kalerkantho

মঙ্গলবার । ২১ জানুয়ারি ২০২০। ৭ মাঘ ১৪২৬। ২৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

সুপ্রিম কোর্ট জানালেন

‘৩৭০ নিয়ে জরুরি ভিত্তিতে শুনানি নয়’

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১০ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কাশ্মীরসংক্রান্ত সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ বিলোপের বিরুদ্ধে আর্জির দ্রুত শুনানির জন্য শীর্ষ আদালতের কাছে আবেদন জানিয়েছিলেন আইনজীবী এম এল শর্মা। কিন্তু ভারতের সুপ্রিম কোর্ট বৃহস্পতিবার জানিয়ে দিয়েছেন, জরুরি ভিত্তিতে শুনানি হবে না।

শর্মা ১২ আগস্ট বা ১৩ আগস্ট শুনানির জন্য আবেদন জানান। কিন্তু বিচারপতি এন ভি রামানার বেঞ্চ জানান, নির্দিষ্ট সময়েই ওই মামলার শুনানি হবে। শর্মা আদালতের কাছে জানান, পাকিস্তান সরকার ও কাশ্মীরের কিছু বাসিন্দা জানিয়েছেন তাঁরা ৩৭০ অনুচ্ছেদ বিলোপের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে জাতিসংঘে আবেদন জানাবেন। জবাবে বেঞ্চ বলেছেন, ‘তাঁরা আবেদন জানালেই কি ভারতের সংবিধানে সংশোধনের প্রক্রিয়ায় হস্তক্ষেপ করতে পারবে জাতিসংঘ!’ সেই সঙ্গে বিচারপতির বক্তব্য, ‘এই মামলায় পরবর্তী সওয়ালের জন্য আপনি বরং শক্তি বাঁচিয়ে রাখুন।’

সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী, জম্মু-কাশ্মীর সরকারের অনুমোদন ছাড়া সেটি বাতিলের অধিকার ছিল না কেন্দ্রীয় সরকারের। কিন্তু এক বছর ধরে সেখানে কোনো নির্বাচিত সরকার নেই। গত বছরের জুন মাসে রাজ্যটির তৎকালীন মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতির সরকার সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারালে সেখানে রাজ্যপালের শাসন চালু করে কেন্দ্র। পরে রাষ্ট্রপতির শাসন শুরু হয়। ফলে ৩৭০ অনুচ্ছেদ বিলোপের সিদ্ধান্তের জন্য তাদের নিয়োগ করা রাজ্যপালের অনুমতি নেওয়াই যথেষ্ট বলে জানিয়েছে নরেন্দ্র মোদি সরকার।

৩৭০ অনুচ্ছেদ বিলোপের সিদ্ধান্তের পরে জম্মু-কাশ্মীরের ওপরে যেসব নিষেধাজ্ঞা চাপানো হয়েছে, তা নিয়েও জরুরি ভিত্তিতে শুনানির আবেদন জানিয়ে অন্য একটি মামলা করা হয়েছিল। আবেদনকারী কংগ্রেসকর্মী তেহসিন পুনাওয়ালার আইনজীবী সুহেল মালিক আদালতের কাছে জানান, কাশ্মীরে ফোন লাইন বন্ধ, ইন্টারনেট নেই, কারফিউ জারি করা হয়েছে। কাশ্মীরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ওমর আবদুল্লাহ ও মেহবুবা মুফতিকে মুক্তি দেওয়ার জন্যও আবেদন জানিয়েছেন পুনাওয়ালা। সূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা