kalerkantho

মঙ্গলবার। ২০ আগস্ট ২০১৯। ৫ ভাদ্র ১৪২৬। ১৮ জিলহজ ১৪৪০

ওমান উপসাগরে ২ ‘ট্যাংকারে আগুন’, ৪৪ ক্রু উদ্ধার

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৪ জুন, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ওমান উপসাগরে আগুন ধরে যাওয়া দুটি তেলের ট্যাংকারের কয়েক ডজন ক্রুকে ইরান উদ্ধার করেছে বলে জানিয়েছে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম। কোকুয়া কারেজেস ও ফ্রন্ট আলটেয়ার নামের ওই দুটি জাহাজে কিভাবে আগুন লেগেছে তা এখনো স্পষ্ট হওয়া যায়নি।

উদ্ধারকারীরা দুটি জাহাজ ত্যাগ করা ২১ ও ২৩ ক্রুকে নিরাপদে সরিয়ে নেওয়া নিশ্চিত করেছেন। ইরানের রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম ‘একটি দুর্ঘটনার’ পর ৪৪ ক্রুকে উদ্ধারের খবর দিলেও দুর্ঘটনার কারণ জানায়নি। মার্কিন নৌবাহিনী স্থানীয় সময় সকাল ৬টা ১২ ও ৭টার দিকে সাহায্যের আবেদন জানানো দুটি ফোন পাওয়ার কথা জানিয়েছে।

সংযুক্ত আরব আমিরাতের জলসীমায় চারটি তেলের ট্যাংকারে ‘অন্তর্ঘাতমূলক হামলার’ এক মাস পর ওমান উপসাগরে এ ঘটনা ঘটল। মে মাসের ওই মাইন হামলায় আরব আমিরাত ‘একটি দেশের সরকারের হাত আছে’ বলে জানিয়েছিল। যুক্তরাষ্ট্র ওই ঘটনার জন্য ইরানকে দায়ী করলেও তেহরান তা অস্বীকার করে।

গতকাল বৃহস্পতিবারের এ ঘটনার পর পাঁচ মাস ধরে নিম্নগামী তেলের দাম ৩.৯ শতাংশ বেড়েছে বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে ব্লুমবার্গ। ফ্রন্ট আলটেয়ারকে ভাড়া নেওয়া তাইওয়ানের রাষ্ট্রীয় তেল শোধনাগার প্রতিষ্ঠান সিপিসি করপোরেশনের মুখপাত্র উ আই-ফ্যাং বলেছেন, তাঁদের জাহাজটি ৭৫ হাজার টন ন্যাপথা পরিবহন করছিল। তিনি আরো বলেন, ‘এটি একটি টর্পেডো হামলার মুখে পড়েছিল বলে সন্দেহ করা হচ্ছে।’ তবে তাঁর এই দাবির সত্যতা নিশ্চিত করা সম্ভব হয়নি।

মার্শাল আইল্যান্ডের পতাকাবাহী ওই নৌযানের সব ক্রুকে উদ্ধার করা হয়েছে বলেও মুখপাত্র জানিয়েছেন। ট্যাংকারটিতে আগুন ধরে গিয়েছিল বলে এর স্বত্বাধিকারী নরওয়ের প্রতিষ্ঠান ফ্রন্টলাইন জানিয়েছে। পানামার পতাকাবাহী কোকুয়া কারেজেসের পরিচালনাকারী প্রতিষ্ঠান বিএসএম শিপ ম্যানেজমেন্ট বলেছে, ক্রুরা ট্যাংকারটি ত্যাগ করার পর পাশ দিয়ে যাওয়া একটি নৌযান তাঁদের উদ্ধার করে। সূত্র : রয়টার্স, বিবিসি।

 

মন্তব্য