kalerkantho

পুরুষ অভিভাবক ছাড়াই বিদেশ ভ্রমণের অনুমতি পেল সৌদি নারীরা

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৩ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



এখন থেকে পুরুষ অভিভাবক ছাড়াই বিদেশ ভ্রমণ করতে পারবে সৌদি নারীরা। গত বৃহস্পতিবার এক রাজ ফরমানে এ কথা বলা হয়েছে। এর আগে গত বছর সৌদি নারীদের গাড়ি চালানোর অনুমতি দেওয়া হয়। যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের কথিত সংস্কার কর্মসূচির অংশ হিসেবে এসব সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

ফরমানে বলা হয়, ২১ বছরের বেশি বয়সী যেকোনো নারী এখন থেকে পুরুষ অভিভাবকের অনুমোদন ছাড়াই পাসপোর্টের জন্য আবেদন করতে পারবে। এর ফলে এখন থেকে পুরুষদের মতোই প্রাপ্তবয়স্ক সৌদি নারীরাও দেশে ও দেশের বাইরে স্বাধীনভাবে ভ্রমণ করতে পারবে। নতুন ফরমানে শুধু ভ্রমণ বিষয়েই নারীদের স্বাধীনতা দেওয়া হয়নি। এর সঙ্গে আরো বেশ কয়েকটি বিষয়েও অধিকার দেওয়া হয়েছে নারীদের। ফরমানে বলা হয়েছে, এখন থেকে নারীরা তাদের শিশুর জন্মনিবন্ধন করাতে পারবে। এ ছাড়া বিয়ে করা কিংবা বিয়েবিচ্ছেদের ক্ষমতা দেওয়া হয়েছে।

নতুন ফরমানে বলা হয়, সব নাগরিকেরই কর্মসংস্থানের অধিকার নিশ্চিত করতে হবে। লিঙ্গ, বয়স বা শারীরিক অক্ষমতার ভিত্তিতে কোনো ধরনের বৈষম্য তৈরির সুযোগ নেই।

এ ফরমানের আগ পর্যন্ত পুরুষ অভিভাবকের অনুমতি ছাড়া পাসপোর্ট ইস্যু কিংবা বিদেশভ্রমণের সুযোগ পেত না সৌদি নারীরা। সৌদি নারীদের জন্য স্বামী, পিতা বা যেকোনো পুরুষ অভিভাবকের অনুমতি নেওয়া বাধ্যতামূলক ছিল।

নারী উদ্যোক্তা আবু সুলাইমান টুইটারে বলেন, এত দিন অনুমতি না থাকায় বিদেশে পড়াশোনা অথবা কাজ কিংবা পালিয়ে যেতে পারত না। নতুন ফরমানের ফলে নারীরা স্বাধীনভাবে তাদের লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারবে।

সৌদিতে নারী অধিকার নিয়ে আন্তর্জাতিক সমালোচনার মুখে সম্প্রতি বেশ কিছু সংস্কার দেখা যাচ্ছে। দেশটিতে নারীদের দ্বিতীয় শ্রেণির নাগরিক হিসেবে বিবেচনা করা হয় বলে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থাগুলো দাবি করে আসছে। দেশটির শ্রমবাজারে নারীদের অংশগ্রহণের হার ২২ থেকে ৩০ শতাংশে উন্নীত করার লক্ষ্যমাত্রা আছে বলে স্থানীয় গণমাধ্যমগুলো প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। সূত্র : বিবিসি।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা