kalerkantho

সোমবার । ২৬ আগস্ট ২০১৯। ১১ ভাদ্র ১৪২৬। ২৪ জিলহজ ১৪৪০

ট্রাকে করে ইভিএম বহনের ভিডিও প্রকাশ

ইভিএম বিতর্কে উত্তপ্ত দিল্লি

পাহারার ডাক মমতা-প্রিয়াঙ্কার

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২২ মে, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



ইভিএম বিতর্কে উত্তপ্ত দিল্লি

দিল্লিতে নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে আলোচনার পর কমিশন থেকে বের হয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাব দেন কংগ্রেস নেতা গুলাম নবি আজাদ, অন্ধ্র প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রবাবু নাইডু, দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল ও অন্যরা। ছবি : এএফপি

বুথফেরত জরিপ নিয়ে ব্যাপক আলোচনার পর গতকাল মঙ্গলবার ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লি উত্তপ্ত হয়ে ওঠে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন বা ইভিএম ইস্যু নিয়ে। ইভিএমের সুরক্ষা নিশ্চিত করার দাবিতে গতকাল নির্বাচন কমিশনের দ্বারস্থ হয় ২২টি বিরোধী দল। উত্তরপ্রদেশের বেশ কয়েকটি জায়গায় স্ট্রং রুমে (ইভিএম রাখার সুরক্ষিত স্থান) সন্দেহজনক গতিবিধির ভিডিও ফুটেজ সামনে আসার পর পরিস্থিতি আরো উত্তপ্ত হয়। উত্তরপ্রদেশে সমাজবাদী পার্টি এবং বহুজন সমাজ পার্টির কর্মী-সমর্থকরা রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ দেখাতেও শুরু করে। তাদের দাবি, ফল ঘোষণার আগেই ইভিএমে কারচুপি করার চেষ্টা করা হবে। সাবেক প্রেসিডেন্ট প্রণব মুখোপাধ্যায়ও ইভিএম কারচুপির ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। স্ট্রং রুমগুলো পাহারা দেওয়ার ডাক দিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক প্রিয়াঙ্কা গান্ধী।

তবে এ ধরনের যেকোনো আশঙ্কা নাকচ করে দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। উত্তরপ্রদেশের মুখ্য নির্বাচনী কর্মকর্তা গতকাল টুইট করে সবাইকে আশ্বস্ত করে বলেছেন, সব ব্যালটবন্দি ইভিএমই প্রার্থী, কমিশনের কর্মকর্তা, পোলিং কর্মকর্তা এবং পুলিশের সামনে সিল করে সিসিটিভির নজরদারির আওতায় স্ট্রং রুমে সম্পূর্ণ নিরাপদে রাখা আছে। সেগুলো কখনোই বদলানো যাবে না। এ ছাড়া সব প্রার্থীর এজেন্টদেরই স্ট্রং রুমে নজরদারির অনুমতি দেওয়া হয়েছে কমিশনের তরফ থেকে।

কমিশনের তরফ থেকে আরো বলা হয়, কোথাও  গাফিলতি বা ত্রুটি ধরা পড়লে পূর্ণাঙ্গ তদন্ত হবে এবং যে কর্মকর্তা এ জন্য দায়ী থাকবেন, তাঁর বিরুদ্ধে শৃঙ্খলা ভঙ্গের জন্য পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

এদিকে ভিভিপ্যাটের (ভোটারদের প্রত্যায়িত তালিকা) কাগজের স্লিপের সঙ্গে ইভিএম তথ্যে কোনো গরমিল পাওয়া গেলে সেই আসনের সব ভিভিপ্যাটের সঙ্গে ইভিএমের তথ্য মিলিয়ে দেখতে হবে। এই দাবি নিয়ে ফের নির্বাচন কমিশনের দ্বারস্থ হলো বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলো। বিরোধীদের এই প্রতিনিধিদলে হাজির ছিলেন কংগ্রেস, তৃণমূল, আম আদমি পার্টি, তেলেগু দেশম, ন্যাশনাল কনফারেন্সসহ ২২টি বিরোধী রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধিরা।

বিষয়টি নিয়ে অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রবাবু নাইডুর উদ্যোগে জরুরি বৈঠকে বসে বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলো। সেই বৈঠকে অংশ নিয়েছিলেন কংগ্রেস নেতা গুলাম নবি আজাদ, অশোক গহলৌত এবং অভিষেক মনু সিঙ্ঘভি, ডিএমকে নেত্রী কানিমোঝি, তৃণমূল নেতা ডেরেক ও’ব্রায়েন এবং আম আদমি পার্টির নেতা অরবিন্দ কেজরিওয়াল, বহুজন সমাজ পার্টির নেতা দানিস আলীসহ আরো অনেকে।

এর আগে গত সোমবার রাতে ইভিএম ভর্তি ট্রাকের ভিডিও প্রকাশ পাওয়ায় ইভিএম কারচুপির আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে বিরোধী দলগুলোর মধ্যে। তাদের মধ্যে আশঙ্কা তৈরি হয়, গতকাল রাতের মধ্যেই বদলে দেওয়া হবে ইভিএমের তথ্য। এ ব্যাপারে নির্বাচন কমিশনকে অভিযোগ করেছেন দক্ষিণ দিল্লি লোকসভা কেন্দ্রে আম আদমি পার্টির প্রার্থী রাঘব চাড্ডা।

ভিডিওতে দেখা যায়, উত্তরপ্রদেশের চান্দৌলিতে একটি গণনাকেন্দ্রে গণনাকেন্দ্রের মধ্যেই একটি ঘরে ট্রাকে করে ইভিএম নামানো হচ্ছে। ওই ট্রাক ঘিরে বিক্ষোভও করে বিরোধীরা। অভিযোগ সামনে আসার পর প্রশাসন জানায়, ট্রাকে থাকা ৩৫টি ইভিএম নির্বাচনের দিন ‘রিজার্ভ’ বা অতিরিক্ত হিসেবে রাখা হয়েছিল। যাতায়াতের সমস্যার জন্য এই ইভিএম গণনাকেন্দ্রে পৌঁছতে দেরি হয়েছে।

এদিকে স্ট্রং রুমগুলো পাহারা দেওয়ার ডাক দিয়েছেন কংগ্রেস সাধারণ সম্পাদক প্রিয়াঙ্কা গান্ধী। এক অডিও বার্তায় তিনি এই ডাক দেন। এতে তিনি বুথফেরত জরিপ নিয়ে নেতাকর্মীদের চিন্তিত না হওয়ার আহ্বান জানান। তিনি জরিপগুলোকে গুজব বলে অভিহিত করেন। এর আগেই অবশ্য ক্ষমতাসীন বিজেপি নির্বাচনে সহজে জিতবে বলে যেসব বুথফেরত জরিপ প্রকাশিত হয়েছে তাকে গুজব হিসেবে অভিহিত করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। গতকাল স্ট্রং রুমগুলো পাহারা দেওয়ার ডাক দিয়েছেন তৃণমূল নেত্রীও।

সূত্র : এনডিটিভি, আনন্দবাজার।

মন্তব্য