kalerkantho

সোমবার । ১৪ অক্টোবর ২০১৯। ২৯ আশ্বিন ১৪২৬। ১৪ সফর ১৪৪১       

ভেনিজুয়েলা সংকট

বিদ্যুৎবিভ্রাটের সুযোগে ব্যাপক লুটপাট

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৫ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বিদ্যুৎবিভ্রাটে ভেনিজুয়েলার পশ্চিমাঞ্চলীয় শহর মারাকাইভের পাঁচ শতাধিক দোকানে লুটপাট করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বিদু্যুৎবিভ্রাটে রাজধানী কারাকাসসহ দেশটির বেশির ভাগ এলাকা অন্ধকারাচ্ছন্ন হয়ে পড়ে। এরপর মেরামতকাজ চললেও বিদ্যুৎ পরিস্থিতি এখনো স্বাভাবিক হয়নি।

গত বুধবার দেশটির খুচরা ব্যবসায়ীদের সংগঠন কনসেকোম্যারিতিও এক বিবৃতিতে লুটপাটের কথা জানিয়েছে। একই সঙ্গে ম্যারাকাইভ ও আশপাশের এলাকায় নিরাপত্তা জোরদারের দাবি জানানো হয়েছে। বিবৃতিতে বলা হয়, বিদ্যুত্সংকটের সুযোগ নিয়েছে দুষ্কৃতকারীরা। ম্যারাকাইভের প্রধান বিপণিবিতান ও আশপাশের এলাকার দোকানপাট ভাঙচুর করা হয়েছে।

বিদ্যুৎবিভ্রাটে ভেনিজুয়েলার ২৪টি প্রদেশের মধ্যে ২৩টি প্রদেশই অন্ধকারাচ্ছন্ন হয়ে পড়ে। জলবিদ্যুিনর্ভর দেশটিতে কয়েক বছর ধরে এ খাতে তেমন বিনিয়োগ নেই বললেই চলে। দুর্বল অবকাঠামোর কারণে এর আগেও ভেনিজুয়েলায় বড় ধরনের বিদ্যুৎবিভ্রাটের ঘটনা ঘটেছে। যদিও সর্বশেষ ঘটনার জন্য বিরোধী নেতা হুয়ান গুয়াইদোকে দায়ী করেছেন প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরো। তাঁর ভাষ্য, ‘মার্কিন সাম্রাজ্যবাদী’দের সহায়তায় অভ্যুত্থান ঘটানোর চেষ্টা করেছেন গুয়াইদো। তবে স্বঘোষিত অন্তর্বর্তীকালীন প্রেসিডেন্ট গুয়াইদোর দাবি, দেশজুড়ে চলমান নৈরাজ্য, অস্থিরতা এবং মাদুরো সরকারের অদক্ষতার বহিঃপ্রকাশই এ বিদ্যুৎবিভ্রাট। মাদুরোকে ক্ষমতা থেকে নামানো গেলেই ‘আলো আসবে’। কনসেকোম্যারিতিওর প্রেসিডেন্ট ফেলিপে ক্যাবোছোল্ল উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, কারাকাসহ বেশ বিছু এলাকায় লুটপাট হয়েছে। তবে ম্যারাকাইভে সবচেয়ে ভয়ংকরভাবে লুটপাট চালানো হয়েছে। অর্থনৈতিক সংকটের কারণে দেশে লুটপাটের ঘটনা বেড়েই চলেছে। সূত্র : এএফপি।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা