kalerkantho

রবিবার । ২০ অক্টোবর ২০১৯। ৪ কাতির্ক ১৪২৬। ২০ সফর ১৪৪১                

উত্তর কোরিয়ার ক্ষোভ

ধৈর্যের সীমা আছে

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১১ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কোরীয় উপদ্বীপে পরমাণু নিরস্ত্রীকরণ নিয়ে আলোচনায় যুক্তরাষ্ট্রকে দৃষ্টিভঙ্গি বদলাতে অনুরোধ জানিয়েছে উত্তর কোরিয়া। তাদের ভাষায়, ‘আমাদের ধৈর্য অসীম নয়।’ ওয়াশিংটনের আস্থা অর্জনে এত দিন যেসব পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছিল, পিয়ংইয়ং চাইলে তার উল্টো পদক্ষেপ নিতে পারে বলেও সতর্ক করেছে তারা।

গতকাল বৃহস্পতিবার উত্তর কোরিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক মুখপাত্রের বিবৃতিতে এসব বলা হয়েছে। দেশটির রাষ্ট্রনিয়ন্ত্রিত বার্তা সংস্থা কেসিএনএ জানিয়েছে, জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ সম্প্রতি উত্তর কোরিয়াকে অস্ত্র কর্মসূচি বিসর্জনের যে আহ্বান জানিয়েছে মুখপাত্র তারও সমালোচনা করেছেন। নিরাপত্তা পরিষদ যুক্তরাষ্ট্রের সাম্প্রতিক ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষারও নিন্দা জানিয়েছে।

গত মঙ্গলবার পরিষদের পাঁচ ইউরোপীয় দেশের এক বৈঠকে উত্তর কোরিয়াকে তাদের পারমাণবিক অস্ত্র ও ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচি ‘পূর্ণাঙ্গ, যাচাইযোগ্য ও অপরিবর্তনীয় উপায়ে’ বিসর্জনে সুনির্দিষ্ট পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছিল। পিয়ংইয়ং সাবমেরিন থেকে ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়ার সফল পরীক্ষা চালানোর কয়েক দিন পর দেশগুলো এ আহ্বান জানাল।

পর্যবেক্ষকরা বলছেন, ২০১৮ সাল থেকে যুক্তরাষ্ট্র ও উত্তর কোরিয়া পরমাণু নিরস্ত্রীকরণ নিয়ে আলোচনা শুরু করলেও উভয় পক্ষের অনমনীয় অবস্থানের কারণে তা এখনো কোনো সুনির্দিষ্ট রূপ পায়নি। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে উত্তর কোরিয়ার শীর্ষ নেতা কিম জং উনের সিঙ্গাপুর বৈঠকের পর এশিয়ার দেশটি তাদের কয়েকটি ক্ষেপণাস্ত্র ও রকেট উৎক্ষেপণ কেন্দ্র ধ্বংসও করে। দুই পক্ষের মধ্যে বেশ কয়েক দফা বৈঠক হওয়ার পরও উত্তর কোরিয়ার ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার নিয়ে দুই দেশের অনড় অবস্থানের কারণে আলোচনা ফলপ্রসূ হচ্ছে না।

উত্তর কোরিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক মুখপাত্র বলেন, ‘ধৈর্যের সীমা আছে এবং আমাদের এ সংযত ভাব অনির্দিষ্টকালের জন্য চালাতে হবে, এমন কোনো আইন নেই।’ জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ উত্তর কোরিয়ার আত্মরক্ষার অধিকারে হস্তক্ষেপ করছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি। সূত্র : রয়টার্স।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা