kalerkantho

বুধবার । ৬ ফাল্গুন ১৪২৬ । ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ২৪ জমাদিউস সানি ১৪৪১

জাতিসংঘে মাহমুদ আব্বাস

ট্রাম্পের ‘সুইস চিজ’ পরিকল্পনায় সমর্থন না দেওয়ার আহ্বান

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ট্রাম্পের ‘সুইস চিজ’ পরিকল্পনায় সমর্থন না দেওয়ার আহ্বান

ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের প্রতি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রণীত মধ্যপ্রাচ্য শান্তি পরিকল্পনাকে সমর্থন না করার আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি বলেন, এ পরিকল্পনা কখনোই স্থায়ী শান্তি প্রতিষ্ঠিত করতে পারবে না।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ফিলিস্তিনের জন্য যে মানচিত্র নির্ধারণ করেছেন সেটি উপস্থাপন করে এ পরিকল্পনাকে ‘সুইস চিজ’ হিসেবে অভিহিত করে আব্বাস বলেন, এই পরিকল্পনা খণ্ড খণ্ডই ফিলিস্তিন তৈরি করবে। যে রাষ্ট্রের নিজের আকাশ, জলসীমা বা পূর্ব জেরুজালেমের ওপর কোনো নিয়ন্ত্রণ থাকবে না। আব্বাস বলেন, ‘আপনাদের মধ্যে কে কে এই পরিকল্পনাকে সমর্থন করেন?’ তিনি সতর্ক করে বলেন, ‘বর্ণবাদী’ পরিস্থিতির জন্ম দেবে এ পরিকল্পনা। তিনি বলেন, ‘আমি ট্রাম্পকে বলতে চাই, তাঁর পরিকল্পনায় শান্তি ও নিরাপত্তা আসবে না। কারণ এতে আন্তর্জাতিক বৈধতা নেই। আপনারা জোর করে শান্তি স্থাপন করতে চাইলেও লাভ হবে না। শান্তি আসবে না। এই পরিকল্পনার কোনো আন্তর্জাতিক অংশীদারত্ব নেই। একটি দেশের তৈরি পরিকল্পনা। আরেকটি দেশ বাস্তবায়ন করবে।’

ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুকে পাশে নিয়ে এই চুক্তি উপস্থাপন করেন ট্রাম্প। ফিলিস্তিন ওই দিনই এই চুক্তি প্রত্যাখ্যান করে। ফিলিস্তিন নিরাপত্তা পরিষদে এর নিন্দা প্রস্তাব তুলতে চেয়েছিল। তবে যুক্তরাষ্ট্রের তীব্র চাপের কারণে তারা শেষ পর্যন্ত ওই উদ্যোগ থেকে পিছিয়ে আসে।

জাতিসংঘে ইসারায়েলি রাষ্ট্রদূত ড্যানি ড্যানন অবশ্য শান্তি প্রক্রিয়ার মূল প্রতিবন্ধক হিসেবে আব্বাসকেই চিহ্নিত করেন। ড্যানন বলেন, ‘তিনি সরে গেলেই ফিলিস্তিন ও ইসরায়েলের মধ্যে শান্তি প্রক্রিয়া এগিয়ে নেওয়া সম্ভব হবে।’ তবে নেতানিয়াহুর পূর্বসূরি এহুদ ওলমার্ট মনে করেন, যেকোনো শান্তি আলোচনায় ফিলিস্তিনি নেতাকে অন্তর্ভুক্ত করতে হবে। আর এ ক্ষেত্রে আব্বাসই উপযুক্ত ব্যক্তি।’ নিউ ইয়র্কে আব্বাসের সঙ্গে সাক্ষাৎ শেষে সাংবাদিকদের সামনে এ কথা বলেন তিনি। যদিও তিনি ইসরায়েল রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে কূটনৈতিক সন্ত্রাস চালাচ্ছেন বলে অভিযোগ করেছেন ড্যানন।

ট্রাম্পের পরিকল্পনা অবশ্য শুধু ফিলিস্তিনিরাই না, আরব লীগ, ওআইসি ও আফ্রিকান ইউনিয়নও প্রত্যাখ্যান করেছে। ফ্রান্স, জার্মানি, বেলজিয়াম, এস্টোনিয়া ও বেলজিয়াম গত মঙ্গলবার এক যৌথ বিবৃতিতে জানায়, মধ্যপ্রাচ্য সংকটের যেকোনো সমাধানই হতে হবে ১৯৬৭ সালের আগের সীমান্ত রেখা অনুসারে। এই বিবৃতিতে বলা হয়, ট্রাম্পের পরিকল্পনা আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত শর্তগুলো বাদ দিয়ে প্রণয়ন করা হয়েছে। সূত্র : এএফপি

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা