kalerkantho

শুক্রবার । ২২ নভেম্বর ২০১৯। ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

ঘূর্ণিঝড় ডোরিয়ান

বাহামায় ২০ জনের মৃত্যু

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বাহামায় ২০ জনের মৃত্যু

বাহামা দ্বীপপুঞ্জে গত বুধবার হারিকেন ডোরিয়ান আঘাত হানার পর উপড়ে যাওয়া গাছ ও বিধ্বস্ত বাড়িঘর। ছবি মার্কিন উপকূলরক্ষীদের সৌজন্যে পাওয়া। ছবি : কালের কণ্ঠ

শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় ডোরিয়ানের আঘাতে বিধ্বস্ত বাহামা দ্বীপপুঞ্জের ৭০ হাজার লোকের জরুরি ভিত্তিতে মানবিক ত্রাণ সহায়তা প্রয়োজন বলে জানিয়েছে জাতিসংঘ। এ ছাড়া ঝড়ের তাণ্ডবে সেখানে অন্তত ২০ জনের মৃত্যু হয়েছে। নিখোঁজ রয়েছে বহু মানুষ। গত বুধবার দ্বীপ রাষ্ট্রটির প্রধানমন্ত্রী হুবার্ট মিনিস এ কথা জানান।

হুবার্ট মিনিস বলেন, ঘূর্ণিঝড় ডোরিয়ানের ‘আঘাতে মৃতের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।’ বাহামার স্বাস্থ্যমন্ত্রী ওয়াশিংটন পোস্টকে জানান, এখন পর্যন্ত আবাকো দ্বীপে ১৭ জন ও গ্রান্ড বাহামা দ্বীপে তিনজনের মৃত্যু হয়েছে।

পাঁচ মাত্রার শক্তিশালী ঝড়ে রূপ নিয়ে গত ১ সেপ্টেম্বর বাহামাসে আঘাত হানে ডোরিয়ান। এ সময় এটির বাতাসের সর্বোচ্চ গতিবেগ ছিল ঘণ্টায় ২৯৮ কিলোমিটার। এরপর দুই দিন ধরে দ্বীপপুঞ্জটির উত্তরাংশের আবাকো দ্বীপ ও গ্রান্ড বাহামা দ্বীপে তাণ্ডব চালায় সেটি।  জাতিসংঘের মানবিক বিষয়সংক্রান্ত আন্ডার সেক্রেটারি মার্ক লোকক জানিয়েছেন, প্রায় ৭০ হাজার লোকের জরুরি ভিত্তিতে খাদ্য, আশ্রয় ও ওষুধ সহায়তা প্রয়োজন। তিনি বলেন, ‘কয়েকটি এলাকা সম্পূর্ণভাবে বিধ্বস্ত হওয়ায় অথবা পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় উদ্বেগ থেকেই যাচ্ছে। যারা ক্ষতিগ্রস্ত এলাকার বাসিন্দা তারা এখন কোথায় এবং কিভাবে সেখানে পৌঁছানো যাবে, তা নিয়েও অনিশ্চয়তায় গেয়েছে।’ ইন্টারন্যাশনাল ফেডারেশন অব রেড ক্রস অ্যান্ড রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি জানায়, ঝড়ে প্রায় ১৩ হাজার বাড়িঘর ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

গত বুধবার স্থানীয় সময় রাত ৮টার দিকে ডোরিয়ান যুক্তরাষ্ট্রের সাউথ ক্যারোলাইনার চার্লসটন থেকে ২১০ কিলোমিটার দক্ষিণে অবস্থান করছিল। দুই মাত্রার হারিকেনের শক্তি নিয়ে এটি মূল ভূখণ্ডের দিকে এগিয়ে আসছিল বলে জানিয়েছে মিয়ামিভিত্তিক যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল হারিকেন সেন্টার (এনএইচসি)। সূত্র : এএফপি, রয়টার্স।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা