kalerkantho

শুক্রবার  । ১৮ অক্টোবর ২০১৯। ২ কাতির্ক ১৪২৬। ১৮ সফর ১৪৪১              

যুক্তরাষ্ট্র ও ইসরায়েল দায়ী : রুহানি

ইরানে আত্মঘাতী হামলায় বিপ্লবী বাহিনীর ২৭ সদস্য নিহত

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ইরানের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলে এক আত্মঘাতী বোমা হামলায় ইরানের রেভল্যুশনারি গার্ড বাহিনীর ২৭ সদস্য নিহত হয়েছে। বুধবারের এ হামলায় আরো ১৩ জন আহত হয়েছে। রেভল্যুশনারি গার্ডের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, তাদের সদস্যরা বাসে করে যাওয়ার সময় এক আত্মঘাতী বোমারু বিস্ফোরকভর্তি একটি গাড়ি নিয়ে হামলা করে।

এদিকে আত্মঘাতী বোমা হামলার জন্য যুক্তরাষ্ট্র, ইসরায়েল ও তাদের আঞ্চলিক মিত্রদের দায়ী করেছেন প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি। গতকাল বৃহস্পতিবার দেওয়া এক ভাষণে তিনি এ কথা বলেন। রেভল্যুশনারি গার্ডের বিবৃতিতে বলা হয়, তাদের সদস্যরা বাসে করে যাওয়ার সময় হামলাকারী বিস্ফোরকভর্তি গাড়ি নিয়ে হামলা চালায়। পাকিস্তান সীমান্তের কাছে ইরানের সিস্তান-বেলুচিস্তান প্রদেশে চালানো ওই হামলায় তাদের ২৭ সদস্য নিহত হয়েছে।

এদিকে হামলার দায় স্বীকার করে বিবৃতি দিয়েছে সুন্নি জঙ্গিগোষ্ঠী জইশ আল আদল (আর্মি অব জাস্টিস)। দলটির দাবি, তারা বেলুচ জনগোষ্ঠীর অধিকার আদায়ের সংগ্রাম হিসেবে ওই হামলা চালিয়েছে।

রেভল্যুশনারি গার্ডের সিস্তান-বেলুচিস্তান শাখা জানিয়েছে, তাদের স্থলবাহিনীর একটি ইউনিট বাসে পাকিস্তান সীমান্ত এলাকা থেকে ফেরার পথে কাশ-জাহেদান সড়কে তাদের বাসের পাশে বিস্ফোরকভর্তি একটি গাড়ির বিস্ফোরণ ঘটে। বিবৃতিতে হামলার জন্য ‘তাকফিরি’ সন্ত্রাসী ও অধিপত্যবাদী শক্তিগুলোর গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর ভাড়াটে সেনাদের দায় দেওয়া হয়েছে। সুন্নি চরমপন্থীদের বর্ণনা করতে ‘তাকফিরি’ শব্দটি ব্যবহার করা হয়। ওই চরমপন্থীরা অন্য মুসলিম গোষ্ঠীগুলোকে ‘অবিশ্বাসী’ হিসেবে বিবেচনা করে।

ফার্সের পোস্ট করা এক ভিডিওতে যে সড়কে হামলাটি চালানো হয়েছে সেখানে রক্ত ও ধ্বংসস্তূপ পড়ে থাকতে দেখা গেছে। আক্রান্ত বাসটি দুমড়োমুচড়ে একটি ধাতুর স্তূপে পরিণত হয়েছে। পাকিস্তানের সীমান্তবর্তী ইরানের এলাকাগুলোতে জঙ্গিগোষ্ঠীগুলোর পাশাপাশি সশস্ত্র মাদক চোরাকারবারিদেরও তৎপরতা আছে। ইরানের শিয়া মুসলিম কর্তৃপক্ষ বলেছে, জঙ্গিগোষ্ঠীগুলো পাকিস্তানের নিরাপদ আস্তানা থেকে তৎপরতার চালায় এবং তাদের দমনের জন্য প্রতিবেশী দেশটিকে বারবার তাগাদা দেওয়া হয়। গত শরতে ইরানের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় আহভাজ শহরে সামরিক কুচকাওয়াজে বন্দুকধারীদের হামলায় রেভল্যুশনারি গার্ডের ১২ সদস্যসহ ২৫ জন নিহত হয়েছিল। হামলার নিন্দায় গতকাল ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি বলেন, ‘ওই ঘটনায় হোয়াইট হাউস, তেল আবিব এবং তাদের আঞ্চলিক মিত্রদেশগুলোর সন্ত্রাসের প্রধান সমর্থকদের কালো রেকর্ডে একটি নোংরা দাগ হয়েই থেকে যাবে।’ হাসান রুহানি তাঁর ওই বক্তব্যে ইসরায়েলের নাম নিলেও আঞ্চলিক কোন মিত্রদেশগুলোকে দায়ী করছেন, তা সে বিষয়ে কিছুই স্পষ্ট করেননি। সূত্র : রয়টার্স।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা