kalerkantho

কাবুলে থানায় গাড়িবোমা হামলায় নিহত ১৪ আহত ১৪৫

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৮ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলের একটি থানার প্রবেশমুখে গাড়ি বোমা হামলায় ১৪ জন নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে নারী, শিশুসহ ১৪৫ জন। গতকাল বুধবার সকালে শহরটির পশ্চিমাঞ্চলীয় এলাকায় এই হামলা চালানো হয়। জঙ্গিগোষ্ঠী তালেবান এই হামলার দায় স্বীকার করেছে।

আফগানিস্তানে আগামী ২৮ সেপ্টেম্বর প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ভোটগ্রহণ। নির্বাচনকে সামনে রেখে এরই মধ্যে দেশটিতে সহিংসতার মাত্রা বৃদ্ধি পেয়েছে। তালেবান এই নির্বাচন বয়কটের ডাক দিয়েছে। মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে তারা জনগণকে নির্বাচনী সমাবেশ থেকে দূরে থাকার বিষয়ে সতর্ক করে দিয়েছে।

আফগান স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র নাসরাত রাহিমি জানান, গতকাল স্থানীয় সময় সকাল ৯টার দিকে কাবুলের পশ্চিমাঞ্চলে একটি থানার প্রবেশপথের কাছেই বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। কর্মকর্তারা জানান, জঙ্গিরা গাড়িবোমার বিস্ফোরণ ঘটায়। তালেবান জানিয়েছে, ট্রাকভর্তি বোমার বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে তারা। একই তথ্য সংবাদমাধ্যমের কাছে নিশ্চিত করেছেন আফগান নিরাপত্তা বাহিনীর এক কর্মকর্তা।

কর্তৃপক্ষের মতে, বোমার বিস্ফোরণের ঘটনায় চার পুলিশ ও ১০ বেসামরিক ব্যক্তি নিহত হয়েছে। এ ছাড়া ৯২ জন বেসামরিক ব্যক্তিসহ আহত হয়েছে ১৪৫ জন।

থানার কাছেই বসবাসকারী স্থানীয় সাংবাদিক জাকেরিয়া হাসানি বলেন, ‘বিস্ফোরণের পরপরই আকাশ ধোঁয়ায় ছেয়ে যায়। আকাশ পরিষ্কার হওয়ার পর পরই আমি অনেক মহিলাকে কাঁদতে দেখেছি। যারা ঘটনাস্থলে নিজেদের নিখোঁজ স্বামী আথবা সন্তানদের খোঁজ করছিল।’ স্থানীয় দোকানদার আহমেদ সালেহ বলেন, ‘আমি প্রচণ্ড বিস্ফোরণের শব্দ শুনতে পাই। বিস্ফোরণের ধাক্কায় আমার দোকানের জানালা ভেঙে যায়।’ তিনি আরো বলেন, ‘আমার মাথা ঘুরছিল এবং আমি নিশ্চিত হতে পারছিলাম না যে আসলে কী ঘটছিল। তবে এটা ঠিক বিস্ফোরণে এক কিলোমিটার এলাকার মধ্যে থাকা ২০টি দোকানের জানালা পুরোপুরি ভেঙে গেছে।’

আফগানিস্তানজুড়ে গত মাসে বেসামরিক হতাহতের সংখ্যা রেকর্ড মাত্রায় বৃদ্ধি পেয়েছে বলে সম্প্রতি প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে জাতিসংঘ। আফগানিস্তানে জাতিসংঘ সহায়তা মিশন (ইউএনএএমএ) জানায়, জুলাই মাসজুড়ে আফগানিস্তানে চলা সহিংসতায় এক হাজার ৫০০ জনের বেশি মানুষ নিহত অথবা আহত হয়েছে, যা ২০১৯ সালে সর্বোচ্চ এবং ২০১৭ সালের মে মাসের পর কোনো একটি নির্দিষ্ট মাসে সবচেয়ে বেশি। সূত্র : এএফপি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা