kalerkantho

শুক্রবার । ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯। ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ৮ রবিউস সানি ১৪৪১     

মোরালেস বললেন

আমাকে ছাড়া নির্বাচন হলেও সমস্যা নেই

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৭ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আমাকে ছাড়া নির্বাচন হলেও সমস্যা নেই

বলিভিয়ার ক্ষমতাচ্যুত প্রেসিডেন্ট ইভো মোরালেস বলেছেন, দেশে গণতন্ত্রের স্বার্থে তাঁকে বাদ দিয়ে কোনো নির্বাচন হলেও তাতে তাঁর কোনো ‘সমস্যা নেই’। বামপন্থী এ নেতার এমন অবস্থান দেশটিতে জিনাইন আনিয়েজ নেতৃত্বাধীন অন্তর্বর্তী সরকার ও মোরালেসের মুভমেন্ট ফর সোশ্যালিজম (এমএএস) দলের মধ্যে বিরোধ মেটাতে ভূমিকা রাখতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

বিতর্কিত এক নির্বাচনের ফল নিয়ে বিক্ষোভ-সহিংসতার জেরে সেনাবাহিনী মোরালেসকে পদত্যাগ করতে বললে আদিবাসী এ নেতা তাতে সাড়া দিয়ে মেক্সিকোতে রাজনৈতিক আশ্রয় নেন। তাঁর এ পদত্যাগ প্রত্যাখ্যান ও সিনেটের অনুমোদন ছাড়া আনিয়েজের নিজেকে ‘অন্তর্বর্তী প্রেসিডেন্ট’ ঘোষণার প্রতিবাদে মঙ্গলবার থেকেই রাজধানী লা পাজ ও বলিভিয়ার বিভিন্ন শহরে মোরালেস সমর্থকরা অবস্থান নিয়ে আছে।

এমএএস নেতৃত্বাধীন সিনেট মোরালেসের পদত্যাগপত্র এখনো গ্রহণ না করায় বামপন্থী এ নেতা কার্যত এখনো দেশটির প্রেসিডেন্ট পদেই আছেন। মেক্সিকোতে রয়টার্সকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনিও সে কথাই বলেছেন। ‘গণতন্ত্রের স্বার্থে, তারা যদি আমাকে নির্বাচনে দেখতে না চায়, আমার কোনো সমস্যা নেই। আমি শুধু বিস্মিত হচ্ছি, ইভোকে নিয়ে তাদের এত ভয় কেন?’ প্রশ্ন বলিভিয়ার প্রথম এ আদিবাসী প্রেসিডেন্টের। তাঁর এ পদত্যাগকে কেন্দ্র করে লাতিনজুড়ে নতুন অস্থিরতা সৃষ্টি হতে পারে বলেও পর্যবেক্ষকদের অনেকেই আশঙ্কা করছেন।

সাক্ষাৎকারে মোরালেস তাঁর দলের সঙ্গে বিরোধীদের আলোচনাকে স্বাগত জানিয়ে বলেছেন, বলিভিয়ার সংবিধান অক্ষুণ্ন রাখতে হলে আগামী জানুয়ারির মধ্যেই দেশটিকে একজন নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ও সরকার বেছে নিতে হবে। ‘এ কারণেই ডান ও বামদের মধ্যে আলোচনা খুবই গুরুত্বপূর্ণ’, বলেছেন তিনি। তনি প্রার্থী না হলে, তাঁর দল কাকে বেছে নেবে এর উত্তরে ৬০ বছর বয়সী মোরালেস বলেন, ‘জানি না। জনগণই বেছে নিক।’

বলিভিয়ার সংখ্যাগরিষ্ঠ আদিবাসী জনগণের মধ্য থেকে উঠে আসা এ প্রেসিডেন্টের হাত ধরেই গত দেড় দশকে বলিভিয়ার অর্থনীতিতে প্রভূত উন্নতি হয়েছে; লাতিনের অন্যতম দরিদ্র দেশ থেকে পরিণত হয়েছে সম্ভাবনাময় দেশে।

মোরালেস বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্রের মদদেই বলিভিয়ায় তাঁকে ক্ষমতাচ্যুত করা হয়েছে। সহিংসতা এড়াতেই তিনি পদত্যাগপত্রে স্বাক্ষর করেছেন। মেক্সিকোর পাশাপাশি যুক্তরাষ্ট্রও তাঁর জন্য বিমান পাঠাতে প্রস্তাব দিয়েছিল বলেও জানান সাবেক এই কোকা চাষি। সূত্র : রয়টার্স।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা