে এবং বর্ণবাদী নীতিতে সমর্থন দেওয়ার ইতিহাস আছে, তাঁকে আমরা মনোনয়ন দিলে ডেমোক্র্যাটরা জিততে পারবেন না।’

বার্নি স্যান্ডার্সের আক্রমণের বিষয়বস্তু ছিল ব্লুমবার্গের অঢেল সম্পদ। স্যান্ডার্স বলেন, ‘নিম্ন আয়ের সাড়ে ১২ কোটি আমেরিকানের চেয়ে মাইক ব্লুমবার্গ বেশি সম্পদের মালিক। এটা অনৈতিক।’

ওয়ারেন-স্যান্ডার্সের মতো অভিজ্ঞ রাজনীতিকদের আক্রমণে যেন অনেকটাই নুয়ে পড়েন নিউ ইয়র্কের সাবেক মেয়র ব্লুমবার্গ। সমস্যা সমাধানকারী, ব্যবসায়ী, নগর ব্যবস্থাপক ও লোকহিতৈষী হিসেবে তিনি কতটা যোগ্য, সেগুলো তুলে ধরতে তাঁকে ভীষণ বেগ পেতে হয়েছে। এ ছাড়া সঞ্চালক যখন তাঁর ও প্রতিষ্ঠানের কর্মীদের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানি, তাঁর আয়কর বিবরণী দাখিলে দেরি হওয়াসহ বিভিন্ন বিষয়ে প্রশ্ন করেন, তখনও আত্মরক্ষামূলক অবস্থান নিয়ে টিকে থাকার চেষ্টা করেন ব্লুমবার্গ। একটা পর্যায়ে তিনি কোনো রকমে স্যান্ডার্সকে খানিকটা আক্রমণ করতে সমর্থ হন। তাঁর অভিমত, ডেমোক্র্যাটরা স্বঘোষিত বামপন্থী স্যান্ডার্সকে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে মনোনয়ন দিলে ট্রাম্পই আবার জিতবেন।

যে ট্রাম্পকে নিয়ে ডেমোক্র্যাট মনোনয়নপ্রত্যাশীরা বিতর্কে লিপ্ত হয়েছেন, সেই ট্রাম্প অবশ্য বুধবারের বিতর্কে ব্লুমবার্গের ভূমিকাকে তাচ্ছিল্যভরে উড়িয়ে দিয়েছেন। তিনি টুইট করেছেন, ‘উনি হোঁচট খাচ্ছিলেন, ঠেকে যাচ্ছিলেন। উনি একদম অযোগ্য। এর পরও তিনি যদি প্রতিযোগিতা থেকে বাতিল না হন, তবে কোনো কিছুতেই আর বাতিল হবেন না।’ সূত্র : এএফপি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা