kalerkantho

রবিবার  । ১৫ চৈত্র ১৪২৬। ২৯ মার্চ ২০২০। ৩ শাবান ১৪৪১

ইয়েমেনে গৃহযুদ্ধ

সৌদি জোটের বিমান হামলায় নারী-শিশুসহ নিহত ৩১

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ইয়েমেনে সৌদি নেতৃত্বাধীন জোটের বিমান হামলায় ৩১ জন নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে অন্তত ১২ জন। শনিবার জাতিসংঘ একথা জানিয়েছে। ইরান সমর্থিত হুথি বিদ্রোহীদের গুলিতে সৌদি জোটের একটি বিমান বিধ্বস্ত হওয়ার পর ঘটনার প্রতিশোধ নিতে সৌদি জোট ওই হামলা চালায়।

ইয়েমেনের উত্তরাঞ্চলে আল জাওয়াফ প্রদেশে সরকারি বাহিনীর সমর্থনে গত শুক্রবার একটি টর্নেডো বিমান হামলা চালানোর সময় হুথি বিদ্রোহীদের গুলিতে বিধ্বস্ত হয়।

ইয়েমেনে জাতিসংঘের মানবিক সমন্বয়ক অফিস থেকে বলা হয়েছে, ‘প্রাথমিক তদন্তে দেখা যাচ্ছে, ১৫ ফেব্রুয়ারি ৩১ জন বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় আরো ১২ জন আহত হয়েছে।’ জাতিসংঘের সমন্বয়ক লিসা গ্রান্দে এ বিমান হামলাকে ভয়ংকর বলে উল্লেখ করেছেন। তিনি বলেন, ‘আন্তর্জাতিক মানবিক আইন মতে, বেসামরিক নাগরিকদের রক্ষা করতে সব পক্ষই বাধ্য। এই সংঘাতে সেই দায়িত্ব পালনে উভয় পক্ষই ব্যর্থ। এটা খুবই হতাশাজনক।’

এদিকে বিদ্রোহীরা জানিয়েছে, যে স্থানে বিমানটি বিধ্বস্ত হয়েছে সেখানে জোটবাহিনী বেশ কয়েকবার বিমান হামলা চালিয়েছে। তারা আরো জানিয়েছে, আহত ও নিহতদের মধ্যে বেশির ভাগই নারী ও শিশু। বিদ্রোহীদের মুখপাত্র মোহাম্মদ আব্দেল সালাম টুইটারে জানান, ‘আর জাওয়াফের আকাশে টর্নেডো বিমানের বিধ্বস্ত হওয়ার ঘটনা শত্রুপক্ষের জন্য বড় এক আঘাত। বিদ্রোহীদের প্রতিরক্ষা সামর্থ্য যে বৃদ্ধি পাচ্ছে এর মাধ্যমে তা প্রমাণিত হয়েছে।’

হুথি বিদ্রোহীদের নিয়ন্ত্রিত রাজধানী শহর সানার আশপাশে সংঘাতের পরিমাণ বৃদ্ধি পেয়েছে। বিদ্রোহীরা আল জোউফ-এর আঞ্চলিক রাজধানী হাজমের দিকে বেশ কয়েকটি দিক থেকে এগিয়ে আসছে। আল জোউফের বেশির ভাগ এলাকা হুথি বিদ্রোহীদের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। তবে রাজধানী হাজম এখনো সৌদি সমর্থিত সরকারি বাহিনীর নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

মিডল ইস্ট ইনস্টিটিউটের কর্মকর্তা ফাতিমা আবো অ্যালাসরার বলেন, ‘সংঘাতের শুরুতে হুথি বিদ্রোহীরা বিশৃঙ্খল অবস্থায় ছিল। কিন্তু বর্তমানে তারা ইরানের সহায়তায় তাদের অস্ত্রের ব্যাপক উন্নয়ন করেছে।

সূত্র : এএফপি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা