kalerkantho

শুক্রবার । ১৯ জুলাই ২০১৯। ৪ শ্রাবণ ১৪২৬। ১৫ জিলকদ ১৪৪০

অভিবাসী স্রোত ঠেকাতে চুক্তি করাল যুক্তরাষ্ট্র শুল্ক এড়াল মেক্সিকো

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৯ জুন, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



অভিবাসী স্রোত ঠেকাতে চুক্তি করাল যুক্তরাষ্ট্র শুল্ক এড়াল মেক্সিকো

দারিদ্র্য থেকে বাঁচতে অবৈধভাবে গুয়াতেমালা থেকে মেক্সিকোতে ঢুকে পড়েছে এরা। গন্তব্য যুক্তরাষ্ট্র। এদের ঠেকাতেই সম্প্রতি মেক্সিকোর সঙ্গে চুক্তি করেন ট্রাম্প। গত শুক্রবার মেক্সিকোর চিয়াপাস রাজ্যের টালিসমান থেকে তোলা ছবি। ছবি : এএফপি

অভিবাসী স্রোত ঠেকাতে অবশেষে মেক্সিকোকে চুক্তি করিয়ে ছাড়ল যুক্তরাষ্ট্র। আর এর মধ্য দিয়ে পণ্য রপ্তানির ক্ষেত্রে শুল্ক এড়াতে সক্ষম হয়েছে মেক্সিকো। তিন দিন ধরে দর-কষাকষির পর গত শুক্রবার এ চুক্তি সম্পন্ন হয়েছে বলে দুই দেশের যৌথ বিবৃতিতে জানানো হয়েছে।

চুক্তি অনুযায়ী, যুক্তরাষ্ট্রে অভিবাসী প্রবেশ ঠেকাতে ‘অভূতপূর্ব পদক্ষেপ’ নেবে মেক্সিকো। এতে সন্তুষ্ট হয়ে ‘অনির্দিষ্টকালের’ জন্য শুল্ক আরোপ না করার প্রতিশ্রুতি মিলেছে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টের তরফ থেকে।

প্রতিবছর গাড়ি, বিয়ার, টাকিলা (মদ), ফল ও সবজির মতো পণ্য রপ্তানি করে প্রায় ৩৫০ বিলিয়ন ডলার আয় করে মেক্সিকো। নর্থ আমেরিকা মুক্তবাণিজ্য চুক্তির আওতায় দেশটি বিনা শুল্কে যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডায় পণ্য রপ্তানি করে থাকে। তবে ট্রাম্প ক্ষমতায় আসার পর থেকেই শরণার্থী নিয়ে মেক্সিকো প্রচণ্ড চাপের মুখে আছে।

সম্প্রতি মেক্সিকো সীমান্ত দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে অবৈধ অভিবাসীদের অনুপ্রবেশের হার মারাত্মকভাবে বেড়েছে। শুধু গত মে মাসেই এক লাখ ৪৪ হাজার শরণার্থী যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের চেষ্টা চালিয়েছে, যা গত বছরের তুলনায় তিন গুণ। এমন পরিস্থিতিতে গত মাসে ট্রাম্প হুমকি দেন, সীমান্তে অবৈধ শরণার্থীদের প্রবেশ ঠেকাতে মেক্সিকো চুক্তি করতে সম্মত না হলে প্রতি মাসে ৫ শতাংশ হারে শুল্ক আরোপ করা হবে। এ হারে শুল্ক বাড়তে থাকলে আগামী অক্টোবরে পণ্য রপ্তানির ক্ষেত্রে ২৫ শতাংশ শুল্ক গুনতে হতো মেক্সিকোকে। এর ফলে মেক্সিকোর মন্দা অর্থনীতি আরো খারাপ হবে বলে বিশেষজ্ঞরা সতর্ক করে দেন। আগামীকাল সোমবার থেকে এ শুল্কব্যবস্থা কার্যকর হওয়ার কথা ছিল।

চুক্তির কথা জানিয়ে টুইট বার্তায় ট্রাম্প বলেছেন, ‘আমি এটি জানাতে পেরে আনন্দিত যে যুক্তরাষ্ট্র ও মেক্সিকো  দ্বিপক্ষীয় একটি চুক্তি সই করেছে। সোমবার থেকে মেক্সিকোর ওপর যে বাণিজ্য শুল্ক আরোপ করার কথা ছিল, তা অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত করা হলো।’

চুক্তি অনুযায়ী, শরণার্থীদের ঠেকাতে আগামীকাল সোমবার থেকে ন্যাশনাল গার্ড মোতায়েন করবে মেক্সিকো। পাশাপাশি দেশটির দক্ষিণাঞ্চলে গুয়াতেমালা সীমান্তে ছয় হাজার অতিরিক্ত সেনা মোতায়েন করবে। একই সঙ্গে মানবপাচারকারীদের কঠোর হস্তে দমনের কথা বলা হয়েছে।

চুক্তিতে আরো বলা হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রে অভিবাসনপ্রত্যাশীদের মেক্সিকোতে ফেরত পাঠানো হবে। এসংক্রান্ত আইনি লড়াই শেষ না হওয়া পর্যন্ত তাদের মেক্সিকোতেই অবস্থান করতে হবে। চুক্তিতে নিরাপত্তা ও যৌথ পদক্ষেপ নিতে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক জোরদারের কথা বলা হয়েছে। এ আলোচনা চলতে থাকবে। ৯০ দিনের মধ্যে চূড়ান্ত চুক্তির ব্যাপারে ঘোষণা দেওয়া হবে। এর মধ্যে মেক্সিকোর পদক্ষেপে সন্তুষ্ট না হলে যুক্তরাষ্ট্র অতিরিক্ত ব্যবস্থা নিতে পারবে। তবে এ সম্পর্কে বিশদ তথ্য জানানো হয়নি।

মেক্সিকোর পররাষ্ট্রমন্ত্রী মার্সেলো এবরারড বলেন, ‘চুক্তিতে দুই দেশের ভারসাম্য রক্ষা করা হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্র বিভিন্ন শক্তিশালী পদক্ষেপ গ্রহণের প্রস্তাব দিয়ে আলোচনা শুরু করলেও আমরা মাঝামাঝি একটি অবস্থানে এসে একমত হয়েছি।’ সূত্র : বিবিসি।

 

মন্তব্য