kalerkantho

শনিবার । ১৬ নভেম্বর ২০১৯। ১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

ট্রাম্প আসার পর থেকে সম্পর্কের ক্রমাবনতি

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ট্রাম্প আসার পর থেকে সম্পর্কের ক্রমাবনতি

তেহরান ও ওয়াশিংটনের মধ্যে সম্পর্কের দ্বন্দ্ব বেশ পুরনো। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ক্ষমতায় আসার পর থেকে এ দ্বন্দ্ব আরো জটিল রূপ নিয়েছে।

ক্ষমতায় আসার মাত্র এক মাস পর ২০১৭ সালের ২১ মে ট্রাম্প মধ্যপ্রাচ্যের শীর্ষস্থানীয় নেতাদের উদ্দেশে ইরানকে একঘরে করার জন্য একজোট হয়ে কাজ করার আহ্বান জানান। একই বছরের ১৯ সেপ্টেম্বর জাতিসংঘের উদ্দেশে তিনি বলেন, সমৃদ্ধ ইতিহাস-সংস্কৃতির অধিকারী ও সম্পদশালী দেশ থেকে ইরান অর্থনৈতিক দিক থেকে কপর্দকহীন ও দুর্বৃত্ত দেশে পরিণত হচ্ছে।

গত বছরের মে মাসে ইরানের পরমাণু চুক্তি থেকে যুক্তরাষ্ট্রকে বের করে আনেন ট্রাম্প। ওই বছরের আগস্টে আর্থিক লেনদেন, কাঁচামাল আমদানি, গাড়ি বেচাকেনা ও বিমানবিষয়ক বিভিন্ন খাতে ইরানের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে যুক্তরাষ্ট্র। এরপর নভেম্বর মাসে দ্বিতীয় দফায় আরো নানা নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয় দেশটির ওপর।

চলতি বছরের মে মাসে উপসাগরে তেলের ট্যাংকারে হামলা এবং এসংক্রান্ত অন্তর্ঘাতের ঘটনায় যুক্তরাষ্ট্র ইরানকে দায়ী করলে দুই দেশের মধ্যে সম্পর্কের আরো অবনতি ঘটে। তবে ইরান এসব অভিযোগ অস্বীকার করেছে। এর এক মাস পর গত ২০ জুন ইরান জানায়, তারা তাদের দেশের আকাশসীমায় গোয়েন্দাগিরির জন্য যুক্তরাষ্ট্রের পাঠানো একটি ড্রোন ভূপাতিত করেছে। তবে মানবশূন্য ওই ড্রোন তাদের পাঠানো নয় বলে দাবি করে যুক্তরাষ্ট্র। এ ঘটনার শোধ নিতে পরের দিনই ইরানে আঘাত হানার অনুমোদন দেন ট্রাম্প, যদিও শেষ মুহূর্তে তা বাতিল করা হয়। কিন্তু কয়েক দিন পর ট্রাম্প ইরানের শীর্ষস্থানীয় নেতা আয়াতুল্লাহ আলী খামেনি এবং দেশটির জ্যেষ্ঠ সেনা কর্মকর্তাদের  ওপর কঠোর আর্থিক নিষেধাজ্ঞা জারির নির্দেশ দেন। 

এরপর গত ১৮ জুলাই ট্রাম্প দাবি করেন, ইরানের একটি ড্রোন বিপজ্জনকভাবে হরমুজ প্রণালিতে মার্কিন নৌবহরের খুব কাছাকাছি চলে আসায় সেটিকে ভূপাতিত করা হয়েছে। তবে ইরান দাবি করে, তারা কোনো ড্রোন সেখানে পাঠায়নি। এর কিছুদিন পর চলতি মাসের ৩ তারিখ ইরানের মহাকাশ প্রকল্পের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে। এরপর গত ৭ সেপ্টেম্বর ইরান জানায়, তারা তাদের ইউরেনিয়ামের মজুদ বাড়াতে কাজ করছে। সূত্র : এএফপি।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা