kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৪ নভেম্বর ২০১৯। ২৯ কার্তিক ১৪২৬। ১৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

এখনো কার্যকর না হওয়া ব্রেক্সিটের আদ্যোপান্ত

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৮ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



এখনো কার্যকর না হওয়া ব্রেক্সিটের আদ্যোপান্ত

ব্রেক্সিট কার্যকরে চতুর্থ দফার চেষ্টা সফল হবে কি না, তা নিয়ে দোলাচলের মধ্যে দেখে নেওয়া যাক, এ প্রক্রিয়ার শুরু থেকে বর্তমান অবস্থা।

ব্রিটিশরা ২০১৬ সালের ২৩ জুন গণভোটের মাধ্যমে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) ত্যাগ তথা ব্রেক্সিটের পক্ষে রায় দেয়। গণভোটের আয়োজক তৎকালীন ব্রেক্সিটবিরোধী প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন এ ঘটনার পর পদত্যাগ করেন। তাঁর স্থলাভিষিক্ত হন টেরেসা মে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রিত্ব ছেড়ে ২০১৬ সালের ১৩ জুলাই প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব নেন মে। ইইউর একক বাজারব্যবস্থা থেকে বেরিয়ে যাওয়ার নীতি নির্ধারণ করে তিনি পরের বছর ১৭ জানুয়ারি ব্রেক্সিটের পথে পা বাড়ান। ওই বছর ২৯ মার্চ ব্রিটিশ সরকার ইইউকে চিঠি দিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে ব্রেক্সিট প্রক্রিয়া শুরু করে। তখন থেকে শুরু করে দুই বছরের মধ্যে ব্রেক্সিট সম্পন্ন করার বাধ্যবাধকতা নিয়ে কাজ চালাতে থাকেন মে।

ব্রেক্সিট আলোচনায় গতি আনার কৌশল হিসেবে মে ২০১৭ সালের ৮ জুন আগাম নির্বাচন করেন। ওই নির্বাচনের তাঁর কনজারভেটিভ পার্টি পার্লামেন্টে সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারায় এবং উত্তর আয়ারল্যান্ডের ডেমোক্রেটিক ইউনিয়নিস্ট পার্টির (ডিইউপি) সঙ্গে জোট বেঁধে সরকার গঠন করে।

এরপর মের নেতৃত্বে সর্বপ্রথম ২০১৮ সালের ১৩ নভেম্বর ইইউ-ব্রিটেনের মধ্যে ব্রেক্সিট চুক্তির খসড়া নিয়ে সমঝোতা হয় এবং ২৫ নভেম্বর ইইউ নেতারা ওই চুক্তিতে অনুমোদন দেন। কিন্তু ব্রিটিশ পার্লামেন্টে সেটি অনুমোদন পায়নি। শুধু একবার নয়, তিনবার চেষ্টা করেও ব্রেক্সিট চুক্তি ব্রিটিশ পার্লামেন্টে পাস করাতে পারেননি মে। ফলে তিন দফা ব্রেক্সিট পিছিয়ে যায়। এ অবস্থায় চলতি বছর ৭ জুন তিনি ক্ষমতা থেকে সরে যান।

গত ২৩ জুলাই মের স্থলাভিষিক্ত হন বরিস জনসন। আগামী ৩১ অক্টোবরের মধ্যে ব্রেক্সিট কার্যকরে বদ্ধ পরিকর এ নেতা বলেছিলেন, দরকার হলে চুক্তি ছাড়াই তিনি ইইউ ছেড়ে আসবেন। তবে অন্য ব্রেক্সিটপন্থীদের তোপের মুখে তিনি ইইউর সঙ্গে চুক্তি করার সর্বোচ্চ চেষ্টা চালান এবং গত বুধবার এ ব্যাপারে ব্রিটেন-ইইউ সমঝোতা হয়। জনসন যেন কোনোভাবেই চুক্তিবিহীন ব্রেক্সিটের পথে অগ্রসর হতে না পারেন, সে জন্য আইন পাস করেছে ব্রিটিশ পার্লামেন্ট।

গতকাল বৃহস্পতিবার থেকে ব্রাসেলসে শুরু হওয়া ইউরোপীয় কমিশনের (ইসি) দুই দিনব্যাপী সম্মেলনে ব্রেক্সিট চুক্তির খসড়া উপস্থাপনের কথা। সেখানে চুক্তিটি পাস হলে আগামীকাল শনিবার তা ব্রিটিশ পার্লামেন্টে উপস্থাপন করা হবে। সর্বশেষ এ বাধা পেরোতে পারলে জনসন আগামী ৩১ অক্টোবরের মধ্যে ব্রেক্সিট কার্যকর করতে পারবেন বলে আশা করা হচ্ছে। সূত্র : এএফপি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা