kalerkantho

শুক্রবার । ২২ নভেম্বর ২০১৯। ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় আলোচনা নয় : রুহানি

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সরাসরি দ্বিপক্ষীয় আলোচনার সম্ভাবনা নাকচ করে দিয়েছে ইরান। দেশটির প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি গতকাল মঙ্গলবার পার্লামেন্টে দেওয়া এক ভাষণে এ ধরনের সম্ভাবনা প্রত্যাখ্যান করে আগামী কয়েক দিনের মধ্যে পরমাণু চুক্তির আরো কিছু শর্ত থেকে সরে আসার হুমকি দেন।

রুহানি বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে যেকোনো আলোচনাই হবে ২০১৫ সালে স্বাক্ষরিত পরমাণু চুক্তির আওতায়। আর সে সময় এতে স্বাক্ষরিত অন্য পক্ষগুলোও অংশ নেবে। একই সঙ্গে তিনি হুমকি দেন আগামীকালের মধ্যে ইউরোপীয় দেশগুলো যদি যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে মধ্যস্থতার ক্ষেত্রে কোনো ইতিবাচক খবর দিতে না পারে তাহলে ‘আগামী কয়েক দিনের মধ্যে’ ইরান ওই চুক্তির আরো কয়েকটি শর্ত থেকে বের হয়ে যাবে। এর আগেও ইরান দুই দফা এ ধরনের পদক্ষেপ নিয়েছে।

২০১৫ সালের স্বাক্ষরিত পরমাণু চুক্তি থেকে গত বছর মে মাসে একতরফাভাবে বের হয়ে যায় যুক্তরাষ্ট্র। এরপর ইরানের ওপর দফায় দফায় নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে তারা। এর মধ্যে গত জুন মাসে ইরান যুক্তরাষ্ট্রের এক ড্রোন ভূপাতিত করলে পরিস্থিতির আরো অবনতি ঘটে। ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাখোঁ শুরু থেকেই দুই পক্ষের মধ্যে সমঝোতা করার চেষ্টা করছেন। গত আগস্টে ফ্রান্সে অনুষ্ঠিত শিল্পোন্নত দেশগুলোর জোট জি-৭-এর বৈঠকের ফাঁকেও ইরান ইস্যু নিয়ে বড় ধরনের চেষ্টা চালান তিনি। সে সময় রুহানি ও  ট্রাম্পের মধ্যে বৈঠক আয়োজনের সম্ভাবনাও প্রবল হয়ে ওঠে।

এই বিষয়টি টেনেই রুহানি গতকাল বলেন, ‘আমার মনে হয়, কিছু ভুল-বোঝাবুঝি হয়েছে। আমরা বহুবার বলেছি এবং আবারও বলছি, যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় আলোচনার কোনো সিদ্ধান্ত আমরা নিইনি।’ ২০১৫ সালের চুক্তির পক্ষগুলোর কথা উল্লেখ করে তিনি আরো বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্র যদি নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয় তাহলে হয়তো ৫+১ কাঠামোর আওতায় আলোচনা হতে পারে। অতীতে যেমনটি হতো। আলোচনার (যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে) প্রস্তাব অনেকবার আমাদের দেওয়া হয়েছে। তবে প্রতিবারই আমরা নেতিবাচক জবাব দিয়েছি।’ ২০১৫ সালের চুক্তিতে ইরানের পরমাণু প্রকল্প সীমিত করার বিনিময়ে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়। শুরুতে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের কাজটি জোরেশোরে চলতে থাকলেও গত বছর ট্রাম্প চুক্তি থেকে যুক্তরাষ্ট্রকে সরিয়ে নেন। একই সঙ্গে নিষেধাজ্ঞা আবারও আরোপ করা হয়।

এর জবাবে ইরানও ওই চুক্তির শর্ত ভঙ্গ করে ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধকরণ শুরু করে। এই বিষয়টিকে ইঙ্গিত করেই রুহানি গতকাল বলেন, ‘আগামী কয়েক দিনের মধ্যেই তৃতীয় পর্যায়ের চুক্তি লঙ্ঘনের কাজ শুরু করবে ইরান।’ যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ইউরোপীয় দেশগুলোর চলমান আলোচনার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘এই আলোচনাগুলো থেকে বৃহস্পতিবারের মধ্যে কোনো ফল পাওয়া না গেলে আমাদের প্রতিশ্রুতিগুলো থেকে বের হয়ে আসার ব্যাপারে তৃতীয় দফা পদক্ষেপ নেব আমরা।’ সূত্র : এএফপি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা