kalerkantho

জিম্বাবুয়ের এক-তৃতীয়াংশ মানুষ তীব্র খাদ্যসংকটে

—জাতিসংঘ

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৮ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



খরা, ঘূর্ণিঝড় আর অর্থনৈতিক সংকটের কারণে তীব্র খাদ্য সংকটে পড়া জিম্বাবুয়ের জন্য আর্থিক সহায়তার আবেদন জানিয়েছে বিশ্ব খাদ্য সংস্থা (ডাব্লিউএফপি)। সংস্থাটি জানিয়েছে, জিম্বাবুয়ের ৫০ লাখেরও বেশি মানুষের জরুরি ভিত্তিতে খাদ্য সহযোগিতা প্রয়োজন, যা দেশটির জনসংখ্যার প্রায় এক-তৃতীয়াংশ। এই সংকট মোকাবেলায় ৩৩ কোটি ১০ লাখ ডলার অর্থ সহায়তার জন্য আবেদন জানিয়েছে ডাব্লিউএফপি।

মঙ্গলবার সংস্থাটির পক্ষ থেকে এ আবেদন জানানো হয়। এ সময় ডাব্লিউএফপির প্রধান ডেভিড বিসলে বলেন, ‘জিম্বাবুয়ে এখন খুবই সংকটে ও জরুরি অবস্থায় আছে। অন্তত ২৫ লাখ মানুষ অনাহারের ঝুঁকিতে আছে। আমরা সাহায্যের হাত বাড়িয়ে না দিলে এই মানুষগুলো অনাহারে থাকবে।’

অথচ একসময় আফ্রিকার একটি অঞ্চলের ‘রুটির ঝুড়ি’ হিসেবে পরিচিত ছিল জিম্বাবুয়ে। কিন্তু সাম্প্রতিক খরায় দেশটির ফসল উৎপাদন চরমভাবে ব্যাহত হয়। ফলে খাবারের দাম আকাশচুম্বী হয়ে পড়ে। এ ছাড়া খরায় দেশটির পানির স্তর নিচে নেমে যাওয়ায় কারিবাতে অবস্থিত দেশের প্রধান বিদ্যুৎকেন্দ্রের কার্যক্রম ব্যহত হয়ে সারা দেশে বিদ্যুৎ সরবরাহ কমে যায়। গত মঙ্গলবার প্রেসিডেন্ট এমারসন এমনাঙ্গাগাওয়া এ খরাকে ‘জাতীয় দুর্যোগ’ ঘোষণা করেন।

অর্থনৈতিক আরো নানা সংকটের মধ্য দিয়ে যেতে হচ্ছে দেশটিকে। তার ওপর চলতি বছরের শুরুর দিকে দেশটিতে বড় ধরনের ঘূর্ণিঝড় আঘাত হানে। এতে জিম্বাবুয়ের পাঁচ লাখ ৭০ হাজার মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয় এবং অন্তত ১০ হাজার মানুষ গৃহহীন হয়ে পড়ে। সব মিলিয়ে নানা সংকট সামাল দিতে হিমশিম খেতে হচ্ছে জিম্বাবুয়েকে। জাতিসংঘ এর আগেও দেশটির জন্য অর্থ সহযোগিতার আবেদন জানিয়েছিল। কিন্তু অবস্থার অবনতি হওয়ায় এ দফায় আগের চেয়ে বেশি অর্থ সহযোগিতা চেয়েছে তারা।

সূত্র : বিবিসি।

মন্তব্য