kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৪ নভেম্বর ২০১৯। ২৯ কার্তিক ১৪২৬। ১৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

হোয়াইট হাউসের স্বীকারোক্তি

রাজনৈতিক স্বার্থে ইউক্রেনে সহায়তা আটকান ট্রাম্প

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৯ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



রাজনৈতিক স্বার্থে ইউক্রেনে সহায়তা আটকান ট্রাম্প

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প রাজনৈতিক উদ্দেশ্য সাধনের জন্যই ইউক্রেনকে দেওয়া সামরিক সহায়তা স্থগিত করেছিলেন বলে স্বীকার করেছেন তাঁর ভারপ্রাপ্ত চিফ অব স্টাফ মিক মুলভানে। সেই সঙ্গে তিনি আরো দাবি করেন, রাজনৈতিক প্রতিদ্বন্দ্বী জো বাইডেনকে কোণঠাসা করার উদ্দেশ্যে নয়, বরং বিগত মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রাশিয়ার হস্তক্ষেপসংক্রান্ত অভিযোগের রহস্য উন্মোচনের উদ্দেশ্যে ট্রাম্প ওই সহায়তা স্থগিত করেছেন।

মুলভানে গত বৃহস্পতিবার সাংবাদিকদের জানান, ইউক্রেনকে দেওয়া মার্কিন সামরিক সহায়তা গত জুলাইয়ে স্থগিত করেছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প, সেটা সত্যি। প্রেসিডেন্টের এ পদক্ষেপের উদ্দেশ্য সম্পর্কে তিনি জানান, যুক্তরাষ্ট্রের ২০১৬ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ট্রাম্পকে জেতাতে রাশিয়ার হাত ছিল, এমন অভিযোগের পেছনের কাহিনি লুকিয়ে রেখেছে ডেমোক্রেটিক ন্যাশনাল কমিটি (ডিএনসি) এবং সেটা লুকানো আছে ইউক্রেনে কোনো এক কম্পিউটার সার্ভারে। সেই সার্ভার রহস্য উন্মোচনে ইউক্রেনকে তদন্ত শুরুতে বাধ্য করতে ট্রাম্প ৪০ কোটি ডলারের সামরিক সহায়তা স্থগিত করেন। বলা দরকার, গত মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ট্রাম্পকে জেতাতে রাশিয়া নয়, বরং ইউক্রেন হস্তক্ষেপ করেছিল এবং সেই তথ্য ইউক্রেনে লুকানো কম্পিউটার সার্ভারে সংরক্ষিত আছে বলে গুঞ্জন রয়েছে।

মুলভানে আরো দাবি করেন, ট্রাম্প কখনোই চাননি ‘চরম দুর্নীতিগ্রস্ত ইউক্রেনে’ বিপুল অঙ্কের সামরিক সহায়তা পাঠানো হোক এবং সেই অর্থে দুর্নীতিগ্রস্তদের পকেট ভারী হোক। এ ব্যাপারে হোয়াইট হাউসের এ কর্মকর্তা বলেন, ‘ডিএনসি সার্ভারসংশ্লিষ্ট দুর্নীতির কথা তিনি (ট্রাম্প) কি আগে আমাকে বলেছেন? অবশ্যই। এ ব্যাপারে কোনো সন্দেহের অবকাশ নেই। এই হলো ব্যাপার এবং এ কারণেই আমরা অর্থ আটকে দিয়েছি।’ গত নির্বাচনে রাশিয়ার হস্তক্ষেপ ইস্যুতে মার্কিন বিচার বিভাগ যে তদন্ত চালাচ্ছে, সেটার সঙ্গেও প্রেসিডেন্টের ইউক্রেনসংক্রান্ত সিদ্ধান্তের সম্পর্ক আছে বলে দাবি করেন তিনি। বিচার বিভাগ অবশ্য এ ব্যাপারে কিছু জানে না বলে জানিয়েছে।

ইউক্রেনে সামরিক সহায়তা স্থগিতের সঙ্গে জো বাইডেন ইস্যুর সম্পর্ক নেই, এমন দাবিও করেন হোয়াইট হাউসের কর্মকর্তা মুলভানে। আগামী প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে সম্ভাব্য প্রতিদ্বন্দ্বী বাইডেনকে ঘায়েল করার লক্ষ্যে তাঁর বিরুদ্ধে তদন্ত শুরুর জন্য ইউক্রেনকে বাধ্য করতে সামরিক সহায়তা স্থগিত করেছেন ট্রাম্প, এমন অভিযোগে কংগ্রেসের হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভে তাঁর বিরুদ্ধে তদন্ত চলছে। প্রেসিডেন্টকে অভিশংসিত করার লক্ষ্যে হাউসে চলমান জোরালো তদন্তের মধ্যে মুলভানের এসব বক্তব্য এলো।

গত বৃহস্পতিবার হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভে ট্রাম্পবিরোধী তদন্তে আরো অগ্রগতি হয়। এদিন তদন্তকারী ডেমোক্র্যাটদের কাছে নিজের বক্তব্য তুলে ধরেন ইউরোপীয় ইউনিয়নে (ইইউ) নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত গর্ডন সন্ডল্যান্ড। না বললেই নয়, প্রেসিডেন্ট হিসেবে ট্রাম্পের অভিষেক অনুষ্ঠান উপলক্ষে ১০ লাখ ডলার অনুদান দেওয়ার পর তিনি ইইউর রাষ্ট্রদূতের দায়িত্ব পান। গত বৃহস্পতিবার তিনি হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভে উপস্থাপিত লিখিত বক্তব্যে জানান, ইউক্রেন ইস্যুতে ট্রাম্পের ব্যক্তিগত আইনজীবী রুডি গিলিয়ানির কার্যক্রমের পেছনে ট্রাম্পেরই নির্দেশনা ছিল বলে তিনি মনে করেন। তিনি বলেন, ‘আমাদের অভিমত হলো, ইউক্রেন ইস্যুতে যুক্তরাষ্ট্রের সব ধরনের পররাষ্ট্রনীতিসংক্রান্ত দায়িত্ব স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় নারী ও পুরুষদের, প্রেসিডেন্টের ব্যক্তিগত আইনজীবীর নয়।’ সন্ডল্যান্ড হলেন হাউসে অভিশংসন তদন্তে সাক্ষ্য দেওয়া অষ্টম ব্যক্তি।

পদত্যাগ করছেন জ্বালানিমন্ত্রী : প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প জানিয়েছেন, তাঁর জ্বালানিমন্ত্রী রিক পেরি পদত্যাগ করছেন। পেরি কয়েক মাস ধরে পদত্যাগের পরিকল্পনা করছেন বলে প্রেসিডেন্টের দাবি। ট্রাম্পের এ ঘোষণার আগের দিন সংবাদমাধ্যমে পেরির একটি সাক্ষাৎকার প্রকাশিত হয়। সাক্ষাৎকারে পেরি জানান, ইউক্রেন ইস্যুতে গিলিয়ারির সঙ্গে তাঁর কথা হয়েছিল। সূত্র : এএফপি, বিবিসি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা