kalerkantho

রবিবার । ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯। ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৭ রবিউস সানি                    

অস্থিরতায় অচলপ্রায় বলিভিয়া

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৯ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বলিভিয়ার প্রশাসনিক রাজধানী লা পাজে গাড়ি মেরামতের (সার্ভিসিং) একটি দোকানে গত তিনটি রাত কাটিয়ে দিয়েছেন ৭২ বছর বয়সী ট্যাক্সিচালক কার্লোস লারা। গ্যাস না থাকায় এই তিন দিন গাড়ি নিয়ে রাস্তায় নামতে পারেননি তিনি। সময় কাটছে রেডিও শুনে কিংবা অন্য চালকদের সঙ্গে গল্পগুজব করে। শিগগিরই গ্যাস সরবরাহ স্বাভাবিক হবে, এই আশায় আছেন লারার মতো হাজারো ট্যাক্সিচালক।

রাজনৈতিক অস্থিরতায় প্রায় অচল হয়ে পড়েছে বলিভিয়ার রাজধানী লা পাজ। গাড়ি চালানোর গ্যাস নেই, খাবার নেই, দোকানপাটসহ খুলছে না অনেক সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান—সব মিলিয়ে জীবনযাপন নিয়ে এক অনিশ্চয়তার মধ্যে পড়ে গেছে দেশটির লাখ লাখ মানুষ।

গত সপ্তাহে বামপন্থী প্রেসিডেন্ট ইভো মোরালেসের পদত্যাগের পর থেকে চলছে এ পরিস্থিতি। নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগে আন্দোলন শুরু হলে গত রবিবার পদত্যাগ করেন ১৪ বছর ক্ষমতায় থাকা মোরালেস। দেশ ছেড়ে ৬০ বছর বয়সী এই নেতা মেক্সিকোতে রাজনৈতি আশ্রয় নিলেও তাঁর সমর্থকরা বিভিন্ন শহরে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করছে। সহিংসতার ঘটনাও ঘটছে কোথাও কোথাও। সবেচেয় বেশি সহিংসতা হয়েছে মোরালেসের শক্ত ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত কোচাবাম্বা শহরে। সেখানে পুলিশের সঙ্গে মোরালেস সমর্থকদের সংঘর্ষে এ পর্যন্ত ৯ জনের মৃত্যু হয়েছে।

গত সপ্তাহে এল আলতো শহর থেকে লা পাজে যাওয়ার প্রধান সড়কটি বন্ধ করে দেয় বিক্ষোভকারীরা। সর্বশেষ তারা বন্ধ করে দিয়েছে লা পাজ থেকে  সান্তা ক্রুজে যাওয়ার সড়ক। পণ্য পরিবহনের ক্ষেত্রে এ সড়কটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। বিক্ষোভকারীরা বন্ধ করে দিয়েছে এল আতোর নিকটবর্তী ‘সানকেতা’ গ্যাস সংশোধনাগারও। সানকেতা থেকেই পুরো লা পাজ এলাকায় গ্যাস সরবরাহ করা হয়। সূত্র : এএফপি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা