kalerkantho

শনিবার । ৯ ফাল্গুন ১৪২৬ । ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ২৭ জমাদিউস সানি ১৪৪১

ক্ষেপণাস্ত্রে বিমান বিধ্বস্ত!

প্রমাণ করতে পশ্চিমাদের চ্যালেঞ্জ জানাল ইরান

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১১ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



প্রমাণ করতে পশ্চিমাদের চ্যালেঞ্জ জানাল ইরান

তেহরানে বিমান বিধ্বস্ত হয়ে ১৭৬ জনের প্রাণহানি শুধুই দুর্ঘটনা; নাকি ইরানের ক্ষেপণাস্ত্রে সেটি বিধ্বস্ত হয়েছে, তা নিয়ে বিতর্ক অব্যাহত আছে। কানাডাসহ পশ্চিমাদের অভিযোগ, ইরানের ক্ষেপণাস্ত্রে বিমানটি বিধ্বস্ত হয়েছে। অন্যদিকে ইরান এ অভিযোগ প্রমাণে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছে পশ্চিমাদের।

গত বুধবার ভোরে তেহরান থেকে উড্ডয়নের পর ইউক্রেন এয়ারলাইনসের একটি বোয়িং বিমান বিধ্বস্ত হয়। তাতে ১৭৬ আরোহীর সবাই মৃত্যু হয়। এর মধ্যে ৬৩ জন কানাডার নাগরিক।

গত বৃহস্পতিবার কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো দাবি করেন, একাধিক গোয়েন্দা সূত্রের খবর এটাই ইঙ্গিত করছে যে ইরানের ক্ষেপণাস্ত্রে বিমানটি বিধ্বস্ত হয়েছে। ক্ষেপণাস্ত্রটি ছিল ভূমি থেকে আকাশে নিক্ষেপযোগ্য। তিনি এটাও বলেছেন, ঘটনাটি সম্ভবত অনিচ্ছাকৃত ছিল।

ট্রুডোর এই অভিযোগে সমর্থন জানিয়েছেন পশ্চিমা অনেক নেতাও। তাঁদের মতে, ‘ক্ষেপণাস্ত্রে বিমান বিধ্বস্ত হওয়ার সন্দেহ ক্রমেই জোরালো হচ্ছে। তবে ঘটনাটি সম্ভবত অনিচ্ছাকৃত ছিল।’ যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এরই মধ্যে বলেছেন, মার্কিন গোয়েন্দাদের বিশ্বাস, ইরানের এক বা একাধিক ক্ষেপণাস্ত্রের আঘাতেই বিমানটি বিধ্বস্ত হয়েছে।

অন্যদিকে পশ্চিমাদের এই অভিযোগ প্রমাণে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছে ইরান। কানাডার উদ্দেশে গতকাল তেহরানের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, তারা যেন এ বিষয়ে তথ্য-প্রমাণ সরবরাহ করে। সেই সঙ্গে দুর্ঘটনার তদন্তেও যেন অংশ নেয়। তদন্তে অংশ নিতে বোয়িং কর্তৃপক্ষকে আহ্বান জানানোর পাশাপাশি তেহরান বলেছে, যেসব দেশের নাগরিক নিহত হয়েছে, সেসব দেশের যেকোনো বিশেষজ্ঞ এই তদন্তে অংশ নিতে পারবেন।

গতকাল এক সংবাদ সম্মেলনে ইরানের বেসামরিক বিমান পরিবহন বিভাগের প্রধান আলী আবেদজাদেন বলেছেন, ‘একটা বিষয় নিশ্চিত, কোনো ক্ষেপণাস্ত্রের আঘাতে বিমানটি বিধ্বস্ত হয়নি।’ তিনি আরো বলেন, ‘ব্ল্যাক বক্সের ডাটা বিশ্লেষণের আগে কারো মন্তব্যই গ্রহণযোগ্য হিসেবে বিবেচনা করার সুযোগ নেই।’

ইরানের অভিযোগ, রাজনৈতিক ফায়দা লুটতেই ওয়াশিংটন বিমান দুর্ঘটনা নিয়ে মিথ্যা প্রচারণা চালাচ্ছে। ইরান সরকারের মুখপাত্র আলী রাবিই গতকাল রাষ্ট্রায়ত্ত প্রেস টিভিতে বলেন, ‘ক্ষেপণাস্ত্রের আঘাতে বিমান বিধ্বস্ত হওয়ার অভিযোগ একেবারে ভিত্তিহীন। আর জেনে কিংবা না জেনে যাঁরা যুক্তরাষ্ট্রের অপপ্রচারে সমর্থন দিচ্ছেন, তাঁরা মূলত নিহতদের স্বজনদের অনুভূতির প্রতি অশ্রদ্ধা জানাচ্ছেন।’ সূত্র : এএফপি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা