kalerkantho

শুক্রবার । ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯। ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ৮ রবিউস সানি ১৪৪১     

সাক্ষ্য দেবেন ট্রাম্প!

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২০ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সাক্ষ্য দেবেন ট্রাম্প!

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প নিজ স্বার্থ উদ্ধারে যুক্তরাষ্ট্রকে ব্যবহার করেছেন—এমন এক অভিযোগে তাঁকে অভিশংসন প্রক্রিয়ার মোকাবেলা করতে হবে কি না, তা নিয়ে তদন্ত চলছে প্রায় দুই মাস ধরে। গত সোমবার প্রেসিডেন্ট জানিয়েছেন, এ তদন্তে সাক্ষ্য দেওয়ার বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করছেন তিনি। এ ব্যাপারে যে চ্যালেঞ্জ কিছুদিন আগে হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভসের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি তাঁকে জানিয়েছেন তা তিনি গ্রহণ করতে চান।

যদিও আইনি ঝুঁকির কারণেই ট্রাম্পের হাউসের গোয়েন্দা কমিটির সামনে সাক্ষ্য দেওয়ার সম্ভাবনা ক্ষীণ। কিছুদিন আগে এক বিবৃতিতে পেলোসি ‘সত্য’ জানার জন্য ট্রাম্পকে শুনানিতে আমন্ত্রণ জানান। পরে দেওয়া আরেক বিবৃতিতে হাউসের স্পিকার বলেন, ‘নিজের ব্যক্তিগত ও রাজনৈতিক সুবিধার জন্য  প্রেসিডেন্ট তাঁর ক্ষমতা ব্যবহার করেছেন। আর এর জন্য যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তাকে হুমকির মুখে ঠেলে দেওয়া হয়েছে।’

এক টুইট বার্তায় সোমবার ট্রাম্প বলেন, পেলোসি চান ফোনালাপ নিয়ে যে ‘ডাইনি খোঁজা (উইচ হান্ট) চলছে তাতে আমি সাক্ষ্য দিই। তিনি বলেছেন, আমি লিখেও কাজটি করতে পারব।’ ট্রাম্প জানান, তিনি গুরুত্বের সঙ্গে বিষয়টি বিবেচনা করছেন। ‘আমি জানি, আমি কোনো ভুল করিনি এবং এই অযাচিত প্রক্রিয়াকে আমি স্বীকৃতি দিতে চাই না। তবে এই বিষয়টি আমার পছন্দ হয়েছে। কংগ্রেসকে আবার সক্রিয় করার জন্য আমি কাজটি করতে চাই। ’

এর আগেও যুক্তরাষ্ট্রের আগেরবারের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে এবং ট্রাম্পের নির্বাচিত হওয়ার পেছনে রাশিয়ার হাত আছে বলে একটি তদন্তে লিখিতভাবে প্রশ্নের জবাব দেন ট্রাম্প। সেবার তিনি সশরীরে হাজির হয়ে প্রশ্নের জবাব দিতে চাননি।

ট্রাম্পের সাক্ষ্য দেওয়ার বিষয়টি অবশ্য বেশ ঝুঁকিপূর্ণ। ডেমোক্রেটিক শিবির মনে করে, পেলোসির আহ্বান এড়াতে কৌশল নিচ্ছেন ট্রাম্প। তবে সাক্ষ্য দেওয়ার বিষয়টি যে এবারই প্রথম ঘটছে, এমন নয়। এর আগেও ১৯৯৮ সালে বিল ক্লিনটন ভিডিওতে কংগ্রেসের সামনে চার ঘণ্টার জিজ্ঞাসাবাদের মোকাবেলা করেন। সেবার হাউসে ক্লিনটনকে অভিশংসন করার পক্ষে সিদ্ধান্ত পাস হয়। সিনেটে গিয়ে তা আটকে যায়।

সূত্র : এএফপি। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা