kalerkantho

শনিবার । ১০ ফাল্গুন ১৪২৬ । ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ২৮ জমাদিউস সানি ১৪৪১

অমিত শাহের হুঁশিয়ারি

যত প্রতিবাদই হোক, সিএএ থাকবেই

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২২ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন (সিএএ) নিয়ে ভারতজুড়ে প্রতিবাদ-বিক্ষোভ অব্যাহত রয়েছে। কেরালা, পাঞ্জাব বিধানসভায় প্রস্তাব পাস করে এই আইন প্রত্যাহারের দাবি করা হয়েছে। পশ্চিমবঙ্গেও বিধানসভায় সিএএবিরোধী প্রস্তাব পাস করা হবে বলে ঘোষণা দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু এত সব বিরোধিতার মধ্যেই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ ফের স্পষ্ট বলে দিলেন, ‘যত প্রতিবাদই হোক, সিএএ প্রত্যাহার করা হবে না, থাকবেই।’ মমতা, মায়াবতী, অখিলেশদের বিরুদ্ধে মিথ্যা প্রচারের অভিযোগ তুলে বিতর্কেরও আহ্বান জানান অমিত। অনুপ্রবেশ ও সন্ত্রাসবাদে মদদের অভিযোগে কাঠগড়ায় তুলেছেন কংগ্রেসকে।

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন পাস হওয়ার পর সবচেয়ে বেশি অগ্নিগর্ভ প্রতিবাদ হয়েছিল লখনউয়ে। ব্যাপক ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগে উত্তাল হয়ে উঠেছিল উত্তর প্রদেশের রাজধানী শহর। পুলিশের বিরুদ্ধে গুলি চালানোর অভিযোগও উঠেছিল। ওই বিক্ষোভ-আন্দোলন পর্বে উত্তর প্রদেশেই ১৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। সেই লখনউয়ে দাঁড়িয়েই গতকাল মঙ্গলবার অমিত শাহ হুংকার দিলেন, ‘এখানে এবং এখন আমি স্পষ্ট করে বলতে চাই, এই আইন (সিএএ) প্রত্যাহার করা হবে না। যে যত প্রতিবাদই করুন, আমরা বিরোধীদের ভয় পাই না। সিএএ থাকবেই।’

এর পরেই অমিতের নিশানায় কংগ্রেস, উত্তর প্রদেশের দুই সাবেক মুখ্যমন্ত্রী মায়াবতী ও অখিলেশ যাদব এবং বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, মমতা দিদি, মায়াবতীজি, অখিলেশজি, নাগরিকত্ব আইন নিয়ে আপনাদের দেশের যেকোনো প্রান্তে বিতর্কে আহ্বান জানাচ্ছি। আমি হলফ করে বলতে পারি, আপনারা (এই আইনে) এমন কোনো ধারা দেখাতে পারবেন না, যাতে বলা হয়েছে, কারো নাগরিকত্ব কেড়ে নেওয়া হবে।’

সূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা