kalerkantho

শুক্রবার । ২২ নভেম্বর ২০১৯। ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

যেকোনো পরিস্থিতির জন্য প্রস্তুত : ইরান

সৌদি আরবে আরো সেনা পাঠাবে যুক্তরাষ্ট্র

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



সৌদি আরবে আরো সেনা পাঠাবে যুক্তরাষ্ট্র

মেজর জেনারেল হোসেইন সালামি

সৌদি আরবের দুটি তেল স্থাপনায় ড্রোন হামলার পর সেখানে আরো সেনা পাঠানোর ঘোষণা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। গত শুক্রবার ওয়াশিংটন জানায়, সৌদি আরবের অনুরোধের ভিত্তিতেই প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প সেখানে সেনা পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। এ সিদ্ধান্ত নেওয়ার কয়েক ঘণ্টা আগে ইরানের ওপর নতুন করে নিষেধাজ্ঞা আরোপের ঘোষণাও দেন ট্রাম্প। অন্যদিকে তেহরান বলেছে, ইরানে যারা হামলা চালাবে, তাদের দেশ যুদ্ধক্ষেত্রে পরিণত হবে।

গত ১৪ সেপ্টেম্বর সৌদি আরবের ‘আবকাইক’ ও ‘খুরাইস’ নামের দুটি তেল স্থাপনায় ড্রোন হামলা হয়। তাত্ক্ষণিকভাবে হামলার দায় স্বীকার করে ইয়েমেনের ইরান সমর্থিত হুতি বিদ্রোহীরা। তবে যুক্তরাষ্ট্র ও সৌদি আরবের বিশ্বাস, হামলায় ইরানের হাত রয়েছে। এ ছাড়া তেলক্ষেত্রে হামলার ঘটনায় মধ্যপ্রাচ্যে নতুন করে রাজনৈতিক অস্থিরতা তৈরি হয়।

এ অবস্থায় গতকাল সৌদি আরবে সেনা মোতায়েনের ঘোষণা দেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষামন্ত্রী মার্ক এসপার। শুক্রবার তিনি বলেন, ‘সৌদি আরব ও সংযুক্ত আরব আমিরাত সামরিক সহযোগিতা চেয়েছিল। তাদের অনুরোধের ভিত্তিতেই প্রেসিডেন্ট সেখানে সেনা পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। এসব সেনা সেখানে মূলত বিমান এবং ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষাব্যবস্থা নিয়ে কাজ করবে।’

তবে কত সংখ্যক সেনা পাঠানো হবে, সে বিষয়ে এসপার সুনির্দিষ্ট কিছু জানাননি। শুধু বলেছেন, এ সংখ্যা কয়েক হাজারের চেয়েও কম হবে।

ইরানে সামরিক হস্তক্ষেপের সম্ভাবনা এখনো আছে কি না, সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘আমরা এখনো তেমন কোনো পরিস্থিতিতে পড়িনি।’

এর কয়েক ঘণ্টা আগে ডোনাল্ড ট্রাম্পও ইঙ্গিত দেন, ইরানে হামলা চালানোর কোনো পরিকল্পনা এখন পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রের নেই। তবে ইরানের ওপর ‘সর্বোচ্চ কঠোর’ নিষেধাজ্ঞা আরোপের ঘোষণা দেন তিনি। ট্রাম্প বলেন, ইরানের সরকারি অর্থ বিশেষ করে তাদের কেন্দ্রীয় ব্যাংক লক্ষ করে নতুন নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হবে।

সৌদি আরবে সেনা মোতায়েনের খবরে কঠোর প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে ইরান। দেশটির ‘ইসলামিক রেভল্যুশনারি গার্ড কর্পস’-এর কমান্ডার মেজর জেনারেল হোসেইন সালামি বলেন, ‘ইরান যেকোনো পরিস্থিতির জন্য তৈরি আছে। কোনো দেশ যদি মনে করে নিজেদের ভূখণ্ডকে যুদ্ধক্ষেত্রে পরিণত করবে, তবে তারা চাইলে যুদ্ধ বাধাতে পারে। তবে আমরা আশা করব, এ ধরনের ভুল তারা করবে না।’ সালামি আরো বলেন, ‘ইরান কখনোই তাদের ভূখণ্ডকে যুদ্ধক্ষেত্র হতে দেবে না।’

এদিকে ইরানের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গভর্নর আব্দলনাসের হেমাতি বলেন, নিষেধাজ্ঞা আরোপের মাধ্যমে এটাই প্রমাণ হয় যে তেহরানকে মোকাবেলা করার আর কোনো উপায় ওয়াশিংটনের হাতে নেই।

সূত্র : বিবিসি, এএফপি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা