kalerkantho

সোমবার। ২৭ জানুয়ারি ২০২০। ১৩ মাঘ ১৪২৬। ৩০ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

নাগরিকত্ব বিল নিয়ে আদালতে যাচ্ছে মুসলিম লিগ

কৌশল ঠিক করতে বৈঠকে বসছেন মমতা

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৩ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নাগরিকত্ব বিল নিয়ে আদালতে যাচ্ছে মুসলিম লিগ

ভারতের পার্লামেন্টে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল (সিএবি) পাসের প্রতিবাদে গতকাল কারফিউ অমান্য করে বিক্ষোভ করে আসামের গোয়াহাটির হাজার হাজার মানুষ। বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশ ফাঁকা গুলি ছোড়ে। বিতর্কিত সিএবি পাস হওয়াকে কেন্দ্র করে উত্তাল আসামের পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে বুধবারই সেখানে কারফিউ জারি করা হয়। ছবি : এএফপি

সংসদে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল (সিএবি) পাস হওয়ার ২৪ ঘণ্টার ভেতর তা নিয়ে আইনি লড়াই শুরুর হুঁশিয়ারি দিল ইন্ডিয়ান ইউনিয়ন মুসলিম লিগ (আইইউএমএল)। এবার ওই বিলের বিরোধিতা করে সুপ্রিম কোর্টে আবেদন করতে চলেছে আইইউএমএল।

সিএবি নিয়ে আইইউএমএলের তরফে শেষ পর্যন্ত শীর্ষ আদালতে রিট পিটিশন দাখিল করা হলে তা হবে ওই বিলের বিরুদ্ধে প্রথম আইনি যুদ্ধ। যদিও সংসদে সিএবি পাস হলে তা নিয়ে আইনি লড়াই শুরু করার হুঁশিয়ারি আগেই দিয়েছিল আইইউএমএল। ওই দলটির নেতাদের অভিযোগ, সংবিধানে উল্লিখিত সমানাধিকারের বিরুদ্ধে ওই বিল।

এদিকে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। মমতা বলেছিলেন, কেন্দ্র গোটা দেশের জন্য এনআরসি তৈরির কথা বললেও পশ্চিমবঙ্গে তা করতে দেবেন না এবং নাগরিকত্ব আইন সংশোধন হলেও বাংলায় তার প্রয়োগ রুখবেন। রাজ্যসভায় নাগরিকত্ব বিল পাসের আগে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত ফের স্পষ্ট করেন, কোনো রাজ্য বাদ যাবে না। রাজ্যসভায় বিজেপি সমর্থিত সংসদ সদস্য স্বপন দাশগুপ্তের এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি জানান, পশ্চিমবঙ্গসহ গোটা দেশে এই আইন প্রয়োগ করা হবে।

নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের প্রতিবাদে পশ্চিমবঙ্গসহ দেশজুড়ে প্রতিবাদ আন্দোলন ছড়িয়ে দিতে চায় তৃণমূল কংগ্রেস। সেই লক্ষ্যেই দলীয় কৌশল নির্ধারণ করতে নিজের দলের সংসদ সদস্য এবং বিধায়কদের নিয়ে বিশেষ বৈঠকে বসছেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

তৃণমূলের এক নেতা জানান, বাংলায় এনআরসি এবং নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল প্রয়োগের বিরোধিতা করার জন্যে কিভাবে এগোবে দল, সে বিষয়ে নীতিনির্ধারণ তথা দলীয় কৌশল ঠিক করতেই ওই বৈঠক ডাকা হয়েছে। তৃণমূলের সব শীর্ষস্থানীয় নেতা এবং দলের সংসদ সদস্য-বিধায়কদের ওই বৈঠকে আবশ্যিকভাবে উপস্থিত থাকার বিষয়ে নির্দেশ দিয়েছেন দলনেত্রী। তৃণমূল নেত্রী আগামী ২০ ডিসেম্বর ওই জরুরি বৈঠক আহ্বান করেছেন। জেলা সভাপতি, দলীয় সংসদ সদস্য এবং বিধায়কসহ সব শীর্ষস্থানীয় নেতাকে ওই বৈঠকে অবশ্যই উপস্থিত থাকতে বলা হয়েছে। নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের কৌশল অবলম্বন করতেই ওই বৈঠক, বলেন ওই তৃণমূল নেতা। সূত্র : আনন্দবাজার।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা