kalerkantho

রবিবার । ১৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ৩১  মে ২০২০। ৭ শাওয়াল ১৪৪১

যুক্তরাষ্ট্র এবার সরে যাচ্ছে মুক্ত আকাশ চুক্তি থেকে

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১০ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ট্রাম্প প্রশাসন এবার ‘খোলা আকাশ চুক্তি’ থেকে যুক্তরাষ্ট্রকে প্রত্যাহার করে নেওয়ার ঘোষণা দিতে যাচ্ছে। শিগগিরই চুক্তিটি থেকে বের হয়ে যাওয়ার পরিকল্পনা ঘোষণা করা হবে বলে সিএনএনকে জানিয়েছেন এক মার্কিন কর্মকর্তা। বিশ্বে অস্ত্র নিয়ন্ত্রণের এটিকে কার্যকর চুক্তি মনে করা হয়। ডেমোক্র্যাট আইন প্রণেতারা এ উদ্যোগের নিন্দা জানিয়ে বলেছেন, এটা হবে রাশিয়াকে ট্রাম্প প্রশাসনের আরেকটি উপহার।

১৯৯২ সালে ‘ওপেন স্কাইজ ট্রিটি’ বা খোলা আকাশ চুক্তিটি স্বাক্ষরিত হয়েছিল। ৩৪টি দেশের এ চুক্তিটি কার্যকর হয় ২০০২ সালের ১ জানুয়ারি। এর আওয়তায় কোনো দেশের অস্ত্রহীন নজরদারি বিমান চুক্তিভুক্ত দেশগুলোর আকাশে বিনা বাধায় উড়তে পারে। এর ফলে মার্কিন সামরিক বাহিনী রাশিয়া ও চুক্তিভুক্ত দেশগুলোতে আকাশ থেকে নজরদারির সুযোগ পায়।

মার্কিন প্রতিরক্ষা হুমকি হ্রাস সংস্থার (ইউএস ডিফেন্স থ্রেট রিডাকশন এজেন্সি) মতে, বিদ্যমান অস্ত্র নিয়ন্ত্রণ চুক্তিগুলো দেখভাল (ভেরিফাই) করতে এ চুক্তিটি কাজে লাগানো হয়। যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তরের মতে, সামরিক তৎপরতা সংক্রান্ত উদ্বেগের বিষয়ে আকাশ থেকে তথ্য সংগ্রহের জন্য পারস্পরিক সমঝোতার ভিত্তিতে এ চুক্তি করা হয়েছে। এই চুক্তি থেকে যুক্তরাষ্ট্রকে প্রত্যাহার করে নেওয়া হলে এটা হবে ট্রাম্প প্রশাসনের আরেকটি প্রধান চুক্তি ত্যাগ করা। ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত হওয়ার বছরেই ২০১৭ সালের ১ জুন প্যারিস জলবায়ু চুক্তি, ২০১৮ সালে ইরানের সঙ্গে ছয় জাতির পরমাণু চুক্তি এবং চলতি বছরের ২ ফেব্রুয়ারি রাশিয়ার সঙ্গে মাঝারি পাল্লার পরমাণু শক্তিচুক্তি (ক্ষেপণাস্ত্র চুক্তি হিসেবে পরিচিত) বাতিল করে ট্রাম্প প্রশাসন।

বিশ্লেষকদের আশঙ্কা, মস্কোর সঙ্গে নতুন ও বিপজ্জনক অস্ত্র প্রতিযোগিতা এগিয়ে নিতেই ট্রাম্প প্রশাসন এ উদ্যোগ নিয়েছে। সিএনএন জানিয়েছে, ইউরোপে রাশিয়াকে মোকাবেলা করতে মার্কিন সামরিক বাহিনী ভ্রাম্যমাণ অ-পরমাণু ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার আয়োজন সম্পন্ন করেছে। এই খবরে পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও ও প্রতিরক্ষামন্ত্রী মার্ক এসপারকে যৌথভাবে চিঠি দিয়েছে কংগ্রেসের পররাষ্ট্রবিষয়ক কমিটি ও সশস্ত্র বাহিনী বিষয়ক কমিটি এবং সিনেট সশস্ত্র বাহিনী ও সিনেট পররাষ্ট্র সম্পর্ক বিষয়ক কমিটি। চিঠিতে ডেমোক্রেটিক পার্টির শীর্ষ আইন প্রণেতারা বলেন, এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ বহুজাতিক অস্ত্র নিয়ন্ত্রণ চুক্তি। এটা থেকে বের হয়ে আসার অর্থ হলো রাশিয়াকে ট্রাম্প প্রশাসনের আরেকটি উপহার দেওয়া। পরে মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তর এক বিবৃতিতে বলেছে, এই চুক্তি সম্পর্কে ডেমোক্র্যাট আইন প্রণেতাদের চিঠি সম্পর্কে তারা অবগত আছে। সূত্র : সিএনএন।

 

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা