kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৮ জানুয়ারি ২০২০। ১৪ মাঘ ১৪২৬। ২ জমাদিউস সানি ১৪৪১     

সংবিধান রক্ষার দাবিতে খোলা চিঠি বিশিষ্টজনদের

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৪ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



‘সংশোধিত নাগরিক আইন সংবিধানবিরোধী’—এই দাবিতে সরব গোটা ভারত। এরই মধ্যে সংবিধান রক্ষার দাবিতে একটি খোলা চিঠি লিখলেন অভিনেত্রী শর্মিলা ঠাকুরসহ একদল বিশিষ্ট নাগরিক। চিঠিতে তাঁরা দেশের ৭০তম প্রজাতন্ত্র দিবসের আগে সংবিধানকে আরো একবার খুঁটিয়ে দেখা প্রয়োজন বলে দাবি করেছেন।

চিঠিতে স্বাক্ষর করেন শর্মিলা ঠাকুর, সাবেক বিচারপতি জে চেলমেশ্বর, সাবেক প্রধান নির্বাচন কমিশনার এস ওয়াই কুরেশি, সাবেক সেনা কমান্ডার লেফটেন্যান্ট জেনারেল হরচরণজিৎ পানাগ, চলচ্চিত্র পরিচালক আদুর গোপালকৃষ্ণন, সুরকার টি এম কৃষ্ণ, ইউজিসির সাবেক চেয়ারম্যান সুখদেও থোরাট এবং পরিকল্পনা সমিতির সাবেক সদস্য সইদা হামিদ।

চিঠিতে তাঁরা প্রশ্ন রেখেছেন, সংবিধান কি শুধুই নির্বাচিত সরকারকে ক্ষমতার অপব্যবহারের বৈধতা দেয়? এর সাহায্যে শাসক নাগরিকদের গণতান্ত্রিক অধিকার অবজ্ঞা করার ছাড়পত্র পায়? এটা কি ধর্মগ্রন্থের মতোই পবিত্র গ্রন্থ, যা লেখার পর শুধু তুলে রেখে দেওয়ার জন্য! বোধ হয় তা নয়। বহু শহীদের রক্তে রাঙানো স্বাধীনতাত্তোর দেশকে পথ দেখাতেই রচিত হয়েছিল এই সংবিধান।’

বিশিষ্ট এই নাগরিকরা আরো বলেন, ভারতীয় প্রজাতন্ত্র দিবসের ৭০ বছর পূর্তির আগে সময় এসেছে আমাদের কাজ, সাফল্য, ব্যর্থতাকে আরো একবার ফিরে দেখা। নিজেদের ভুল সংশোধন করা। ড. আম্বেদকর সংবিধান রচনা করেছিলেন স্বাধীন দেশের গণতন্ত্র রক্ষার জন্য। দেশের নাগরিকদের স্বাধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য।

প্রসঙ্গত, এক বছর আগে শীর্ষ আদালতের তদানীন্তন প্রধান বিচারপতির বিরুদ্ধে সংবিধানের অবমাননা নিয়ে মুখ খুলেছিলেন জে চেলামেশ্বরসহ আরো তিন বিচারক। সাবধান করেছিলেন, যেভাবে সংবিধানকে অস্বীকার করা হচ্ছে তাতে ক্ষতির মুখে পড়তে চলেছে ভারতের গণতন্ত্র। সূত্র : এনডিটিভি, আনন্দবাজার পত্রিকা।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা