kalerkantho

শুক্রবার । ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯। ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ৮ রবিউস সানি ১৪৪১     

আফগানিস্তানে হত্যার অভিযোগ প্রমাণিত

যুদ্ধাপরাধের দায় থেকে দুজনকে অব্যাহতি দিলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৭ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প গত শুক্রবার দুই সেনা সদস্যকে যুদ্ধাপরাধের দায় থেকে অব্যাহতি দিয়েছেন। দায়মুক্তিপ্রাপ্তরা হলেন সেনাবাহিনীর ফার্স্ট লেফটেন্যান্ট ক্লিন্ট লরেন্স ও সেনাবাহিনীর এলিট ফোর্স গ্রিন বেরেটসের সাবেক সদস্য ম্যাট গোলেস্টিন। এ ছাড়া নৌবাহিনীর সদস্য এডওয়ার্ড গালাঘারের পদমর্যাদা ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছে।

২০১২ সালে আফগানিস্তানে মোটরসাইকেল আরোহী তিন বেসামরিক নাগরিককে গুলি করেছিলেন ক্লিন্ট লরেন্স। এতে দুজনের মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় লরেন্সের বিরুদ্ধে সেকেন্ড ডিগ্রি মার্ডারের অভিযোগ গঠন করা হয়। পরে তাঁর ১৯ বছরের জেল হয়। এরই মধ্যে তিনি ছয় বছর সাজা খেটেছেন।

হোয়াইট হাউস এক বিবৃতিতে বলেছে, লরেন্সের দায়মুক্তির বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের অনেকেই সহানুভূতিশীল ছিলেন। তাঁর মুক্তির বিষয়ে হোয়াইট হাউস বরাবর পাঠানো পিটিশনে স্বাক্ষর করেছেন এক লাখ ২৪ হাজার জন। তা ছাড়া কংগ্রেসের অনেকেই তাঁর দায়মুক্তি চাইছিলেন।

ম্যাট গোলেস্টিনের বিরুদ্ধে অভিযোগ, তিনি ২০১০ সালে তালেবান বোমা কারিগরকে পূর্বপরিকল্পিতভাবে হত্যা করেন। তাঁকে অব্যাহতি দিয়ে টুইটারে ট্রাম্প লিখেছেন, যুক্তরাষ্ট্রের প্রকৃত নায়ক হচ্ছেন গোলেস্টিন, অথচ তাঁকে মৃত্যুদণ্ডের মুখোমুখি করা হচ্ছিল।

আর নৌ সদস্য গালাঘারের বিরুদ্ধে অভিযোগ, তিনি ইরাকে আহত এক কিশোর আইএস সদস্যকে ছুরিকাঘাত করে হত্যা করেছেন। এ ছাড়া বেসামরিক নাগরিকদের হত্যার অভিযোগ আছে তাঁর বিরুদ্ধে। গত জুলাইয়ে গালাঘারের বিরুদ্ধে ওঠা গুরুতর সব অভিযোগ খারিজ হয়ে যায়। তবে এক বিদ্রোহীর লাশের ছবিতে অন্য সহকর্মীদের সঙ্গে পোজ দেওয়ার অভিযোগ তাঁর বিরুদ্ধে ছিল।

ট্রাম্প বলেন, ‘অভিনন্দন নৌ সদস্য গালাঘার, তাঁর গুণী স্ত্রী আন্দ্রিয়া ও পরিবারের সদস্যদের। এখন থেকে তাঁরা সুখে বসবাস করতে পারবেন। গালাঘারকে সাহায্য করতে পেরে আমি গর্বিত।’ সূত্র : এএফপি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা