kalerkantho

শনিবার । ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৬ রবিউস সানি               

ইরানকে সৌদি বাদশাহ

‘আগ্রাসী নীতি’ পরিহার করতে হবে

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২২ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সৌদি বাদশাহ সালমান গত বুধবার ইরানের প্রতি ‘আগ্রাসী নীতি’ থেকে সরে আসার আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি বলেন, ইরানের এই মনোভাব তাদের জনগণের জন্যই ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। সৌদি বাদশাহ এমন একসময় শত্রুপক্ষের প্রতি এ আহ্বান জানালেন, যখন শিয়াপ্রধান দেশটিতে জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধি নিয়ে তীব্র আন্দোলন চলছে।

বাদশাহ সালমানকে উদ্ধৃত করে সৌদি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায়, ‘আমরা আশা করি, ইরান সরকার পরিণত আচরণ করবে। তারা উপলব্ধি করবে, আগ্রাসী ও বিধ্বংসী ভাবনা না ছাড়লে তাদের প্রতি আন্তর্জাতিক অবস্থানে কোনো পরিবর্তন আসবে না। ইরানের এই আচরণের কারণে তাদের জনগণ ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে।’ শুধু ইরানের নয়, বরং ইরানের মদদপুষ্ট যেসব গোষ্ঠী বিভিন্ন দেশে ছায়াযুদ্ধ চালিয়ে যাচ্ছে তাদের নীতি ও কর্মকাণ্ডও ইরানি জনগণের জন্য ক্ষতিকর বলে মন্তব্য করেছেন সৌদি বাদশাহ।

সুন্নিপ্রধান সৌদি আরব বরাবরই অভিযোগ করে আসছে, ইরান মধ্যপ্রাচ্যে শিয়া আন্দোলনগুলোয় মদদ দিচ্ছে এবং এর মাধ্যমে গোটা অঞ্চলের অস্থিতিশীলতায় ইন্ধন জোগাচ্ছে। ইরান অবশ্য এসব অভিযোগ সব সময়ই অস্বীকার করে এসেছে। উল্টো সৌদি সরকারের বিরুদ্ধে ইসলামী মৌলবাদীদের প্রতি সমর্থন দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে তাদের।

পাল্টাপাল্টি অভিযোগের মধ্যে দেশ দুটি নিজেদের প্রভাব বিস্তারে ব্যস্ত। সেই সঙ্গে তাদের অভ্যন্তরীণ ইস্যুও সামাল দিতে হচ্ছে। এই যেমন, ইরান সরকার এখন জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির বিরুদ্ধে চলমান আন্দোলন সামলাতে ব্যস্ত। সরকার জ্বালানি তেলের মূল্য ২০০ শতাংশ পর্যন্ত বাড়ানোর ঘোষণা দেওয়ায় গত শুক্রবার থেকে ইরানে সহিংস আন্দোলন চলছে। আন্দোলনের তীব্রতা বাড়তে থাকায় গত শনিবার রাত থেকে ইন্টারনেট সংযোগ বিচ্ছিন্ন রাখা হয়েছে। সূত্র : এএফপি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা