kalerkantho

রবিবার । ২৬ মে ২০১৯। ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ২০ রমজান ১৪৪০

যুক্তরাষ্ট্রের বাড়াবাড়ি করা অগ্রহণযোগ্য : ইরান

তেহরানবিষয়ক কৌশলে ট্রাম্প প্রশাসনের স্বচ্ছতা চান কংগ্রেসম্যানরা

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৭ মে, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



যুক্তরাষ্ট্রের বাড়াবাড়ি করা অগ্রহণযোগ্য : ইরান

জাভেদ জারিফ

মধ্যপ্রাচ্যে যুক্তরাষ্ট্র অগ্রহণযোগ্য বাড়াবাড়ি করছে বলে অভিযোগ করেছে ইরান। একই সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্র সরে যাওয়া সত্ত্বেও আন্তর্জাতিক পরমাণু চুক্তি মেনে চলতে অঙ্গীকার ব্যক্ত করেছে দেশটি। এর মধ্যেই যুক্তরাষ্ট্রের পার্লামেন্ট কংগ্রেসে ডেমোক্র্যাট ও রিপাবলিকান উভয় দলের সদস্যরাই ট্রাম্প প্রশাসনকে ইরানবিষয়ক কৌশল পরিষ্কার করার আহ্বান জানিয়েছেন।

গত বছরের মে মাসে ইরানের সঙ্গে ছয় জাতির পরমাণু চুক্তি থেকে যুক্তরাষ্ট্র সরে যাওয়ার পর থেকেই মধ্যপ্রাচ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে। এর মধ্যে সম্প্রতি তেহরানের ওপর যুক্তরাষ্ট্রের আরেক দফা নিষেধাজ্ঞা আরোপ এবং উপসাগরে যুদ্ধজাহাজ ও বোমারু বিমান পাঠানোর পর থেকে উত্তেজনা তুঙ্গে উঠেছে। ট্রাম্পও বলেছেন, তিনি ইরানের বিরুদ্ধে শক্তি প্রয়োগের সম্ভাবনা উড়িয়ে দিচ্ছেন না। চলতি সপ্তাহে ট্রাম্প প্রশাসন বাগদাদ দূতাবাস থেকে অপ্রয়োজনীয় কর্মকর্তাদের সরিয়ে নেওয়ার নির্দেশ দিলে ইরানের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের যুদ্ধের আশঙ্কা তৈরি হয়।

গতকাল বৃহস্পতিবার জাপান সফররত ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মদ জাভেদ জারিফ সাংবাদিকদের বলেন, গত বছর পরমাণু চুক্তি থেকে যুক্তরাষ্ট্র সরে যাওয়ার পরও ইরান সর্বোচ্চ সংযম প্রদর্শন করে আসছে। ওয়াশিংটন মধ্যপ্রাচ্যে অগ্রহণযোগ্য বাড়াবাড়ি করেছে। তাদের এই উত্তেজনা সৃষ্টি অগ্রহণযোগ্য। তিনি বলেন, তেহরান এখনো পরমাণু চুক্তিতে থাকতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ এবং নিয়মিতভাবেই চুক্তির শর্ত পালনের বাধ্যবাধকতা প্রদর্শন করে আসছে।

অন্যদিকে ইরানের সঙ্গে যুদ্ধের আশঙ্কায় ট্রাম্প প্রশাসনকে তেহরানবিষয়ক কৌশলে আরো স্বচ্ছতা প্রদর্শন এবং মার্কিন স্বার্থের জন্য ইরানের হুমকি হয়ে ওঠা সংক্রান্ত তথ্য প্রদানের আহ্বান জানিয়েছেন কংগ্রেসের উভয় দলের সদস্যরা। বিশেষ করে যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জন বোল্টন সম্প্রতি ইরানে হামলা করতে এক লাখ ২০ হাজার সেনা পাঠানোর একটি পরিকল্পনা চূড়ান্ত করার নির্দেশ দেওয়ার খবরে তাঁরা বুধবার এ আহ্বান জানান। তবে এরই মধ্যে ট্রাম্প প্রশাসন এ খবরের সত্যতা অস্বীকার করেছে।

বুধবার কংগ্রেসম্যানরা ইরানবিষয়ক তথ্য দাবি করলে হোয়াইট হাউস থেকে জানানো হয়, দুই দলের ‘গ্যাং অব এইট’ খ্যাত শীর্ষস্থানীয় কংগ্রেসম্যানদের এক দিন পর এ বিষয়ে অবগত করা হবে। সে হিসাবে গতকাল তাঁরা তথ্য পাওয়ার কথা। তবে রিপাবলিকান কংগ্রেস সদস্য উতাহ সেন ও মিট রমনি ইরানের পক্ষ থেকে হুমকিকে ‘অনির্দিষ্ট হুমকি’ উল্লেখ করে এ সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য সব কংগ্রেসকেম্যানকে জানানোর আহ্বান জানান।

কংগ্রেসের নিম্নকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার ও ডেমোক্র্যাট নেত্রী ন্যান্সি পেলোসি পরে এক দলীয় বৈঠকে বলেন, হোয়াইট হাউস সব আইন প্রণেতার সামনে ইরানবিষয়ক তথ্য তুলতে ধরতে এখনো রাজি নয়। স্পিকার পেলোসি বলেন, কংগ্রেসের অনুমোদন ছাড়া ট্রাম্পের কোনো অধিকার নেই মধ্যপ্রাচ্যে কোনো সংঘাতে জড়ানোর। তিনি বলেন, ‘আমরা ইরানের সঙ্গে যেকোনো ধরনের যুদ্ধ এড়িয়ে চলতে চাই।’ সূত্র : এএফপি, রয়টার্স ও সিএনএন।

 

মন্তব্য