kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৪ নভেম্বর ২০১৯। ২৯ কার্তিক ১৪২৬। ১৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

স্পিকারকে অপদস্থ করতে গিয়ে নাস্তানাবুদ ট্রাম্প!

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৮ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



স্পিকারকে অপদস্থ করতে গিয়ে নাস্তানাবুদ ট্রাম্প!

মার্কিন কংগ্রেসের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসিকে অপদস্থ করতে গিয়ে টুইটারে একটি ছবি পোস্ট করেছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। সেই ছবিকেই টুইটারে নিজের কাভার ফটো করে পাল্টা জবাব দিয়েছেন স্পিকার। শুধু তাই নয়, ডেমোক্র্যাট নেত্রীর সমর্থকরা এখন সেই ছবি ভাইরাল করে পাল্টা ট্রাম্পকেই নাস্তানাবুদ করার চেষ্টা করছে।

সিরিয়ার উত্তরাঞ্চল থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের বিষয় নিয়ে গত বুধবার হোয়াইট হাউসে ট্রাম্পের সঙ্গে বৈঠক করেন স্পিকার পেলোসির নেতৃত্বাধীন কংগ্রেসের ডেমোক্র্যাট সদস্যরা। বৈঠকে সেনা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্তের কারণে রাশিয়াকে সুযোগ দেওয়ার অভিযোগ তুলে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের তীব্র সমালোচনা করেন ডেমোক্র্যাটরা। ট্রাম্পও এ সমালোচনা প্রত্যাখ্যান করে বলেন, তুরস্কের সঙ্গে বিরোধ মীমাংসায় রাশিয়া যদি সিরিয়াকে সহায়তা করে, তাহলে তিনি কিছু মনে করবেন না। তিক্ততাপূর্ণ এ বৈঠকের একপর্যায়ে ট্রাম্প স্পিকারকে ‘তৃতীয় শ্রেণির রাজনীতিবিদ’ বলে কটাক্ষ করেন।

এই তিক্ততার সূত্র ধরে বৈঠকের পরপরই ন্যান্সিকে অপদস্থ করতে টুইটারে একের পর এক পোস্ট করতে থাকেন ট্রাম্প। হোয়াইট হাউস থেকে বের হতে না হতেই ট্রাম্প বৈঠকে অংশ নেওয়া পেলোসির ছবি পোস্ট করেন, যাতে দেখা যায় স্পিকার প্রেসিডেন্টের সামনে আঙুল উঁচিয়ে দাঁড়িয়ে আছেন। তখন প্রেসিডেন্টসহ অন্য সবাই বসে ছিলেন। ট্রাম্প এ ছবির ক্যাপশন দেন ‘নার্ভাস ন্যান্সির ভারসাম্যহীন ঢলে পড়া’। একটু পরেই আরেকটি পোস্টে ন্যান্সির মানসিক চিকিৎসার প্রয়োজন বলে খোঁচা দিয়ে প্রেসিডেন্ট লেখেন, ‘তিনি আজ হোয়াইট হাউসে একেবারেই বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছিলেন। এটা দেখা ছিল খুবই বেদনাদায়ক। তাঁর জন্য দোয়া করুন। তিনি খুবই অসুস্থ ব্যক্তি।’

তবে ন্যান্সি পেলোসি এ ছবি দেখে মর্মাহত হওয়া দূরে থাক, তিনি উল্টো ছবিটিকে টুইটার ব্যানার (কাভার ফটো) হিসেবে ব্যবহার করেন। আর দ্রুতই তাঁর সমর্থকরা ছবিটিকে ‘ট্রাম্পের সমানে মুখোমুখি দাঁড়ানের’ বীরত্ব হিসেবে তুলে ধরে ভাইরাল করতে থাকে। এ বিষয়ে ডেমোক্র্যাট সিনেটর অ্যামি ক্লোবোচার টুইটারে ছবিটি পোস্ট করে লিখেছেন, ‘একজন নারী কি ট্রাম্পকে মারতে পারেন? হ্যাঁ, স্পিকার পেলোসি প্রতিদিন তা-ই করে যাচ্ছেন।’ তাঁর ডেপুটি চিফ অব স্টাফ ড্রু হামিল বলেন, ‘নতুন কাভার ফটোর জন্য ধন্যবাদ।’ অভিনেত্রী মিয়া ফারো লিখেছেন, ‘আপনার আঘাতে একজন পুরুষ বিব্রত, আমরা বুঝতে পারছি।’ শুধু টুইটারে নয়, হোয়াইট হাউস থেকে বের হয়ে সাংবাদিকদের পেলোসি বলেন, ‘তাঁর স্বাস্থ্যের (ট্রাম্পের) জন্য আমাদের প্রার্থনা করা উচিত। কারণ প্রেসিডেন্টের দিক থেকে এটা ছিল মারাত্মক ভেঙে পড়া।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা