kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৯ নভেম্বর ২০১৯। ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২১ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

সিরিয়া-তুর্কি বাহিনী মুখোমুখি হচ্ছে!

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৫ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সিরিয়া-তুর্কি বাহিনী মুখোমুখি হচ্ছে!

ছবি ইন্টারনেট

সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলে কুর্দিদের ওপর তুরস্কের হামলা ঠেকাতে গতকাল সোমবার সীমান্তে সেনা পাঠিয়েছে সিরিয়া সরকার। এর আগের দিন রবিবার কুর্দিদের সহায়তায় সিরিয়া সরকারের একটি চুক্তি স্বাক্ষর হওয়ার কথা জানিয়েছে সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলের কুর্দি প্রশাসন। এর ফলে আইএসবিরোধী মার্কিন মিত্র কুর্দিরা এবার ভিড়ল সিরিয়া সরকারের শিবিরে।

অন্যদিকে কুর্দি বাহিনীর ওপর তুর্কি হামলা তীব্র হওয়ার মধ্যেই গত রবিবার মার্কিন সামরিক সদর দপ্তর পেন্টাগন জানিয়েছে, প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প সিরিয়া উত্তরাঞ্চলে মোতায়েনকৃত মার্কিন সেনাসংখ্যা এক হাজার পর্যন্ত প্রত্যাহার করে নিতে। গতকাল তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়িপ এরদোয়ান এ ঘোষণাকে স্বাগত জানিয়েছেন।

গতকাল সিরিয়ার রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, চুক্তি স্বাক্ষরের কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই দেশটির উত্তরাঞ্চলে সিরিয়ার সরকারি বাহিনীর সদস্যরা পৌঁছতে শুরু করেছে। তারা এরই মধ্যে তুর্কি সীমান্তবর্তী আইন ইশা ও তাল তামের এলাকায় পৌঁছে গেছে।

সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলে তুর্কি সীমান্ত থেকে কুর্দি যোদ্ধাদের সরাতে এবং সেখানে এক ‘নিরাপদ অঞ্চল’ গঠন করতে গত বুধবার থেকে ওই অঞ্চলে হামলা শুরু করেছে তুর্কি বাহিনী। কুর্দি নেতৃত্বাধীন সিরিয়ান ডেমোক্রেটিক ফোর্সেসের এসডিএফ) নিয়ন্ত্রণে থাকা অঞ্চলটিতে একের পর এক বোমা নিক্ষেপ করে যাচ্ছে তুর্কি বিমানবাহিনী।

কুর্দি প্রশাসন গত রবিবার ফেসবুক পেজে এক বিবৃতিতে জানায়, এই (তুর্কি) আগ্রাসান প্রতিরোধ ও মোকাবেলা করার জন্য সিরিয়ার সরকারের সঙ্গে একটি চুক্তিতে পৌঁছানো গেছে। এর মাধ্যমে সিরিয়ান ডেমোক্রেটিক ফোর্সেসকে সহায়তা করতে সিরীয় সেনাবাহিনী উত্তরাঞ্চলে সেনা মোতায়েন করতে পারবে। 

তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়িপ এরদোয়ান গতকাল সাংবাদিকদের বলেছেন, সিরিয়ার উত্তরাঞ্চল থেকে এক হাজার সেনা প্রত্যাহারের মার্কিন সিদ্ধান্ত তুরস্ক স্বাগত জানাচ্ছে। তিনি বলেন, এটি একটি ইতিবাচক অবস্থান।  সূত্র : এএফপি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা