kalerkantho

মঙ্গলবার । ১০ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১২ রবিউস সানি     

জোটের সাত দশক

বিতণ্ডায় শুরু ন্যাটো সম্মেলন

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৪ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বিতণ্ডায় শুরু ন্যাটো সম্মেলন

উত্তর আটলান্টিক দেশগুলোর সামরিক জোটের (ন্যাটো) ৭০ বছর পূর্তির সম্মেলনে যোগ দেওয়ার আগেই তুরস্ক জানিয়ে দিয়েছে, তাদের দাবি পূরণ না হলে জোটের সব প্রস্তাবের বিরোধিতা করবে তারা। ফ্রান্স তো অনেক আগেই ন্যাটোকে ‘মৃতপ্রায়’ অ্যাখ্যা দিয়েছে। আর গতকাল মঙ্গলবার সম্মেলন শুরুর আগে ফ্রান্সের সেই মন্তব্যের সমালোচনা করতে ছাড়েনি যুক্তরাষ্ট্র।

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধোত্তর হুমকি মোকাবেলায় যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বে প্রতিষ্ঠিত হয় বিশ্বের অন্যতম সামরিক জোট ন্যাটো। প্রতিষ্ঠার সাত দশকের মাথায় জোটের কার্যকারিতা ও প্রয়োজনীয়তা, সেই সঙ্গে জোটের সদস্যদের ব্যয়ের অঙ্ক নিয়ে উঠেছে নানা প্রশ্ন।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রেসিডেন্সি গ্রহণের শুরুতেই ন্যাটোর কার্যকারিতাকে প্রশ্নবিদ্ধ করেন। জোটের জন্য সদস্যদের সামরিক ব্যয় যথেষ্ট নয়, এমন অভিযোগ উত্থাপনের পাশাপাশি জোটকে ‘সেকেলে’ অ্যাখ্যা দিতেও ছাড়েননি তিনি। এ ছাড়া গত মাসের শুরুর দিকে ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাখোঁ ন্যাটোকে ‘মৃতপ্রায়’ অ্যাখ্যা দেন। এর ধারাবাহিকতায় গতকাল থেকে লন্ডনে শুরু হওয়া ন্যাটোর দুই দিনব্যাপী সম্মেলনকে ঘিরে বাদানুবাদ চরমে উঠেছে।

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়িপ এরদোয়ান লন্ডনের উদ্দেশে আংকারা ছাড়ার আগে জানিয়েছেন, যেসব কুর্দি গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে তুরস্ক লড়াই করছে, সেসব গোষ্ঠীকে ‘সন্ত্রাসী’ অ্যাখ্যা না দিলে ন্যাটোর কোনো পরিকল্পনায় তিনি সায় দেবেন না। এমনকি রাশিয়ার হামলার পরিপ্রেক্ষিতে বাল্টিক দেশগুলোর প্রতিরক্ষাব্যবস্থা নিয়ে ন্যাটো যে পরিকল্পনা করছে, তাতেও তুরস্ক অনুমোদন দেবে না বলে হুমকি দিয়েছেন এরদোয়ান।

তুরস্ক গত অক্টোবর থেকে সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলে কুর্দিবিরোধী অভিযান চালাচ্ছে। তুরস্কের ভেতরে কুর্দিবিরোধী অভিযান চলছে আরো আগে থেকেই। এর পরিপ্রেক্ষিতে এরদোয়ান বলেন, ‘আমরা যাদের সন্ত্রাসী গোষ্ঠী মনে করি, তাদেরকে যদি আমাদের ন্যাটোর বন্ধুরা সন্ত্রাসী গোষ্ঠী অ্যাখ্যা না দেয়, তবে আমরা জোটের সম্মেলনে গৃহীত যেকোনো পদক্ষেপের বিরোধিতা করব।’

পরবর্তী বক্তব্য আসে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের পক্ষ থেকে। ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ম্যাখোঁ গত মাসে ন্যাটোকে ‘মৃতপ্রায়’ বলেছিলেন। গতকাল সেটারই তীব্র সমালোচনা করেন ট্রাম্প। লন্ডনে ন্যাটোর মহাসচিব জেন্স স্টোল্টেনবার্গের সঙ্গে এক সংবাদ সম্মেলনে অংশ নিয়ে তিনি ম্যাখোঁর মন্তব্যকে ‘অত্যন্ত নোংরা’ বলে উল্লেখ করেন। তিনি আরো বলেন, ‘আমাদের ন্যাটো সম্পর্কে এ রকম মন্তব্য করে আপনি পার পেয়ে যেতে পারেন না।’ ম্যাখোঁর মন্তব্য ‘অত্যন্ত অপমানজনক’ উল্লেখ করে তিনি আরো বলেন, ‘অন্য সবার চেয়ে ফ্রান্সের কাছে ন্যাটোর প্রয়োজনীয়তা সবচেয়ে বেশি। ওই মন্তব্য করা তাদের জন্যই খুব বিপজ্জনক।’ জোট থেকে ফ্রান্সের বিদায়ের হুঁশিয়ারিও দেন ট্রাম্প।

ন্যাটোর ব্যাপারে ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের লিখিত বক্তব্য অবশ্য আগেভাগেই প্রকাশ করা হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, ন্যাটোকে ইতিহাসের সবচেয়ে টেকসই ও সফল জোট মনে করেন জনসন। তাঁর ধারণা, নতুন নতুন সব হুমকি মোকাবেলার ক্ষেত্রে জোটের সফলতা অব্যাহত থাকবে। সূত্র : এএফপি, বিবিসি।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা