kalerkantho

শুক্রবার । ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯। ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ৮ রবিউস সানি ১৪৪১     

‘ইউক্রেন তত্ত্ব ট্রাম্পই ছড়িয়েছেন’

অভিশংসন তদন্ত

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৩ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



‘ইউক্রেন তত্ত্ব ট্রাম্পই ছড়িয়েছেন’

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প তাঁর জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তাদের পরামর্শ উপেক্ষা করে ব্যক্তিগত আইনজীবীর নসিহত অনুযায়ী ২০১৬ সালের নির্বাচনে ইউক্রেনের হস্তক্ষেপের বিষয়টি ছড়িয়েছেন। যা সত্য ছিল না। ট্রাম্পের বিরুদ্ধে চলমান অভিশংসন তদন্তে সাক্ষ্য দিতে গিয়ে এমন দাবি করেছেন হোয়াইট হাউসের সাবেক সহকারী ফিওনা হিল। তাঁর দাবি, প্রেসিডেন্ট তাঁর ব্যক্তিগত আইনজীবী রুডি গিলিয়ানির কথামতো কাজ করেছেন।

হিল গত বৃহস্পতিবার সাক্ষ্য দিতে হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভসের গোয়েন্দা কমিটির সামনে হাজির হন। এ সময় তিনি বলেন, ইউক্রেন ২০১৬ সালের নির্বাচনে ডেমোক্রেটিক পার্টির পক্ষে কাজ করেছে বলে যে প্রচার রয়েছে তা ‘কল্পনাপ্রসূত’। ট্রাম্প তাঁর রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে ধরাশায়ী করার জন্য ইউক্রেনের সহায়তা বন্ধ করে দিয়েছেন কি না, তা জানতেই এই তদন্ত পরিচালনা করা হচ্ছে। যুক্তরাষ্ট্রে নির্বাচনী ফায়দা হাসিলের জন্য বিদেশি রাষ্ট্রের সাহায্য নেওয়া বৈধ নয়। ট্রাম্প অবশ্য ভুল কিছু করেননি বলে দাবি করে আসছেন শুরু থেকেই।

গত ২৫ জুলাই এক ফোনালাপে ট্রাম্প ইউক্রেনের প্রেসিডেন্টকে ডেমোক্রেটিক পার্টির সম্ভাব্য প্রার্থী জো বাইডেনের ছেলের বিরুদ্ধে তদন্ত করার জন্য চাপ দেন। অভিযোগ রয়েছে, তদন্ত শুরু করা না হলে ইউক্রেনকে দেওয়া যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক সহায়তা বন্ধ করে দেওয়া হবে বলে চাপ দেন ট্রাম্প।

চলমান তদন্তে শুনানির গত বৃহস্পতিবার ছিল পঞ্চম ও শেষ দিন। এই দিনের শুনানির পর কমিটির প্রধান ডেমোক্র্যাট অ্যাডাম স্কিফ বলেন, সত্তরের দশকে সাবেক প্রেসিডেন্ট রিচার্ড নিক্সনের বিরুদ্ধে ওয়াটারগেট কেলেঙ্কারিতে যে অভিযোগ উঠেছিল, ট্রাম্পের বিরুদ্ধে আসা অভিযোগ এর চেয়েও অনেক গুরুতর। ট্রাম্প যুদ্ধরত এক মিত্র দেশকে সামরিক সহায়তা বন্ধ করে দিয়েছেন।

হোয়াইট হাউসের রাশিয়াবিষয়ক বিশেষজ্ঞ ছিলেন হিল। তিনি বলেন, ‘আপনাদের মধ্যে কেউ কেউ হয়তো বিশ্বাস করতে শুরু করেছেন, নির্বাচনী প্রচারে রাশিয়া নয় ইউক্রেন হস্তক্ষেপ করেছিল।’ তিনি দাবি করেন, এটা রাজনৈতিক কারণে রচিত মিথ্যা। এ সময় তাঁকে প্রশ্ন করা হয়, আপনি বলতে চান, ‘প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প তাঁর জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তাদের পরামর্শ বাদ দিয়ে গিলিয়ানির কথা শুনেছেন?’ হিল ‘হ্যাঁসূচক’ জবাব দেন।

এ ছাড়া ইউরোপীয় ইউনিয়নে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত গর্ডন সন্ডল্যান্ড সম্পর্কে হিল বলেন, ‘তিনি কোথায় কী বৈঠক করেছেন সে সম্পর্কে আমাদের কিছু জানানো হতো না।’ ট্রাম্পের ঘনিষ্ঠ সন্ডল্যান্ড ইউক্রেন ইস্যুতে মুখ্য ভূমিকা পালন করেন বলে অভিযোগ রয়েছে।

ইউক্রেনে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত ডেভিড হোমসও গত বৃহস্পতিবার সাক্ষ্য দেন। তিনি বলেন, ইউক্রেন কূটনীতিতে গিলিয়ানি প্রত্যক্ষ ভূমিকা পালন করেন। তিনি আরো জানান, গত ১৮ জুলাই হোয়াইট হাউসের কর্মকর্তারা তাঁকে জানান, প্রেসিডেন্টের নির্দেশে ইউক্রেনের সামরিক সহায়তা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। সূত্র : বিবিসি।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা