kalerkantho

রবিবার । ২০ অক্টোবর ২০১৯। ৪ কাতির্ক ১৪২৬। ২০ সফর ১৪৪১                

সংক্ষিপ্ত

সরকারি কার্যক্রম কিটো থেকে স্থানান্তর

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৯ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ১ মিনিটে



ইকুয়েডরের প্রেসিডেন্ট লেনিন মোরেনো দেশটির সরকারের সব কার্যক্রম সাময়িকভাবে রাজধানী কিটো থেকে সরিয়ে বন্দর নগরী উয়াজাকিলে নিয়ে গেছেন। জ্বালানি তেলের ভর্তুকি বাতিলের প্রতিবাদে শুরু হওয়া আন্দোলনের মুখে গত সোমবার টেলিভিশনে দেওয়া এক ভাষণে তিনি নিজের এ সিদ্ধান্তের কথা জানান। এ সময় তিনি জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধিতে বন্ধ করতে সরকার কোনো ব্যবস্থা নেবে না বলেও স্পষ্ট জানিয়ে দেন। লেনিন মোরেনো জানান, চলমান এ বিক্ষোভ সরকারবিরোধীদের অভ্যুত্থানচেষ্টা। তিনি আরো বলেন, ইকুয়েডরের এবারের বিক্ষোভ ‘সরকারের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে সামাজিক অসন্তোষের বহিঃপ্রকাশ নয়। বরং লুটপাট, ভাঙচুর ও সহিংসতা দেখে এটি বোঝা যাচ্ছে যে এর পেছনে রাজনৈতিক উদ্দেশ্য রয়েছে। যার মাধ্যমে সরকারের স্থিতিশীলতা নষ্ট এবং সাংবিধানিক ও গণতান্ত্রিক ব্যবস্থার ওপর আঘাত হানার চেষ্টা করা হচ্ছে।’ লেনিন মোরেনো অভিযোগ করে বলেন, বিক্ষোভের মাধ্যমে ইকুয়েডরকে ‘অস্থিতিশীল করে তোলার পরিকল্পনার’ পেছনে সাবেক প্রেসিডেন্ট রাফায়েল করেয়া এবং ভেনিজুয়েলার প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরের ইন্ধন রয়েছে।

সূত্র : বিবিসি।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা