kalerkantho

বুধবার । ১৭ জুলাই ২০১৯। ২ শ্রাবণ ১৪২৬। ১৩ জিলকদ ১৪৪০

ট্রাম্পের হুমকিতে ইরান ধ্বংস হবে না : তেহরান

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২২ মে, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জাভেদ জারিফ বলেছেন, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের হুমকিতে ইরান ‘ধ্বংস হয়ে যাবে না’। এক টুইট বার্তায় জারিফ বলেন, ‘ইরান সহস্র বছর ধরে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়ে আছে। আগ্রাসনকারীরা এসেছে এবং চলে গেছে। অর্থনৈতিক সন্ত্রাস আর গণহত্যার হুমকিতে ইরান ধ্বংস হয়ে যাবে না।’ তিনি আরো বলেন, ‘কখনো কোনো ইরানিকে হুমকি দেবেন না। সম্মান করার চেষ্টা করুন। কাজ হবে।’

গত রবিবার এক টুইটে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ইরানকে হুমকি দিয়ে বলেন, ‘যদি ইরান যুদ্ধ চায় তবে আনুষ্ঠানিকভাবে ইরানের সমাপ্তি হবে।’ হোয়াইট হাউসে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে ট্রাম্প বলেন, ‘আমাদের কাছে এমন কোনো ইঙ্গিত নেই যে কিছু একটা ঘটে গেছে বা ঘটবে।’ তবে ট্রাম্পের ঘনিষ্ঠ সহযোগী সিনেটর লিন্ডসে গ্রাহাম সতর্ক করে বলেন, ইরান যদি মার্কিন স্বার্থের ওপর আঘাত হানে তাহলে তাদের ওপর সর্বাত্মক সামরিক হামলা চালানো হবে।’

জবাবে জারিফ বলেন, ‘প্রেসিডেন্টের ইতিহাসের দিকে তাকানো উচিত।’ কয়েক দিন ধরে যুক্তরাষ্ট্র পারস্য উপসাগরে তাদের সামরিক সক্ষমতা বাড়াচ্ছে। একই সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে দুপক্ষে বাগ্যুদ্ধ। জাতিসংঘ এই পরিস্থিতিতে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। সংস্থার মুখপাত্র স্তেফেন দুরাজিক বলেন, ‘আমরা সব পক্ষের প্রতি বাগ্যুদ্ধ ও হুমকি কমানোর আহ্বান জানাচ্ছি।’

ট্রাম্প ২০১৫ সালের ইরান পরমাণু চুক্তি থেকে যুক্তরাষ্ট্রকে সরিয়ে নিয়ে দেশটির ওপর কঠোর অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা পুনর্বহাল করে। এর মধ্যেই পারস্য উপসাগরে বিমানবাহী রণতরী ও পারমাণবিক বোমা বহনে সক্ষম বি-৫২ বোমারু বিমান মোতায়েন করে যুক্তরাষ্ট্র।

গোয়েন্দা তথ্য নিয়ে মার্কিন আইনপ্রণেতাদের মধ্যে বিভক্তি

ইরান সম্পর্কে মার্কিন আইনপ্রণেতাদের মধ্যে বিভক্তি দেখা দিয়েছে। এ বিষয়ে গতকাল ভারপ্রাপ্ত প্রতিরক্ষামন্ত্রী প্যাট্রিক শানাহান এবং জয়েন্ট চিফস অব স্টাফের চেয়ারম্যান জোসেফ ডানফোর্ডের কংগ্রেসের দুই পক্ষের আইনপ্রণেতাদের বিস্তারিত জানানোর কথা ছিল। রিপাবলিকান আইনপ্রণেতারা জানান, ইরানের উসকানিমূলক তৎপরতার প্রমাণ গোয়েন্দারা পেয়েছে। তবে ডেমোক্র্যাটদের দাবি গোয়েন্দা তথ্য বিকৃত করে উপস্থাপন করা হচ্ছে। সূত্র : এএফপি।

মন্তব্য